চকবাজারে আগুন

পুড়ে অঙ্গার মরদেহ শনাক্তেও হিমশিম

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৩:০০ | প্রকাশিত : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:৩৬

পুরান ঢাকার চকবাজারে ওয়াহিদ ম্যানসনসহ বেশ কয়েকটি ভবনে আগুন লাগার ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৭০ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার করা এসব লাশ শনাক্ত করা যাচ্ছে না। পুড়ে অঙ্গার হওয়ায় প্রায় সবগুলো লাশই বিকৃত হয়ে গেছে। চেনার উপায় নেই কোনটি কার লাশ।

বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে চকবাজারের নন্দকুমার দত্ত রোডের শেষ মাথায় মসজিদের পাশে সড়কে গাড়ির সিলিন্ডার বিস্ফোরণের পর সেই আগুনে বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমার বিস্ফোরিত হয়। এতে ৬৪ নম্বর হোল্ডিংয়ের ওয়াহিদ ম্যানসন ছাড়াও আরও চারটি ভবন ও রেস্টুরেন্টে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। আগুনে ওয়াহিদ ম্যানশন সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার পর ক্ষতিগ্রস্ত ভবনগুলো থেকে একে একে বের করে আনা হয় লাশ। ব্যাগে করে পুড়ে যাওয়া লাশগুলো বের করে আনেন দমকল বাহিনীর লোকজন। পরে সেগুলো নেওয়া হয় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে। উদ্ধার করা মরদেহগুলোর মধ্যে রাজমহল হোটেল থেকে সবচেয়ে বেশি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সেখান থেকে ৩৬ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে ঢাকা টাইমসকে জানিয়েছেন মোশাররফ হোসেন মিলন নামে এক প্রত্যক্ষদর্শী। এ পর্যন্ত ৭০ জনের লাশ উদ্ধারের তথ্য জানা গেছে। এখনো ভবনটিতে তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ফায়ার সার্ভিসের পাশাপাশি বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনও অংশ নেয়। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

ঢামেক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, আগুনে পুড়ে যাওয়ায় কারো লাশ শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। জানা যায়নি তাদের নামপরিচয়ও। কোনটি কার লাশ তা শনাক্তে হিমশিম খেতে হচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে।

ঢাকা টাইমস/২১ফেব্রুয়ারি/এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :