প্রস্তুত ইউক্রেনের সেনারা, রাশিয়ার বিরুদ্ধে যেকোনো সময় পাল্টা হামলা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৭ মে ২০২৩, ১৬:২৩ | প্রকাশিত : ২৭ মে ২০২৩, ১৬:১৮

রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে দীর্ঘ-প্রত্যাশিত পাল্টা আক্রমণ শুরু করতে পুরোপুরি প্রস্তুত ইউক্রেনের সেনারা। তারা যেকোনো সময় হামলা শুরু করতে পারে বলে বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন দেশটির শীর্ষ নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের একজন ওলেক্সি দানিলভ।

ইউক্রেনের জাতীয় নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা কাউন্সিলের সচিব হিসেবে দানিলভ রাষ্ট্রপতি ভলোদিমির জেলেনস্কির ডি ফ্যাক্টো যুদ্ধ মন্ত্রিসভার কেন্দ্রে রয়েছেন।

বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি পাল্টা হামলা কবে, কখন হতে পারে এ বিষয়ে কোনো তারিখের কথা জানাননি। তবে বলেছেন, প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের দখলদার বাহিনীর কাছ থেকে এলাকা পুনরুদ্ধার করার জন্য একটি আক্রমণ ‘আগামীকাল, পরশু বা এক সপ্তাহের মধ্যে’ শুরু হতে পারে।

তিনি সতর্ক করে বলেচেন, ইউক্রেনের সরকারের সিদ্ধান্তে ‘ভুল করার কোন অধিকার নেই’ কারণ এটি একটি ঐতিহাসিক সুযোগ যা আমরা হারাতে পারি না।

বিবিসির সঙ্গে তার বিরল সাক্ষাত্কারটির মাঝখানে রাষ্ট্রপতি জেলেনস্কির একটি ফোন বার্তা আসে। যার কারণে সাক্ষাৎকারটি বিঘ্নিত হয়। ফোন বার্তায় মূলত তাকে পাল্টা আক্রমণের বিষয়ে আলোচনা করার জন্য একটি বৈঠকে ডেকেছিলেন জেলেনস্কি।

সাক্ষাত্কারের সময় তিনি আরও বলেছেন, ওয়াগনার ভাড়াটে বাহিনী এখন পর্যন্ত যুদ্ধের সবচেয়ে রক্তক্ষয়ী স্থান বাখমুত শহর থেকে প্রত্যাহার করছে। তবে তিনি এটাও বলেছেন, তারা আরও তিনটি স্থানে পুনরায় সংঘবদ্ধ হচ্ছে এবং এর মানে বুঝায় তারা আমাদের সঙ্গে যুদ্ধ বন্ধ করবে না।

দানিলভ আরও বলেছিলেন, রাশিয়া বেলারুশে পারমাণবিক অস্ত্র মোতায়েন শুরু করার বিষয়ে তিনি ‘পুরোপুরি শান্ত’। তিনি জানান, ‘আমাদের কাছে এটি কোনও ধরণের সংবাদ নয়।’

ইউক্রেন কয়েক মাস ধরে পাল্টা আক্রমণের পরিকল্পনা করছে। তবে এটি সৈন্যদের প্রশিক্ষণ এবং পশ্চিমা মিত্রদের কাছ থেকে সামরিক সরঞ্জাম গ্রহণের জন্য যতটা সম্ভব সময় চেয়েছে। ইতোমধ্যে রুশ বাহিনী তাদের প্রতিরক্ষা প্রস্তুত করছে।

দানিলভ বলেছিলেন, সশস্ত্র বাহিনী আক্রমণ শুরু করবে যখন কমান্ডাররা বুঝতে পারবে আমরা যুদ্ধের সেই সময়ে সেরা ফলাফল পেতে পারি।

ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনী আক্রমণের জন্য প্রস্তুত কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমরা সর্বদা প্রস্তুত। যেভাবে আমরা আমাদের দেশকে যেকোনো সময় রক্ষা করতে প্রস্তুত ছিলাম। এবং এটি সময়ের প্রশ্ন নয়। আমাদের বুঝতে হবে ঐতিহাসিক সুযোগ যা আমাদের দেওয়া হয়েছে (ঈশ্বরের দ্বারা) আমাদের দেশের কাছে আমরা হারাতে পারি না, তাই আমরা সত্যিকার অর্থে একটি স্বাধীন, বড় ইউরোপীয় দেশ হয়ে উঠতে পারি।’

’এটি আগামীকাল, পরশু বা এক সপ্তাহের মধ্যে ঘটতে পারে। এটা অদ্ভুত হবে যদি আমি এটি শুরুর তারিখ বা সেই ঘটনাগুলির নাম রাখি। এটি করা যাবে না। আমাদের দেশের সামনে আমাদের খুব দায়িত্বশীল কাজ আছে। আমরা বুঝতে পারি, আমাদের ভুল করার কোন অধিকার নেই,’ তিনি যোগ করেছেন।

(ঢাকাটাইমস/২৭মে/এসএটি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :