কুড়িগ্রামে ৫৩১ মণ্ডপে দুর্গা পূজা

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৩ অক্টোবর ২০১৮, ১৯:০২

কুড়িগ্রামে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গা পূজার প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে। রবিবার রাতের মধ্যেই সকল কাজ শেষ হবে জানিয়েছেন পূজা কমিটির লোকজন।

এ বছর জেলার ৯ উপজেলায় ৫৩১টি মণ্ডপে দুর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এরমধ্যে কুড়িগ্রাম সদর উপজেলায় ৬০টি, কুড়িগ্রাম পৌরসভায় ১৯টি, উলিপুর উপজেলায় ১২১টি, চিলামারী উপজেলায় ৩১টি, রৌমারী উপজেলায় ৮টি, রাজিবপুর উপজেলায় ১টি, নাগেশ্বরী উপজেলায় ৮০টি, ভূরুঙ্গামারী উপজেলায় ১৯টি, রাজারহাট উপজেলায় ১১৯ টি, ফুলবাড়ী উপজেলায় ৭৩টি মণ্ডপে চলছে শেষ মুহূর্তের সাজসজ্জা। মৃৎ শিল্পীরা রাতদিন পরিশ্রম করে রংতুলির আঁচরে রাঙিয়ে তুলছেন দেবী দুর্গাকে। তৈরি হচ্ছে সুদৃশ্য বিশাল বিশাল প্যান্ডেল।

আগামী ১৫ অক্টোবর সোমবার ষষ্ঠি বোধনের মাধ্যমে পাঁচ দিনব্যাপী এ উৎসব শুরু হবে। মণ্ডপগুলোতে আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় ইতি মধ্যেই জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

এছাড়াও কুড়িগ্রামের পুলিশ সুপার মো. মেহেদুল করিম সকল পূজা কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলেছেন। শারদীয় দুর্গা পূজা নির্বিঘ্ন ও উৎসব মুখর পরিবেশে উদযাপনের লক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা বিষয়ক বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন বলে জানান।

এদিকে শারদীয় দুর্গোৎসবকে ঘিরে জেলা শহর ও উপজেলা শহরের বিপণীবিতানগুলো রাতভর ক্রেতা বিক্রেতাদের ভিড়ে জমজমাট। এছাড়াও হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়ী বাড়ী চলছে শারদীয় দুর্গোৎসবের শেষ প্রস্তুতি।

কুড়িগ্রাম দক্ষিণ পাড়া সার্বজনীন মন্দিরের সাজসজ্জায় নিয়োজিত চিত্রশিল্পী স্বপন কুমার দাস জানান, এবার আমরা ভারতীয় একটি মন্দিরের আদলে ৫তলা বিশিষ্ট একটি মন্দির তৈরি করছি। কাজ শেষ পর্যায়ে আশা করছি আগামী কাল রাতেই সকল কাজ সম্পন্ন হবে।

শহরের বারোয়ারী পূজা মণ্ডপ এর সভাপতি বাবু বরুন কুমার সাহা জানান, এবছর বারোয়ারী পূজা কমিটির দুর্গোৎসব আয়োজনের ১৫০ বছর পূর্তি হবে। এজন্য আমাদের আয়োজনের প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে। 

জেলা পূজা উদযাপন পরিষেদের সাধারণ সম্পাদক বাবু রবি বোস জানান, গত বারের চেয়ে জেলায় ৪০টির অধিক মণ্ডপে এবার শারদীয় দুর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আমরা আশা করছি কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই নির্বিঘ্নে এবারের শারদীয় উৎসব সার্বজনীন রুপ পাবে।

জেলা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি বাবু ছানালাল কবসী জানান, ধর্ম যার যার উৎসব সবার আমরা আশা করছি সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির মধ্য দিয়ে এবারের উৎসব সফলভাবে অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে শারদীয় দুর্গোৎসবের শুভেচ্ছা জানান।

কুড়িগ্রাম সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহফুজার রহমান জানান, প্রতিটি মণ্ডপকে ঘিরে ইতিমধ্যেই আমরা বিশেষ নিরাপত্তা গ্রহণ করেছি। এছাড়াও স্ট্রাইকিং ফোর্স ও কন্ট্রোল রুমের মাধ্যমে সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণের ব্যবস্থাও নেয়া হয়েছে।

ঢাকাটাইমস/১৩অক্টোবর/প্রতিনিধি/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :