একসময় পর্দা কাঁপাতেন, সেই মুনমুন এখন কী করেন?

বিনোদন প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৯ জুন ২০২২, ১২:৫৯ | প্রকাশিত : ২৯ জুন ২০২২, ০৯:৪৩

একসময় তিনি পর্দায় আসলে সিনেমা হলে দর্শকসারি থেকে শীষ বাজতো। বাড়তো উত্তেজনা। বেশ কিছু সিনেমার সফল নায়িকা তিনি। আবার কিছু সিনেমায় খোলামেলা উপস্থিতির কারণে হয়েছেন বিতর্কিত। তাকে বলা হয় অশ্লীল যুগের নায়িকা। বলছি একসময়ের জনপ্রিয় ও ব্যস্ত নায়িকা মুনমুনের কথা। ২০০০ সালের পর বাংলা চলচ্চিত্রের যে কজন নায়িকার গায়ে অশ্লীলতার তকমা লেগেছিল, মুনমুন তাদের অন্যতম।

পরবর্তীতে সরকার চলচ্চিত্রে অশ্লীলতার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিলে বেশ কয়েকজন নায়িকার সঙ্গে হারিয়ে যান এই মুনমুনও। বহু দিন পর্দায় দেখা নেই তার। দেখা মেলে না এফডিসিতেও। ঢালিউডের অন্যতম আবেদনময়ী সেই নায়িকা এখন কী করছেন? কী তার জীবিকা? বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবর বলছে, জীবিকার তাগিদে কয়েক বছর ধরে যাত্রাপালায় নাচেন মুনমুন।

আসলেই কি তাই? কী বলছেন মুনমুন? ঢাকাটাইমসের কাছে নায়িকার দাবি, ‘এটা পুরোপুরি মিথ্যা কথা। আমি কখনোই যাত্রাপালায় নাচ করিনি। অনেকে আমাকে খাটো করার জন্য বলে আমি যাত্রাপালায় নাচি।’ মুনমুন জানান, ‘আমি গ্রাম্য মেলাগুলোতে নাচি। এসব মেলায় আমাদের ডিমান্ড আছে। আমাদের দর্শক দেখতে চান। এটা আমার ক্যারিয়ারের একটা অংশ।’

হতাশার সুরে এই নায়িকা বলেন, ‘একজন শিল্পী মঞ্চে যেমন কাজ করতে পারেন, নাটকেও পারেন। আমাদের দেশে একপেশে চিন্তা ভাবনা, নায়ক-নায়িকারা শুধু সিনেমায় কাজ করবে। আমাদের পাশের দেশ ভারতে জনপ্রিয় শিল্পীরা নিয়মিত স্টেজ শো করেন। তারা বাহবাও পান। অথচ একই কাজ আমাদের দেশে করলে সেটাকে বাঁকা চোখে দেখা হয়। এটা খুবই দুঃখজনক।’

এর পাশাপাশি তিনি যে হারিয়ে যাননি সেটাও জানালেন মুনমুন। অভিনেত্রী বলেন, ‘আমার হাতে এখন অনেক কাজ। স্টেজ শো করছি। সিনেমার কাজও টুকটাক করা হয়। ‘বউ জামাইয়ের লড়াই’ নামে একটি সিনেমার শুটিং এবং ডাবিং কয়েক মাস আগে শেষ করেছি। সেটি এ বছরই মুক্তি পেতে পারে। ঈদের পর শুরু করব ‘পুলিশ নাম্বার ওয়ান’ নামে একটি সিনেমার কাজ।’

নায়িকা জানান, ‘এখন আর আগের মতো সিনেমার কাজ করি না। একসময় একটানা কাজ করতাম। এখন স্টেজ শোতে বেশি কাজ করি। মঞ্চে সারা বাংলাদেশের মানুষ আমাকে চেনে। সিনেমার কাজ বেড়ে গেলেও এখন স্টেজ শো ছাড়বো না। মঞ্চে যে আনন্দ পাই, যে স্বাধীনতা থাকে, তা সিনেমায় সম্ভব নয়। এখানে পারিশ্রমিকও সিনেমার থেকে বেশি।’

২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে টাঙ্গাইলের সখীপুরে একটি মসজিদের সামনে নেচেছিলেন মুনমুন। সেই ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। তীব্র সমালোচনার মধ্যে পড়ে গিয়েছিলেন এই নায়িকা। এ ঘটনায় চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরাও ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন মুনমুনের প্রতি। পরে ওই ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়ে নেন অভিনেত্রী।

১৯৯৬ সালে এহতেশাম পরিচালিত ‘মৌমাছি’ ছবির মাধ্যমে ঢালিউডে অভিষেক করেন মুনমুন। এর আগে তিনি এই পরিচালকের সহকারী হিসেবে কাজ করতেন। এহতেশামই পরে মুনমুনকে চলচ্চিত্রে আনেন। পরবর্তীতে ‘নিষিদ্ধ নারী’, ‘ঠেকাও মাস্তান’, ‘মৃত্যুর মুখে’, ‘রানী কেন ডাকাত’, ‘লংকাকাণ্ড’, ‘শত্রু সাবধান’, ‘বিষে ভরা নাগিন’, ‘দুই নাগিন’সহ ৩০টির মতো ছবিতে দেখা গেছে মুনমুনকে।

ঢালিউডের শীর্ষ নায়ক শাকিব খানের সঙ্গে সর্বাধিক ১৪টি ছবিতে জুটি বাঁধেন এই নায়িকা। এমনকি, শাকিবের ক্যারিয়ারের প্রথম ব্যবসাসফল ছবি ‘বিষে ভরা নাগিন’ মুনমুনের সঙ্গেই। এমন একজন জনপ্রিয় নায়িকা ২০০৩ সালের পর চলচ্চিত্রে অনিয়মিত হয়ে যান। অশ্লীলতার দায়ে তিনি পড়ে যান ময়ূরী, পলিদের মতো নায়িকাদের কাতারে।

এদিকে, চলচ্চিত্র ক্যারিয়ারের মতো ব্যক্তিজীবনটাও বেশ চমকপ্রদ মুনমুনের। তার জন্ম হয়েছিল যুদ্ধ বিধ্বস্ত ইরাকে। ছোটবেলা সেখানেই কাটে। পৈতৃক নিবাস চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলায়। পড়াশোনা করেছেন উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত। এর পরই ঝুঁকে পড়েন চলচ্চিত্রে অভিনয়ের দিকে।

বৈবাহিক জীবনে মুনমুন ২০০৩ সালে ঘর বাঁধেন সিলেটের লন্ডনপ্রবাসী এক ব্যবসায়ীর সঙ্গে। স্বামীর সঙ্গে চলে যান লন্ডনে। কিন্তু টেকেনি সে সংসার। ২০০৬ সালে ডিভোর্সের পর দেশে ফিরে আসেন মুনমুন। ২০১০ সালে তিনি বিয়ে করেন মীর মোশাররফ রোবেন নামে এক যুবককে। সেখানে দুই ছেলের মা হন নায়িকা। ২০২০ সালে ভেঙে যায় দ্বিতীয় সংসারও।

আরও একবার কি সংসার পাতার ইচ্ছা আছে মুনমুনের? এ সম্পর্কে গত বছর একটি সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী জানান, বিয়ের করার ইচ্ছা তার অবশ্যই আছে। মনের মতো গোছানো ছেলে পেলে যেকোনো সময়ে তিনি ফের বিয়ের পিঁড়িতে বসতে চান। যদিও গোছানো ছেলে বলতে কেমন ছেলে বোঝায়, সে সম্পর্কে কিছু জানাননি নায়িকা।

(ঢাকাটাইমস/২৯ জুন/এএইচ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :