‘রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই’ স্লোগানে ফের মুখরিত ঢাবি ক্যাম্পাস!

রাফিউজ্জামান লাবীব, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ২১:৫২

‘রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই, রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই’ ধ্বনিতে আবারো কেঁপে উঠল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। ঢাবির রাজনীতির আঁতুর ঘর মধুর ক্যান্টিনে পাকিস্তানের প্রথম গভর্নর জেনারেল মোহাম্মদ আলী জিন্নাহর বক্তব্যের প্রতিবাদে রাষ্ট্রভাষা বাংলার জন্য আবারো শোনা গেল সেই তেজদীপ্ত স্লোগান।

শনিবার বিকালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে বানানো 'বঙ্গবন্ধু বায়োপিক' -এর শুটিংয়ের সময় এই ধ্বনি মধুর ক্যান্টিন ও আশেপাশের এলাকাকে মুখরিত করে।

'বঙ্গবন্ধু বায়োপিক' ভারতীয় পরিচালক শ্যাম বেনেগাল পরিচালিত একটি বাংলাদেশি চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্রটিতে বঙ্গবন্ধুর চরিত্রে অভিনয় করছেন বাংলাদেশি চলচ্চিত্র অভিনেতা আরিফিন শুভ।

১৯৪৮ সালের বঙ্গবন্ধুর ভাষা আন্দোলনে অবদানের অংশটি মধুর ক্যান্টিনের শুটিংয়ে নেওয়া হয় বলে ইউনিটের একাধিক সদস্য নিশ্চিত করেছেন।

১৯৪৮ সালের ২১ মার্চ পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা ও তদানীন্তন পাকিস্তানের প্রথম গভর্নর জেনারেল মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ ঢাকার রেসকোর্স (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) ময়দানে এক জনসভায় ঘোষণা দেন- ‘Urdu only and Urdu shall be the state language of Pakistan.' এর তিনদিন পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সমাবর্তন অনুষ্ঠানে তিনি একই কথা জোরের সঙ্গে ঘোষণা করলে বিশ্ববিদ্যালয়-অঙ্গন তীব্র প্রতিবাদে ফেটে পড়ে। ছাত্র সমাজ ঘৃণাভরে জিন্নাহর বক্তব্যকে উপেক্ষা করে। সেদিন জিন্নাহকে স্বাগত জানানোর জন্য ফুলের মালা ও স্বাগত ব্যানার বানানো হয়েছিল। কিন্তু প্রাণপ্রিয় মাতৃভাষার অধিকার ছিনিয়ে নেওয়ার অপচেষ্টাকে কোনোভাবে মেনে নিতে পারেনি পূর্ব পাকিস্তানের ৫৬ শতাংশ বাংলা বলা জনগণ।

ভাষা আন্দোলনের সূচনা হয়েছিল ১৯৪৮ সালে, যা ১৯৫২ সালে চূড়ান্ত রূপ লাভ করে। '৫২-তে পাকিস্তানি শোষকদের ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে রফিক, বরকত, জব্বার, সালাম তাদের বুকের তাজা রক্ত দিয়ে বাংলা ভাষাকে বাঙালিদের জন্য স্থায়ীরূপ দান করেছেন। বাঙালিদের তোপের মুখে পরে পাকিস্তান সংবিধানে পরবর্তী সময়ে ১৯৫৬ সালে বাংলা ভাষাকে স্বীকৃতি দেওয়া হয়। ১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো কর্তৃক স্বীকৃতি লাভ করে বাঙালিদের মাতৃভাষা বাংলা। তাইতো আজও বাংলায় কথা বলা, মনের ভাব প্রকাশ করা সম্ভব হচ্ছে।

১৯৪৮ সালে সেদিনের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে যা যা ঘটেছিল সেই অংশটুকু এই শুটিংয়ের মাধ্যমে তুলে ধরা হয়েছে বলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে শুটিং ইউনিটের এক সদস্য ঢাকা টাইমসকে জানান।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশন (বিএফডিসি) ও জাতীয় চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশন, ভারত (এনএফডিসি) এর যৌথ প্রযোজনায় ২০২১ সালের ২১ জানুয়ারি ভারতের ফিল্ম সিটি মুম্বাইয়ে চলচ্চিত্রটির শুটিং শুরু হয়।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর একদিন পরেই ১৮ মার্চ, ২০২০-এ চলচ্চিত্রটির নির্মাণকাজ শুরু করার কথা থাকলেও কোভিড-১৯ মহামারির কারণে দেরিতে অভিনয় শুরু হয়।

চিত্রনায়ক আরিফিন শুভ ছাড়াও চলচ্চিত্রটিতে অভিনয় করছেন চিত্রনায়িকা নুসরাত ইমরোজ তিশা, ফজলুর রহমান বাবু, চঞ্চল চৌধুরী, নুসরাত ফারিয়া, রিয়াজ, শহীদুল আলম সাচ্চু, রাইসুল ইসলাম আসাদসহ আরও অনেকে।

(ঢাকাটাইমস/০৪ডিসেম্বর/আরএল/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিক্ষা এর সর্বশেষ

শাবি উপাচার্যের বাসভবন ঘেরাও, বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন

কুবিতে রেজিস্ট্রার অপসারণ চেয়ে অবস্থান কর্মসূচি

শাবিপ্রবির শিক্ষার্থীদের প্রতি সংহতি জানিয়ে ঢাবিতে সমাবেশ

বাংলা একাডেমি পুরস্কার পেলেন ১৫ যশস্বী, জানুন তাদের পরিচয়

জ্ঞান-বিজ্ঞানের অনুসন্ধানের প্রয়াসই সমাজের বড় শক্তি: ড. মশিউর

ঢাবিতে চলমান পরীক্ষাগুলো সশরীরে নেওয়ার সিদ্ধান্ত

একুশে ফেব্রুয়ারি শহীদ মিনারে যেতে লাগবে টিকা সনদ

জমি উদ্ধারে আন্দোলনের হুঁশিয়ারি ঢাকা আলিয়ার সাবেক শিক্ষার্থীদের

সংসদে শাবি ভিসির কড়া সমালোচনা, অপসারণ চাইলেন জাপার এমপিরা

দুপুরে শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে ফের আলোচনায় বসবেন শাবি শিক্ষার্থীরা

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :