হামলার পর পশ্চিম তীরে সামরিক শক্তি বাড়িয়েছে ইসরায়েল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৮ জানুয়ারি ২০২৩, ১৬:৫৪

শনিবার জেরুজালেমের সেনগগের ইহুদি উপাসনালয়ে হামলায় ৭ জন নিহত হওয়ার পর পশ্চিম তীরে সামরিক শক্তি বাড়িয়েছে ইসরায়েল।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, শুক্রবার রাতের গুলির ঘটনাটি কয়েক বছরের মধ্যে পশ্চিম তীরে সবচেয়ে মারাত্মক ইসরায়েলি অভিযান এবং ইসরায়েল ও গাজার মধ্যে আন্তঃসীমান্ত অগ্নিকাণ্ডের পরদিনই ঘটেছে। এর ফলে ইসরায়েল ফিলিস্তিনের রক্তক্ষয়ী সংঘাত আরও তীব্র হওয়া আশঙ্ক দেখা দিয়েছে।

শনিবার ইসরায়েলি অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা জানিয়েছে, আরও একটি গুলির ঘটনায় দুজন আহত হয়েছেন।

ইসরায়েলি পুলিশ বলেছে, শুক্রবারের হামলায় বন্দুকধারী ছিলেন পূর্ব জেরুজালেমের ২১ বছর বয়সী ফিলিস্তিনি বাসিন্দা। সে একাই হামলা চালিয়েছে বলে তাদের ধারণা।

পুলিশ আরও জানিয়েছে, সে গাড়িতে করে পালানোর চেষ্টা করেছিল কিন্তু পুলিশ তাকে ধাওয়া করে এবং গুলি করে হত্যা করে। বন্দুকধারীর পরিবারের সদস্যসহ ৪২ জন সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং কর্তৃপক্ষ সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রয়েছে।

হামলাটি পশ্চিম তীরে কয়েক মাস সংঘর্ষের পর সহিংসতা বৃদ্ধির আশঙ্কার কথা তুলে ধরেছে। কেননা বৃহস্পতিবার জেনিনে একটি অভিযানে কমপক্ষে নয়জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে।

ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী বলেছে, ‘আইডিএফ (ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনী) পরিস্থিতিগত মূল্যায়নের পরে, একটি অতিরিক্ত ব্যাটালিয়ন দিয়ে জুডিয়া এবং সামারিয়া (পশ্চিম তীর) বিভাগকে শক্তিশালী করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।’

গত মাসে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু কট্টর জাতীয়তাবাদী দলগুলিকে অন্তর্ভুক্ত করে এমন একটি সরকারের প্রধানের দায়িত্ব নেওয়ার পর সহিংসতার প্রাদুর্ভাব প্রথম বড় সংঘর্ষ এটি। নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষের সাথে মূল্যায়নের পর নেতানিয়াহু জনগণকে আইন নিজের হাতে না নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন কিন্তু বলেছেন যে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে এবং শনিবার মন্ত্রিসভা বৈঠক করবে।

ডানপন্থি জাতীয় নিরাপত্তা মন্ত্রী ইতামার বেন-গভির হামলার স্থান পরিদর্শন করেছেন। সেখানে তাকে উল্লাস ও ক্রোধের মিশ্রণে স্বাগত জানানো হয়েছে। সেখানকার জনতার উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘সরকারকে প্রতিক্রিয়া জানাতে হবে, ঈশ্বরের ইচ্ছা এটাই হবে।’

(ঢাকাটাইমস/২৮জানুয়ারি/এসএটি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :