খানসামায় ইউএনওর হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে বন্ধ

খানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১৯:৩৮

দিনাজপুরের খানসামায় বাল্যবিবাহ বন্ধ করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. তাজ উদ্দিন। বিয়ে উপলক্ষে কনের বাড়িতে চলছিল জাঁকজমক অনুষ্ঠান, আয়োজনে ছিলনা কোন ঘাটতি। বিয়ের অনুষ্ঠান প্রায় শেষ পর্যায়ে, কনেকেও সাজানোর কাজ শেষ। এমন সময় বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তাজ উদ্দিন।

ইউএনওর উপস্থিতি টের পেয়ে বিয়ে বাড়ি থেকে বর ও কনেসহ সবাই পালিয়ে যান। কনে খামারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে সদ্য এসএসসি পাশ করা নাজমিন আক্তার। তার বয়স ১৭ বছর।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, নাজমিনের সঙ্গে একই উপজেলার ভাবকী ইউনিয়নের কুমড়িয়া গ্রামের আব্দুর সামাদের ছেলে সহিদুল ইসলামের বিয়ে ঠিক হয়। বিয়ে উপলক্ষে উভয়ের পরিবার তাদের স্বজনদের আমন্ত্রণ জানায়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ইউএনও নিজেই কনের বাড়িতে হাজির হন। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে বর ও কনেসহ সবাই দৌড়ে পালিয়ে যান। পরে উভয় পক্ষকে ডেকে নিয়ে এসে বিয়ে না দেওয়ার শর্তে মুচলেকা ও বরের বাবাকে তিন হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তাজ উদ্দিন বলেন, বাল্যবিবাহ সম্পাদন করা বা সম্পাদনে সহযোগিতা করা অপরাধ। তাই বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা হয়। সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক চৌধুরী ও ইউপি সদস্য বাবলুর রহমানকে সঙ্গে নিয়ে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ অনুযায়ী জড়িত ব্যক্তিদের কাছ থেকে মুচলেকা আদায় এবং বাল্যবিবাহ সম্পাদনে সহযোগিতার জন্য অর্থদণ্ড করা হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/০৮ সেপ্টেম্বর/ইএইচ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

সারাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সারাদেশ এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :