একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিকের ব্যবহার নিষিদ্ধ করল ভারত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০২ জুলাই ২০২২, ১২:৪০

ভারতে পরিবেশ দূষণ কমাতে একবার ব্যবহারযোগ্য সব ধরনের প্লাস্টিক পণ্যের উপর এক বছরের জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ক্ষমতাসীন মোদি সরকারের প্রশাসন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, গতকাল শুক্রবার (১ জুলাই) প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সরকার এক বিবৃতিতে প্লাস্টিকের ব্যবহারের উপর এ নিষেধাজ্ঞা জারি করে।

প্লাস্টিক কোম্পানিগুলো মুদ্রাস্ফীতি বৃদ্ধি এবং বেকারত্ব বৃদ্ধির আশঙ্কায় সাময়িকভাবে এ নিষেধাজ্ঞা স্থগিতের আহ্বান জানিয়েছে।

বিশ্বের দ্বিতীয় জনবহুল দেশ ভারতে পরিবেশ দূষণের অন্যতম একটি কারণ প্লাস্টিকের দূষণ। দেশটির অর্থনৈতিক উন্নতি বৃদ্ধি পাওয়ায় প্লাস্টিকের ব্যবহার অনেক বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশেষত রেস্টুরেন্টে প্লাস্টিকের ব্যবহার কয়েকগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

প্রাথমিকভাবে সরকার ১৯টি প্লাস্টিকের ধরণ শনাক্ত করেছে। এগুলো বেশি উপকারী না হলেও পরিবেশ দূষণের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর।

নিষিদ্ধ পণ্যের তালিকায় স্ট্র, প্যাকেজিং ফিল্ম, ইয়ার বাড, বেলুনের জন্য প্লাস্টিকের স্টিক, চকলেট এবং আইসক্রিম, সিগারেট প্যাকেটসহ আরও কিছু পণ্যের উপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়।

তবে নিষেধাজ্ঞার আওতা থেকে ‘স্ট্র’ বাদ দেওয়ার জন্য খাদ্য ও পানীয় তৈরির কোম্পানি পেপসিকো, কোকা-কোলা, পার্লে অ্যাগ্রো, ডাবর এবং আমুল এর পক্ষ থেকে সরকারের নিকট তদবির চালানো হয়ে বলে জানায় রয়টার্স।

সরকারের এই নিষেধাজ্ঞার কারণে তালিকাভুক্ত প্লাস্টিক উৎপাদন, আমদানি, মজুত, বণ্টন, বা বিক্রি অবৈধ।

ভারতে এটিই প্রথমবার প্লাস্টিক ব্যবহারের উপর নিষেধাজ্ঞা নয়। এর আগে ভারতের কয়েকটি প্রদেশে প্লাস্টিকের ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। এবার নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়ন পরীক্ষার জন্য একটি কেন্দ্রীয় কন্ট্রোল রুম খোলা হবে। এর মাধ্যমে নিয়মিত প্লাস্টিকের ব্যবহার নিয়ে পর্যবেক্ষণ করা হবে।

দেশটিতে প্রতি বছর ১৪ মিলিয়ন টন প্লাস্টিক ব্যবহার করা হয়। প্লাস্টিকের ব্যবহারের কারণে সড়কের ড্রেন, নদী এবং সমুদ্রে আবর্জনার পরিমাণ ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ ছাড়া, পানি দূষণের কারণে বহু সামুদ্রিক প্রাণী মারা যাচ্ছে।

তবে এই নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়ন করা কঠিন হবে বলে দাবি বিশ্লেষকদের।

এ ছাড়া, প্লাস্টিকের অতিরিক্ত ব্যবহারের কারণে সামুদ্রিক তিমির পেটে প্লাস্টিকের ক্ষুদ্র কণার উপস্থিতি পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে একদল গবেষক।

(ঢাকাটাইমস/০২জুলাই/আরআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :