থাইরয়েডের সমস্যায় যেসব খাবার এড়িয়ে চলবেন

স্বাস্থ্য ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ১০:২০

পৃথিবীতে অন্তত ১২ শতাংশ মানুষ থাইরয়েডজনিত সমস্যায় ভোগেন। মানুষের গলার সামনের দিকে প্রজাপতি আকৃতির গ্রন্থিটির নাম থাইরয়েড। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি হরমোন তৈরি হয়। আর যখন থাইরয়েডে হরমোনগুলো অস্বাভাবিক উৎপাদন হয় তখনই সমস্যার সৃষ্টি হয়।

থাইরয়েড হরমোন আমাদের বিপাকসহ আরো বিভিন্ন কাজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই হরমোন তৈরির জন্য এই গ্রন্থিটির প্রয়োজনীয় পরিমাণে আয়োডিনের দরকার হয়। উক্ত হরমোন আমাদের বিপাক ক্রিয়াসহ বিভিন্ন শারীরিক এবং মানসিক বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

থাইরয়েড হরমোন শরীরের প্রায় সকল কার্যক্রমে সহযোগিতা করে, যেমন- হার্ট রেট, লিভার ফাংশন, সার্কুলেশন, মেটাবলিজম ও ইন্টারনাল ক্লক। থাইরয়েড হয় ভুল খাদ্যাভ্যাস এবং জীবনযাত্রার কারণে। থাইরয়েডের সমস্যায় কিছু জিনিস খাওয়া উচিত নয়।

চা ও কফি

চা বা কফি থাইরয়েড রোগীদের ক্ষতি করতে পারে। এতে ক্যাফিন থাকে এবং ওষুধ খাওয়ার পরে ক্যাফিন সেবন করলে রোগ বাড়তে পারে। থাইরয়েডের সমস্যা থাকলে ক্যাফিন আছে এমন খাদ্যের থেকে দূরে থাকা উচিত কারণ, ক্যাফিন থাইরয়েড গ্রন্থি এবং থাইরয়েডের স্তর উভইয়েরই বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

মুলা

মুলাতে এমন অনেক পুষ্টি উপাদান পাওয়া যায়, যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ, তবে থাইরয়েড রোগীদের মুলা খাওয়া এড়িয়ে চলা উচিত। গবেষণায় দেখা গেছে, মুলো থাইরয়েডের উপর থেকে নিয়ন্ত্রণ ব্যাহত করে।

মিষ্টি

যে কোনো খাবার যাতে চিনি বা বাড়তি মিষ্টি দেওয়া হয়েছে, তা খাদ্যতালিকা থেকে বাদ দিন। থাইরয়েডের সমস্যা থাকলে ওজন নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হয়ে পড়ে। তাই চিনি এড়িয়ে চলাই ভালো।

প্যাকেটজাত খাবার

বাজারে তৈরি প্যাকেটজাত খাবারে বাড়তি লবণ, চিনি এবং তেল থাকবেই। তাই এই ধরনের খাবার এড়িয়ে চলুন। প্রক্রিয়াজাত খাবারও না খাওয়াই ভালো।

সয়া

হাইপোথাইরয়েডিজমের ক্ষেত্রে, সয়া জাতীয় খাবার আয়োডিন শোষণে বাধা দেয়, যা সমস্যা বাড়িয়ে দিতে পারে। সয়াবিনে ফাইটোয়েস্ট্রোজেন পাওয়া যায়, যা থাইরয়েড হরমোন প্রস্তুতকারী এনজাইমের কার্যকারিতাকে ব্যাহত করে।

গ্লুটেন

গ্লুটেন যুক্ত খাবার শরীরে প্রদাহ বাড়াতে পারে।

ফুলকপি

থাইরয়েড রোগীদের ফুলকপি খাওয়া উচিত নয়। বাঁধাকপি ও ফুলকপিতে প্রচুর পরিমাণে গয়েট্রোজেন পাওয়া যায়, যা থাইরয়েডের সমস্যা বাড়িয়ে দিতে পারে।

রেড মিট

রেড মিটে স্যাচুরেটেড ফ্যাট এবং কোলেস্টেরল খুব বেশি থাকে। রেড মিট খেলে চর্বি খুব দ্রুত বাড়ে।

দুগ্ধজাত খাবার

বেশির ভাগ চিকিৎসকই মনে করেন, দুগ্ধজাত খাবার শরীরে হরমোনের তারতম্য আরও বাড়িয়ে দেয়। তাই দুধ, মাখন, চিজের মতো খাবার এড়িয়ে যাওয়াই ভালো।

(ঢাকাটাইমস/৯ডিসেম্বর/আরজেড/এজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :