তালাবদ্ধ ঘরে পুড়ে মরল দুই ভাই, মা-নানি পলাতক, পিতা আগেই জেলে

মাদারীপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭:০৩ | প্রকাশিত : ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭:০১

মাদারীপুরের উত্তর ঝিকরহাটি গ্রামে তালাবদ্ধ ঘরে আগুনে পুড়ে মারা গেছে সহোদর দুই ভাই। মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনায় এলাকা জুড়ে বইছে শোক। একটি মামলায় বাবা জেল হাজতে থাকলেও ঘটনার পর পাওয়া যাচ্ছে না মা ও নানিকে। বিষয়টি অস্বাভাবিক বলছে সদর থানা পুলিশ। এদিকে এটি হত্যাকান্ড নাকি নাশকতা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

সোমবার বেলা ১২টার দিকে মাদারীপুর সদর উপজেলার উত্তর ঝিকরহাটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে মাদারীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনোয়ার হোসেন চৌধুরী স্থানীয়দের বরাতে জানান, মাদারীপুর সদর উপজেলার উত্তর ঝিকরহাটি গ্রামের গোলাম মাওলা মাতুব্বরের মালিকাধানী একতলা টিনশেট ঘরে আগুনের লেলিহান শিখা দেখতে পান এলাকাবাসী। পরে ঘরের তালা ভেঙে পানি ছিটিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করেন তারা। খবর পেয়ে তাদের সঙ্গে যোগ দেন ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা। আগুন নিয়ন্ত্রণের আগেই পুড়ে মারা যায় এক বছরের একটি শিশু। এ সময় গুরুতর আহত তিন বছর বসয়ী সহোদর ভাইকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্ত্যবরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। বিষয়টিকে অস্বাভাবিক মনে করে প্রাথমিকভাবে আগুনের কারণ সম্পর্কে কিছুই জানাতে পারা যায়নি।

হাজী মোহাম্মদ বাদল মাতুব্বর নামে পাশ্ববর্তী এক এলাকাবাসী জানায়, পারিবারিক কলহের জেরে প্রায়ই ঝগড়া ও মারামারি করতো স্বামী-স্ত্রী দুজনে। দুই মাস আগে একটি মামলায় মানিককে বৈদ্যকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তারপর থেকে জেল-হাজতে রয়েছে সে। সকালে ঘর তালাবদ্ধ করে অন্যত্র চলে যায় মা ও নানি। এর পরপরই ঘটে এই আগুনের ঘটনা। ঘটনার পর সহোদর দুই ভাইয়ের মা ও নানি পলাতক রয়েছে। এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড নাকি স্বাভাবিক মৃত্যু বিষয়টি বিষয়টি খতিয়ে দেখতে পারে পুলিশ।

জোনাবালী মাতুব্বর নামে আরেক ব্যক্তি বলেন, এটা অত্যন্ত মর্মান্তিক ঘটনা। যদিও পারিবারিক ঝামেলায় ঘটনাটি ঘটেছে। এমন ঘটনায় আমরা শোকাহত। যে এমন নিষ্ঠুর ঘটনা ঘটিয়েছে, তার কঠিন বিচার হওয়া উচিত। যাতে আগামীতে কেউ এমন ঘটনা ঘটাতে সাহন না করে।

এ ব্যাপারে সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার জাহিন আরেফিন বলেন, যখন একটি শিশুকে হাসপাতালে আনা হয়, তখন তার হৃৎপিণ্ড ও অন্যান্য কিছু চেক করে দেখি, সবই অকেজো হয়ে গেছে। অর্থাৎ হাসপাতালে আনার পূর্বেই তার মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া অন্য শিশুটি বাড়িতেই পোড়া অবস্থায় মারা যায়।

মাদারীপুর ফায়াস সার্ভিসের পরিদর্শক নূর মোহাম্মদ শিকদার বলেন, যতটুকু শুনেছি ৬ মাস আগে গোলাম মাওলা মাতুব্বরের ঘর ভাড়া নেন শ্রীনদী এলাকার ভ্যানচালক মানিক বৈদ্য। শাশুড়ি, স্ত্রী ও দুই ছেলে নিয়ে সেখানে থাকতেন তিনি। ঘটনাস্থল থেকে আগুনের আলামত হিসেবে বেশ কিছু মালামাল জব্দ করা হয়েছে। আর আগুন লাগার প্রাথমিক কারণ হিসেবে গ্যাস থেকে সূত্রপাত হয়েছে বলেই মনে হচ্ছে। তারপরেও পুরোপুরি পরে জানানো হবে।

(ঢাকাটাইমস/৫ডিসেম্বর/এআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :