লোকসভা নির্বাচনে দেব-মিমি-নুসরাতের জয়

বিনোদন প্রতিবেদক, ঢাকাটাইম
| আপডেট : ২৩ মে ২০১৯, ২৩:০৮ | প্রকাশিত : ২৩ মে ২০১৯, ২৩:০২

ভারতের লোকসভা নির্বাচনে ৩০২টি আসনে জিতে বড় ব্যবধানে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে নরেন্দ্র মোদির দল বিজেপি। এ নির্বাচনে গোটা ভারতবাসীর নজর ছিল পশ্চিমবঙ্গে।

আগের চেয়ে কয়েকটি আসন কমে গেলেও লোকসভা নির্বাচনে মমতা ব্যানার্জির তৃণমূল কংগ্রেস আবারও ক্ষমতা দখলে রাখতে যাচ্ছে।

এবারের এই নির্বাচনে পিছিয়ে নেই মমতার তারকা প্রার্থীরাও। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল তৃণমূল কংগ্রেস থেকে প্রার্থী হয়েছিলেন তারা; প্রতীক ছিল জোড়া ফুল।

তাদের মধ্যে টালিগঞ্জের জনপ্রিয় নায়ক পশ্চিমবঙ্গের ঘাটাল লোকসভা আসনে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী টলিউডের নায়ক দীপক অধিকারী দেব জয়লাভ করেছেন। এই আসনে জয় তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষকে বিপুল ভোটে পরাজিত করেছেন।

সাতদফা ভোটের পর বৃহস্পতিবার (২৩ মে) লোকসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণা করা হয়।

এর আগে ২০১৪ সালে ২ লাখ ৬০ হাজার ৮৯১ ভোটে ঘাটাল আসন থেকে জয়লাভ করেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী দেব। যদিও ২০০৯ পর্যন্ত এই আসন ছিলো বামদের দখলে।

নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের মুসলিম অধ্যুষিত বসিরহাট থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে প্রার্থী হয়েছেন চলচ্চিত্র অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। নির্বাচন কমিশনের দেয়া তথ্যমতে, নুসরাত বিজেপি প্রার্থী স্বায়ন্ত বসুর থেকে দুই লাখ ৮২ হাজার ৯৯ ভোটে এগিয়ে রয়েছেন। ফলে নির্বাচনে তার বিজয় নিশ্চিত ধরে নেয়া যায়। বিজেপির স্বায়ন্ত বসু ও কংগ্রেসের কাজী আবদুর রহিমের বিরুদ্ধে লড়েছেন। গত কয়েক বছর ধরেই এ আসনটি তৃণমূল কংগ্রেসের শক্তঘাঁটি হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে।

অন্যদিকে বরাবরের মতো আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে থাকা যাদবপুরে এবার ত্রিমুখী লড়াই। তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষে তারকা প্রার্থী মিমি চক্রবর্তী। নির্বাচনী প্রচারেই যিনি বিপুল জনপ্রিয়তা পেয়েছেন।

আনন্দবাজার পত্রিকার খবর অনুযায়ী, ২ লাখ ৮২ হাজার ৩৩৭ ভোটের বড় ব্যবধানে অনুপম হাজরার চেয়ে এগিয়ে রয়েছেন মিমি। ফলে কার্যত যাদবপুরে মিমিই বিজয়ী।

এই অনুপম এক সময় তৃণমূলে ছিলে, কিছুদিন আগেই বহিষ্কৃত হওয়ার পর বিজেপিতে যোগ দেন।

জোড়াফুল প্রতীকে জিততে চলেছেন আরেক অভিনেত্রী শতাব্দী রায়ও। বীরভূম কেন্দ্রে বিজেপির দুধ কুমার মণ্ডলকে পেছনে ফেলে ‘হ্যাটট্রিক’ জয়ের পথে তিনি। এর আগে ২০০৯ সালে ও ২০১৪ সালেও এই আসনে জিতেছিলেন এক সময়ের জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী।

জোড়া ফুল প্রতীকে শতাব্দী, দেব, মিমি ও নুসরাতের মতো সুবিধা করতে পারেননি আরেক তারকা মুনমুন সেন। আসানসোলে প্রার্থী হয়েছিলেন কিংবদন্তি সুচিত্রা সেনের মেয়ে, কিন্তু ওই আসনে তাকে মুখোমুখি হতে হয়েছে আরেক তারকা বাবুল সুপ্রিয়ের।

মুনমুনকে এক লাখের বেশি ভোটে হারিয়ে টানা দ্বিতীয়বার লোকসভায় যাচ্ছেন গায়ক বাবুল সুপ্রিয়।

বাবুলের মতোই পদ্মফুলের প্রার্থী হয়ে হুগলিতে জিততে চলেছেন অভিনেত্রী ও নৃত্যশিল্পী লকেট চট্টোপাধ্যায়।

বলিউডের যারা

পারিবারিক আসন আমেথিতে কংগ্রেস প্রেসিডেন্ট রাহুল গান্ধী এবার যার কাছে হারতে চলেছেন, সেই স্মৃতি ইরানিও একজন জনপ্রিয় অভিনেত্রী।

হিন্দি সিরিয়াল  ‘কিউ কি সাঁস ভি কাভি বহু থি’র তুলসি খ্যাত স্মৃতি বিজেপিতে যোগ দিয়ে ভোট করে মন্ত্রী হয়ে এবার রাহুলকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন। সন্ধ্যা পর্যন্ত যতগুলো কেন্দ্রের ভোট গণনা হয়েছে, তাতে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চললেও এগিয়ে আছেন স্মৃতি।

বিজেপি ছেড়ে কংগ্রেসে যোগ দিয়ে বিহারের পাটনা সাহিব আসনে প্রার্থী হয়েছিলেন বলিউড তারকা শত্রুঘ্ন সিনহা। কিন্তু তাকে হারতে হচ্ছে পুরনো দলের প্রার্থীর কাছে।

উত্তরপ্রদেশের লক্ষ্ণৌ থেকে সমাজবাদী পার্টির টিকেট কেটে সুবিধা করতে পারেননি শত্রুঘ্নর স্ত্রী পুনম সিনহাও।

ঢাকাটাইমস/২৩মে/ ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :