প্রধানমন্ত্রীর কাছে আইনজীবীদের খোলা চিঠি

একেএম ফয়েজ
| আপডেট : ২৬ জুলাই ২০২১, ১৬:১৩ | প্রকাশিত : ২৬ জুলাই ২০২১, ১৫:৩৭

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও কর্তৃপক্ষের নিকট আকুল নিবেদন, আইনজীবীদেরকে বাঁচাতে হবে৷ আইনের শাসন চলমান থাকতে হবে। আইনের সঠিক ব্যবহার আর সুষ্ঠুতা না থাকলে কীভাবে একটা দেশ এগিয়ে যাবে? এই মহামারির সময়ে সব আইনজীবী তথা সিনিয়র-জুনিয়র ও নবীন সবার জন্য জরুরি কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা অতীব প্রয়োজন। প্রিয় জননেত্রী আপনি আইনজীবীদের কথা বিবেচনা করুন, আইনজীবীদের জন্য কিছু করুন। এটাই একমাত্র অনুরোধ। কারণ এটাই সময়ের দাবি।

আইনজীবীরা হলেন আইন অঙ্গনের ধারক ও বাহক। আইনের প্রতিটি ক্ষেত্রে যাদের পদচারণা লেগেই থাকে তারাই হলেন আইনজীবী। আমাদের বঙ্গবন্ধু আইনজীবীদের ভালোবাসতেন আর আপনিও অনেক করেছেন আইনজীবীদের জন্য। তাদের কলতান আর কন্ঠে জয়গান নিয়ে মুখরিত থাকে আদালত চত্বর। প্রিয় নেত্রী, আপনি তাকিয়ে দেখুন আজ সব নিস্তব্ধ। করোনাভাইরাসের থাবা যেন সব উপড়ে ফেলেছে। আর আপনার সকল আইনজীবী কষ্ট পাচ্ছে।

অনেকে গ্রামে চলে গেছেন কিন্তু তাও অভাবের কারণে কিছুই করতে পারছেন না। কেন আপনাকে ছুঁয়ে যাচ্ছে না। আপনি তো এর চেয়ে আরো অনেক বড় বড় সমস্যার সমাধান দিয়েছেন৷ আপনি একটিবার খোঁজ নিয়ে দেখুন না! এই দুরবস্থার কারণে তাদের জীবনযাত্রা থমকে গেছে। এভাবে চলতে থাকলে আইনজীবীরা কীভাবে দিনাতিপাত করবে! তারা বাঁচতে চাই! নয়তো আইন অঙ্গন শূন্য হয়ে পড়বে। ইতোমধ্যে অনেক আইনজীবীকে আমরা হারিয়ে ফেলেছি এই কঠিন পরিস্থিতিতে। আপনাকেই এমন দুরবস্থা হতে আইনজীবীদেরকে রক্ষা করতে হবে। আইন পেশাকে জাগিয়ে রাখতে হবে আলোর মশালের ন্যায়।

তাই বলি, আদালত অঙ্গন বন্ধ থাকলেই হবে না, সোচ্চার ও সতর্কতাভাবে, সাবধানে যেভাবেই পারেন বিধিনিষেধ দিয়ে আদালত খুলে দেওয়ার ব্যবস্থা করুন। পারলে স্বল্প পরিসরে হলেও সাপ্তাহিক ছুটির দিনসহ মিলিয়ে সব দিন কোর্ট চালু থাকুক। কারণ গত দুই বছর নাজুক অবস্থায় কার্যক্রম প্রায় বন্ধ। ভার্চুয়াল কোর্ট তাও তেমন গতিশীলতা নেই। কীভাবে এত মামলা শেষ করা যায়! এছাড়াও আপনি তো জানেন আইনজীবীদের আয়ের একমাত্র মাধ্যম হলো আইন পেশা। সরকারি কিংবা বেসরকারি কোনো উৎস থেকে আইনজীবীদের জন্য কোনো অর্থ আসে না।

অথচ আইন রিলেটেড সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ঘরে বসেই বেতন-ভাতার সুবিধা পাচ্ছেন। শুধুই আইনজীবীরা আদালতের কার্যক্রমের ওপর ভরসা করেই জীবনযাপন করেন। কিন্তু সেটা এভাবে অফ রেখে আর কিছুদিন চলতে থাকলে তো আদালত অঙ্গন আইনজীবী শূন্য হয়ে পড়বে। আইনজীবীবান্ধব কোনো নেতাও আইনজীবীদের নেই। থাকলে তারা সব দেখে কেন চুপ করে আছেন। কোনো মন্ত্রীও নেই আসলে। বার কাউন্সিলও কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না। তাই আমাদের প্রিয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনিই একমাত্র ভরসা এখন। তবেই আশা করছি উপরোক্ত বিষয় বিবেচনাপূর্বক সুষ্ঠু-সুন্দর পদক্ষেপ নেওয়া হবে ইনশাআল্লাহ।

লেখক: সিনিয়র আইনজীবী, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট ও কেন্দ্রীয় সদস্য, বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ, আহবায়ক কমিটি

ঢাকাটাইমস/২৬জুলাই/এসকেএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফেসবুক কর্নার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :