সাগরে সুস্পষ্ট লঘুচাপটি আরও এগিয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ৩০ নভেম্বর ২০২৩, ১৬:৫৫ | প্রকাশিত : ৩০ নভেম্বর ২০২৩, ১৬:৩২

বঙ্গোপসাগরের কোলে আবারও আছড়ে পড়তে পারে ঘূর্ণিঝড়। বুধবারের সুস্পষ্ট লঘুচাপটি বৃহস্পতিবার সামান্য পশ্চিম-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে বর্তমানে দক্ষিণপূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আরো পশ্চিম-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর ও ঘনীভূত হতে পারে। সুস্পষ্ট লঘুচাপটি আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নিম্নচাপে পরিণত হওয়ারও আশঙ্কা রয়েছে। তবে বাংলাদেশে আঘাত হানার শতভাগ আশঙ্কা নেই বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়াবিদ মো. তরিফুল নেওয়াজ কবির ঢাকা টাইমসকে বলেন, সুস্পষ্ট লঘুচাপটি আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে নিম্নচাপে পরিণত হওয়ার আশঙ্কা আছে। তবে সুস্পষ্ট লঘুচাপটি কিছুটা সময় নিচ্ছে। নিম্নচাপ না হওয়া পর্যন্ত এখনও এর কেন্দ্রের অবস্থান নির্ণয় করা কঠিন। তাই যখন নিম্নচাপে পরিণত হবে তখন এর গতি প্রকৃতি ও শক্তি সম্পর্কে সঠিক ধারণা পাওয়া যাবে। দক্ষিণপূর্ব বঙ্গোপসাগর অর্থাৎ শ্রীলঙ্কারও পূর্ব দিকে অবস্থান করছে এখন। এটি এখনও বাংলাদেশের দিকে অগ্রসর হওয়ার শতভাগ আশঙ্কা নেই।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দক্ষিণপূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন দক্ষিণ আন্দামান সাগরে অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি সামান্য পশ্চিম-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে বর্তমানে দক্ষিণপূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আরো পশ্চিম-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর ও ঘনীভূত হতে পারে।

আবহাওয়ার সর্বশেষ পরিস্থিতিতে জানানো হয়, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে আগামী দুইদিন অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। দেশের উত্তরাঞ্চল ও নদী অববাহিকার কোথাও কোথাও শেষ রাত থেকে সকাল পর্যন্ত হালকা কুয়াশা পড়তে পারে। রাত এবং দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার। তবে শনিবার রাত এবং দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে।

এছাড়া বর্ধিত পাঁচ দিনের আবহাওয়ার অবস্থায় তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেতে পারে বলা হয়েছে।

লঘুচাপটি নিম্নচাপে রূপান্তর হয়ে সাইক্লোন বা ঘূর্ণিঝড় হলে এর নাম মিচাহং হলেও মিয়ানমার এর নাম দিয়েছে মিগজাউম’।

চলতি বছর দেশে মোখা,হামুন ও মিধিলি এই তিনটি ঘূর্ণিঝড় আঘাত হেনেছে। নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে একটি লঘুচাপ ঘনীভ’ত হয়ে ঘূণিঝড় মিধিলিতে রূপান্তর নিয়েছিলো। সেই মিধিলির রেশ কাটতে না কাটতেই একই মাসে আরও একটি ঘূর্ণিঝড়ের সম্ভাবনা রয়েছে। কারণ অক্টোবর ও নভেম্বর ‘ঘূর্ণিঝড়প্রবণ’ মাস হিসেবে পরিচিত।

আবহাওয়াবিদ এ কে এম নাজমুল হক ঢাকা টাইমসকে বলেন, অক্টোবর ও নভেম্বর হলো সাইক্লোন পিরিয়ড (ঘূর্ণিঝড়প্রবণ মৌসুম)। তাই সাইক্লোন হতেও পারে।

(ঢাকাটাইমস/৩০নভেম্বর/টিএ/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :