গরমে শরীরের আর্দ্রতা বজায় রাখে লেবুর শরবত

ফিচার ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:১৬

তীব্র তাপদাহ চলছে প্রকৃতিতে। বৈশাখের ছাতি ফাটা রোদে প্রাণ ওষ্ঠাগত প্রায়। তারপরও জীবিকা ও কাজের প্রয়োজনে বাইরে বের হতেই হয়। গরমের প্রকোপ থেকে স্বস্তি পেতে অনেকেই এ সময়ে নানা ধরনের কোমল পানীয়, জুস, বিভিন্ন ধরনের ফলের রস, শরবত পান করে থাকেন। কিন্তু এখন রাস্তাঘাট, ফাস্টফুড কিংবা স্ন্যাকসের দোকানে ঠান্ডা পানীয় ও শরবতের নামে আমরা যা গলাধঃকরণ করছি সেসবের বেশিরভাগই প্রিজারভেটিভ এবং কার্বন ডাইঅক্সাইডযুক্ত হওয়ায় শরীরের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। এই গরমে শরীর ও মন সতেজ রাখতে এবং সুস্থতার জন্য তাই দরকার প্রাকৃতিক কিছুর ওপর নির্ভরতা। লেবুর শরবত হতে পারে এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে কার্যকরী পানীয়।

লেবু অত্যধিক পুষ্টিগুণসমৃদ্ধ একটি ফল। এক গ্লাস লেবুর শরবত গরমে শরীরের পানি স্বল্পতা দূর করে আমাদের এনে দেবে প্রশান্তি। এতে দেহের জন্য ক্ষতিকর কোনো উপাদান নেই। উল্টো মানুষকে সুস্থ রাখাসহ বিভিন্ন রোগ থেকে প্রতিরোধে লেবুর শরবতের রয়েছে অসাধারণ ক্ষমতা।

সাধারণত প্রতি ১০০ গ্রাম লেবুর রসে থাকে- ১২ কিলোক্যালরি, পানি ৯৬ শতাংশ, ফাইবার ১.৮ গ্রাম, সুগার ৩ গ্রাম, ভিটামিন সি ৪০ মিলিগ্রাম, ভিটামিন বি ১০.০৬ মিলিগ্রাম, ভিটামিন বি ৬০.০৪ মিলিগ্রাম ও ভিটামিন বি-ই ০.৪ মিলিগ্রাম। লেবুর রয়েছে নানা জাত ও নাম। সব লেবুর উপকারিতা একই রকম না হলেও মানব শরীরের জন্য সব লেবুই উপকারী। বাংলাদেশে লেবুর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, কাগজি, এলাচি, গোড়া, জারা, ঝোটা, চায়না, বীজশূন্য শরবতী ও চট্টগ্রামী লেবু।

লেবু শরবত তৈরি তেমন কষ্টসাধ্য নয় বিধায় আপনি চাইলেই স্বল্প সময়ে এটা নিজেই বানিয়ে পান করতে পারেন। এক গ্লাস পানিতে মাত্র দুই থেকে তিন টুকরো লেবুর রস দিয়ে তৈরি করতে পারেন শরবত। আপনি যদি মিষ্টি পছন্দ করেন তবে পছন্দমতো চিনি মিশিয়ে নিতে পারেন। লেবুর শরবতের রয়েছে বিশেষ কিছু পুষ্টিগুণ। যা শরীরকে সতেজ রাখার পাশাপাশি ভিটামিনের ঘাটতিও পূরণ করে। নিশ্চিত করে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। জেনে নিন লেবুর শরবতের স্বাস্থ্য উপকারিতা-

আর্দ্রতা বজায় রাখে

গরমে প্রশান্তি লাভেরও অন্যতম উপায় লেবুর শরবত পান করা। লেবুর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন সি এবং অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট। যা রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা উন্নত করে। পুষ্টিবিদেরা বলছেন, শরীরের পিএইচের সমতা রক্ষা করতে পাতিলেবুর রস দেওয়া শরবতের জুড়ি মেলা ভার। লেবুর শরবত শরীরে খনিজের অভাব পূরণ করতে না পারলেও অক্সিডেটিভ স্ট্রেস নিয়ন্ত্রণে রাখে। আর্দ্রতা বজায় রাখতেও সাহায্য করে। তৃষ্ণা মেটাতে লেবুর শরবতের তুলনা নেই।

বিষাক্ত পদার্থ নিষ্কাশন

পানির মাধ্যমে শরীরের ক্ষতিকর পদার্থ বের হয়ে যায়। লেবু হচ্ছে প্রাকৃতিক মূত্রবর্ধক। তাছাড়া লেবুর সিট্রিক এসিড পাকস্থলি পরিষ্কার রেখে ক্ষতিকর বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে সাহায্য করে।

রোগ প্রতিরোধ করে

লেবু ‘ভিটামিন সি’ এর ভালো উৎস। ভিটামিন সি অ্যান্টিআক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। এ ছাড়া নানাবিধ পুষ্টি উপাদানের ঘাটতি মোকাবেলা করে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে ভালো রাখে। সিট্রাস গোত্রের ফল যেমন লেবু, বাতাবি লেবু বা কমলায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি এবং অসকর্বিক অ্যাসিড। ভিটামিন সি ঠাণ্ডাজনিত রোগ থেকে বাঁচাতে সাহায্য করে এবং অসকর্বিক অ্যাসিড শরীরে আয়রন গ্রহণে সহায়তা করে। ফলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

শরীরের ওজন কমায়

ওজন কমাতে প্রায় প্রত্যেক পুষ্টিবিদ সকালে খালি পেটে এক গ্লাস লেবু পানি খাওয়ার পরামর্শ দেন। এটা শরীরের হজমশক্তি বাড়ায়। এছাড়া শরীর থেকে সব ধরনের টক্সিন বের করতে সাহায্য করে, কোষ্টকাঠিন্য কমায়।

হজমে সাহায্য করে

দিনের শুরুতে পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে খেলে হজম প্রক্রিয়ায় সহায়তা করে। অন্যদিকে লেবু পাকস্থলি পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে আর বর্জ্য নিষ্কাশনে সহায়তা করে।

কিডনি ভালো রাখে

ভিটামিন সি সমৃদ্ধ লেবু কিডনিতে পাথর জমা হতে বাঁধা দেয়। গবেষণায় দেখা গিয়েছে, নিয়মিত লেবু পানি পান করলে কিডনিতে পাথর জমার ঝুঁকি অনেক কমে যায়।

লিভার সুস্থ থাকে

নিয়মিত লেবু পানি পান করলে লিভার সুস্থ থাকে। এতে চর্বি জমতে বাঁধা দেয়। এছাড়া লিভারের বিভিন্ন অসুখ বিসুখের ঝুঁকি কমায়।

ক্ষারের সমন্বয়

শরীরে হাইড্রোজেনের পরিমাণের উপর অনেকাংশে সুস্থতা নির্ভর করে। সর্বমোট পিএইচ বা পাওয়ার অফ হাইড্রোজেন স্কেল হল ১ থেকে ১৪। মানবদেহে ৭ মাত্রার পিএইচ থাকা স্বাভাবিক। এর থেকে কম বা বেশি হলে শরীরে রোগের বিস্তার হতে পারে। অ্যাসিডিক বা ক্ষারীয় ফল হলেও লেবু মানবদেহে পিএইচ’য়ের মাত্রা সমন্বয় করতে সাহায্য করে। বিশেষ করে যারা বেশি মাংস, পনির বা অ্যালকোহল গ্রহণ করেন তাদের জন্য লেবু সবচেয়ে বেশি উপকারী।

শক্তি বর্ধক

পানি এবং লেবুর রস শরীরে প্রয়োজনীয় আর্দ্রতা বজায় রাখে এবং রক্তে অক্সিজেন যুক্ত করে। ফলে শরীরে শক্তি সঞ্চার হয়।

ত্বক সুন্দর করে

দীর্ঘক্ষণ পানিশূণ্য থাকলে ত্বক ম্লান দেখায়। সকালে লেবুর শরবত খেলে এর ভিটামিন সি ত্বক সুস্থ রাখে। আর লেবুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখতে সাহায্য করে।

দীর্ঘ পরিশ্রমের পর শরীরে লবণের ভারসাম্য আনতে সাহায্য করে। প্রচণ্ড গরমে লেবুর শরবত পান করুন নিজেকে সতেজ রাখুন এবং আরো বেশি কর্মদ্যোমী হয়ে উঠুন।

(ঢাকাটাইমস/১৬ এপ্রিল/আরজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :