বাংলাদেশের ঋণমান কমালো মুডি’স

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ৩০ মে ২০২৩, ২৩:১৭

ঋণ পরিশোধের সক্ষমতা কমেছে জানিয়ে বাংলাদেশের ক্রেডিট রেটিং বা ঋণমান কমিয়ে দিয়েছে আর্ন্তজাতিক ক্রেডিট রেটিং এজেন্সি মুডি’স। সংস্থাটি বলছে, বর্তমানে বাংলাদেশের বিদেশি ঋণ পরিশোধের যে সক্ষমতা— তার নিরিখে বাংলাদেশের ঋণমান সূচক বি৩’র পরিবর্তে বি১ ক্যাটাগরিতে অবস্থানের জন্য উপযুক্ত। এই রেটিংয়ের অর্থ হলো বাংলাদেশে বিনিয়োগের ঝুঁকি আগের চেয়ে বেড়েছে।

মঙ্গলবার সিঙ্গাপুর থেকে মুডি'স ইনভেস্টর সার্ভিস এ রেটিং প্রকাশ করে।

একই সঙ্গে মুডি’স বলছে, বাংলাদেশ সরকারের দীর্ঘমেয়াদি বন্ড ইস্যুর ক্ষেত্রে বাংলাদেশের রেটিং ‘বিএ৩’ থেকে কমে ‘বি১’ নামলেও আউটলুক বা ভবিষ্যতের জন্য আভাস হচ্ছে ‘স্থিতিশীল’।

ক্রেডিট রেটিং বিনিয়োগকারীদেরকে কোনো দেশের সম্ভাবনা ও ঝুঁকি সম্পর্কে একটি ধারণা দেয়। আর ঋণমান হলো- কোনো দেশের ঋণ পরিশোধের যোগ্যতা। ঋণমানের মূল্যায়ন থেকে কোনো দেশের ঋণ পরিশোধের ঝুঁকি সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়।

মুডি’স বলছে, বাংলাদেশের তারল্য ঝুঁকি রয়েছে। ডলার সংকট এবং বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ হ্রাস অব্যাহত থাকায় দিন দিন বাংলাদেশের অর্থনীতির ওপর চাপ বাড়ছে। এর সঙ্গে চলমান সংকটের মধ্যে প্রাতিষ্ঠানিক বিভিন্ন দুর্বলতাও দেখা যাচ্ছে। কিছুটা উন্নতি হলেও ডলারের সংকট রয়ে গেছে। এ কারণে বিদেশের সঙ্গে লেনদেনে বাংলাদেশ চাপে পড়েছে। এর ফলে আমদানিতে প্রতিবন্ধকতা তৈরি হয়েছে এবং জ্বালানি সংকট তৈরি হয়েছে।

পর্যালোচনায় আরও বলা হয়, বৈদেশিক মুদ্রার বিভিন্ন রকম দর এবং সুদের হারের ওপর সীমা আরোপ নানা জটিলতা তৈরি করছে। এছাড়া বাংলাদেশের অর্থনীতির যে আকার, তার সাপেক্ষে দেশটির কর আদায়ের হার বেশ নিম্ন এবং মুদ্রা টাকার ঘন ঘন অবমূল্যায়ন ঋণ পরিশোধের সক্ষমতাকে আরও চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলছে। যার ফলে আগামী দুই থেকে তিন বছর বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৩০ বিলিয়ন ডলারের নিচে থাকবে।

তবে মুডিস আশা করছে, বৈদেশিক ঋণ বাংলাদেশের অর্থনীতির ওপর চলমান চাপ কমাতে সহায়তা করবে। উন্নয়ন সহযোগীদের সহজ শর্তের এবং কম সুদের ঋণ এক্ষেত্রে মূল ভূমিকা পালন করবে। এ কারণে ভবিষ্যৎ ‘ স্থিতিশীল’ থাকবে বলে তারা ধারণা করছে। তারা আরও আশা করে, তৈরি পোশাক রপ্তানি নির্ভর অর্থনৈতিক কার্য্রক্রম চলমান থাকবে। সংস্কার কার্যক্রমের ফলে রাজস্ব সংগ্রহের উন্নতি হবে।

তবে চাপ কমলেও মহামারির পূর্বের পরিস্থিতির তুলনায় বাংলাদেশের অর্থনীতি সামনের দিনগুলোতে দুর্বল থাকবে এবং উঁচু মাত্রার ঋণের কারণে রাজস্বেও ঘাটতি থাকবে বলে উল্লেখ করেছে মুডি’স। বিশেষ করে মুডিস মনে করছে, যেসব রাজস্ব সংস্কার কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে, সেগুলোর বাস্তবায়ন হয়ে সুফল পেতে আরও অনেক বছর লেগে যাবে।

ঢাকাটাইমস/৩০মে/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

অর্থনীতি এর সর্বশেষ

সোনালী ব্যাংকের আইটি অডিট সম্পাদনে কেপিএমজি’র সঙ্গে চুক্তি

হামদর্দের নতুন হারবাল ওষুধ অর্থোফিটের লঞ্চিং অনুষ্ঠিত

ইসলামী ব্যাংকের ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রাম উদ্বোধন

ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের অর্ধ-বার্ষিক ব্যবসায় সম্মেলন অনুষ্ঠিত

মার্কেন্টাইল ব্যাংকের উত্তরাঞ্চলের ‘হাফ-ইয়ারলী পারফর্মেন্স রিভিউ মিটিং অনুষ্ঠিত

বেসিস-এর ফিনটেক স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান হলেন নগদের ইডি এলিট

ইসলামী ব্যাংকের সঙ্গে নগদ লিমিটেডের রেমিট্যান্স সেবা সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর

সাভারে নিজস্ব ভবনে বিএইচবিএফস'র কার্যক্রম উদ্বোধন

বেঙ্গল কমার্শিয়াল ব্যাংকের অর্ধবার্ষিক ব্যবসায়িক সভা অনুষ্ঠিত

সোনালী ব্যাংকে সেবা প্রদান প্রতিশ্রুতি বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :