কাছ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে দেখবেন, এই আনন্দে দুদিন ঘুম হয়নি সুমির

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৩:৫৪ | প্রকাশিত : ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১২:০৮

শুনেছি আমাদের উন্নয়নের কারিগর, আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা আসছেন আমাদের এখানে। এ খবর শুনে কি আর ঘুম হয়? গত দুদিন ধরেই ঘুম আসে না, জেগে থাকি। কাল রাতে এক মিনিটও ঘুম হয়নি, সকালে আলো দেখতেই পায়ে হেঁটে চলে এসেছি নেত্রীকে দেখতে, তার কথা শুনতে। তাকে দেখার ইচ্ছা পূরণ হলেই আমার শান্তি লাগবে।

বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) রূপগঞ্জ উপজেলার পূর্বাচল মেট্রো রেলের ডিপো উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে একই স্থানে জনসভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রধানমন্ত্রী বক্তব্য রাখবেন। এ উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশস্থলের মাঠ সকাল ৮টার মধ্যেই নেতাকর্মীতে পূর্ণ হয়ে যায়। সকাল ৯টায় দেখা যায় মাঠের আশপাশের সড়কগুলো দলীয় হাজার হাজার নেতাকর্মীতে পূর্ণ হয়ে গেছে। এর মধ্যে একজন কর্মীকে দেখা যায় বসে থাকতে। সেই নারীকর্মীর নাম সুমি বেগম। কেন এত আগে আগে এখানে এসেছেন জানতে চাইতেই এভাবে উত্তর দিলেন তিনি।

সুমি বেগম রূপগঞ্জ উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের কামসাইর এলাকার বাসিন্দা। তিনি বলেন, আমি বসুন্ধরা গ্রুপকে অনেক ভালোবাসি। শীতে শীতবস্ত্র, করোনায় খাদ্য সহায়তা, দুর্দিনে পাশে দাঁড়ানো, বিপদে সহায়তা নিয়ে এগিয়ে আসা, রমজানে খাদ্য সহায়তা, ঈদে ঈদ সামগ্রী বিতরণ সবকিছু মিলিয়ে বসুন্ধরা আমাদের রূপগঞ্জে মানুষের মন জয় করে নিয়েছে। এই সহায়তার জন্য বসুন্ধরা গ্রুপের কর্ণধারদের জানাই অন্তর থেকে ভালোবাসা।

তিনি বলেন, আমাদের দেশকে অন্ধকার থেকে আলোতে তুলেছেন আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা। উন্নয়নের পর উন্নয়ন করে এখন দেশকে উন্নত দেশে পরিণত করেছেন তিনি। তার কারণে আজ আমরা বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারি। আমরা পদ্মা সেতু করেছি, মেট্রোরেল করেছি আর তা সম্ভব হয়েছে শেখ হাসিনার জন্য। আজ এখানে মেট্রোরেলের ডিপো উদ্বোধন করবেন নেত্রী। সেদিন আর বেশি দূরে নয় যেদিন উন্নত দেশগুলো আমাদের উন্নয়ন দেখতে এখানে আসবেন কারণ আমাদের এখন শেখ হাসিনা আছেন যার হাত ধরে উন্নয়ন কীভাবে করতে হয় আমরা শিখেছি।

এদিকে সমাবেশকে ঘিরে রং-বেরঙের টিশার্ট, ক্যাপ, ব্যানার ফেস্টুন হাতে নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে দলে দলে আসছেন নেত্রীকে দেখতে ও তার কথা শুনতে। জেলা আওয়ামী লীগ, মহানগর আওয়ামী লীগ, বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের জেলা ও মহানগর শাখা, উপজেলা শাখা, পৌরসভা, ইউনিয়ন, ওয়ার্ড থেকে আলাদা আলাদা ব্যানারে আসছেন নেতাকর্মীরা। প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে ঘিরে মোড়ে মোড়ে নির্মাণ করা হয়েছে তোরণ। সাজানো হয় পুরো এলাকা।

(ঢাকাটাইমস/২ফেব্রুয়ারি/এআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :