নানা আয়োজনে আমেরিকায় ‘বাংলাদেশ সম্মেলন’ অনুষ্ঠিত

ঢাবি প্রতিনিধি, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১৭:৫৮

নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে ‘বাংলাদেশ সম্মেলন-২০২৪’। আমেরিকান ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ স্টাডিজ (এআইবিএস) কর্তৃক আয়োজিত এবং অস্টিনের টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়ের সাউথ এশিয়া ইনস্টিটিউট (এসএআই) এর সহ-আয়োজনে শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়ে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

দুই দিনব্যাপী একাডেমিক কনফারেন্সে ১৪টি প্যানেল জুড়ে ৫৪টি সমালোচনামূলক গবেষণাপত্র উপস্থাপিত হয়, যা বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কিত বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক এবং অর্থনৈতিক বিষয়গুলি বিশ্লেষণ করে। সম্মেলনে বিশ্বের বিভিন্ন উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৭০ জনেরও বেশি স্কলার অংশগ্রহণ করেন।

এআইবিএস-এর প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ড. আলী রীয়াজ অনুষ্ঠানটির উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী বক্তব্যে ড. রীয়াজ গবেষকদের মধ্যে পাণ্ডিত্য আদান-প্রদান এবং নেটওয়ার্ক বিল্ডিংয়ের গুরুত্বের ওপর জোর দেন। তিনি বলেন, “এই আলোচনাগুলি আমাদের বোঝাপড়াকে আরও গভীর করবে এবং সেই সঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং বাংলাদেশের মধ্যে উল্লেখযোগ্য একাডেমিক ও সাংস্কৃতিক বিনিময় বৃদ্ধি করবে।

এসএআই-এর পরিচালক ড. সৈয়দ আকবর হায়দার বাংলাদেশের ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার সাথে প্রাসঙ্গিক সমসাময়িক সমস্যাগুলিকে মোকাবেলা করে এমন স্কলারমূলক কাজকে সমর্থন করার জন্য ইনস্টিটিউটের প্রতিশ্রুতি তুলে ধরেন।

উদ্বোধনী দিনে ক্যালিফোর্নিয়া ইউনিভার্সিটি; বার্কলে-এর অধ্যাপক ইলোরা শেহাবুদ্দিন এবং বাংলাদেশের জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সৈয়দ ফেরদৌসের মূল বক্তব্যসহ ‘দ্য ফিউচার ডিরেকশনস অফ বাংলাদেশ স্টাডিজশীর্ষক অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়।

নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটির ড. দিনা সিদ্দিকী বাংলাদেশ অধ্যয়নের জন্য একাডেমিক পদ্ধতি বিকাশের উপর আলোকপাত করেন।

দুই দিন ধরে চলা এই সম্মেলনে বাংলাদেশের অতীত, বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ বিষয়ক বিস্তৃত প্যানেল প্রদর্শন করা হয়। ১৯৭১ সালের গণহত্যা এবং রোহিঙ্গা সংকটের মতো উল্লেখযোগ্য ঘটনাসহ ঐতিহাসিক দৃষ্টিভঙ্গি এবং জাতীয়তাবাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য সেশনের সমাহার ছিলো এই সম্মেলনে। এছাড়াও, এতে লিঙ্গ, সামাজিক গতিশীলতা এবং মানবাধিকার বিষয়ক আলোচনা যেমন, লিঙ্গ ট্রলিং এবং মুসলিম উত্তরাধিকার আইন, আইন এবং সামাজিক নিয়মের তুলনামূলক আলোচনা তুলে ধরে। অন্যান্য মূল থিমগুলিতে ডিজিটাল মিডিয়া এবং রাজনৈতিক ব্যস্ততা স্থান পায়। এসব প্ল্যাটফর্ম কীভাবে রাজনৈতিক বক্তব্য এবং অংশগ্রহণকে প্রভাবিত করে তা যাচাই করে।

সম্মেলনে বিচারিক নিরাপত্তা এবং সন্ত্রাসবাদের মামলা পরিচালনা, সমালোচনামূলক বিশ্লেষণ এবং পাণ্ডিত্যপূর্ণ বিতর্কের জন্য একটি পরিবেশ তৈরির অধ্যয়নসহ প্রশাসন এবং আইনী দৃষ্টিভঙ্গি সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলিকে সম্বোধন করা হয়।

নিউইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক নাঈম মোহাইমেন এবং ক্লার্ক ইউনিভার্সিটির মোহাম্মদ সাজ্জাদুর রহমানের যৌথ উপস্থাপনায় ‘১৯৭১ সালের পর বাংলাদেশ’ শীর্ষক একটি আকর্ষণীয় সেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শেষ হয়।

বাংলাদেশের স্টাডিজের অগ্রগতির জন্য নিবেদিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একমাত্র কনসোর্টিয়াম এআইবিএস আয়োজিত এই সম্মেলনটি শুধু স্কলার বক্তৃতাকেই সহজ করেনি বরং বিশ্ব মঞ্চে বাংলাদেশের গতিশীল ভূমিকাকে বোঝার এবং তার সাথে জড়িত থাকার জন্য একাডেমিক সম্প্রদায়ের প্রতিশ্রুতিকেও লালন করেছে।

ঢাকাটাইমস/২০এপ্রিল/এসকে/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

জাতীয় এর সর্বশেষ

আগেও বাংলাদেশে যাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র

ভোটার উপস্থিতি কম: সিইসি বললেন ‘রাজনৈতিক সংকট সমাধান হওয়া উচিত’

উপজেলা নির্বাচন: বিচ্ছিন্ন ঘটনায় শেষ হলো ভোটগ্রহণ, চলছে গণনা

নিষেধাজ্ঞার পর যা বললেন সাবেক সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদ

সাবেক সেনাপ্রধানের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা, যা বললেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বাংলাদেশে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সংকটজনক: আর্টিকেল নাইনটিন

রাইসির মৃত্যু: বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রীয় শোক পালন করবে বাংলাদেশ

নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে জানি না, শুধু শুনেছি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

উপজেলা নির্বাচন: চার ঘণ্টায় ভোট পড়েছে ১৭ শতাংশ

দুই দিনের সফরে ঢাকায় অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী 

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :