সালমান ও অক্ষয়ের বিবাদ চরমে

বিনোদন ডেস্ক
| আপডেট : ২৪ জুন ২০১৯, ১১:৩০ | প্রকাশিত : ২৪ জুন ২০১৯, ১০:৪৮

২০০৪ সালে ‘মুঝছে সাদি কারোগি’ ছবিতে একসঙ্গে কাজ করেছিলেন বলিউডের অন্যতম দুই সুপারস্টার সালমান খান ও অক্ষয় কুমার। ওই ছবিতে তাদের বন্ধুর চরিত্রে দেখা গিয়েছিল। এরপর বাস্তবেও দুই তারকার মধ্যে বেশ বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। কিন্তু ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি এমন একটা জায়গা, যেখানে সম্পর্ক জুড়তে বা ভাঙতে সময় লাগে না। ক্ষণে ক্ষণে বদলায় সমীকরণ। তাইতো সময়ের ব্যবধানে সালমান ও অক্ষয়ের মধ্যেও এখন তিক্ততার সম্পর্ক।

২০২০ সালের ঈদ রিলিজকে কেন্দ্র করে দুজনের এই লড়াইয়ের সূত্রপাত। ঘোষণা করা হয়, আগামী রমজানের ঈদে পরিচালক রোহিত শেট্টি ‘সূর্যবংশী’ নিয়ে আসবেন। এই ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রে রয়েছেন অক্ষয় কুমার ও ক্যাটরিনা কাইফ। কিন্তু এরপর সালমান খান ঘোষণা করেন, সঞ্জয় লীলা বানসালি পরিচালিত তার ও আলিয়া ভাটের ‘ইনশাল্লাহ’ও ওই ঈদে মুক্তি পাবে। দুই সুপারস্টারের সম্মুখসমরে যে কেউই বিশেষ লাভবান হবেন না, এটা সবাই জানেন। তাই সালমানের অনুরোধে রোহিত তার ‘সূর্যবংশী’র মুক্তি এগিয়ে এনেছেন।

গোলমাল বেধেছে এখানেই। অক্ষয়ের অভিযোগ, ছবি মুক্তির দিন বদল নিয়ে তার কোনো অনুমতিই নেয়া হয়নি। রোহিত শেট্টি ও সালমান ফটোশুট করে নাকি সোশ্যাল মিডিয়ায় খবরটি জানান। সেই শুটে উপস্থিত ছিলেন না অক্ষয়। রোহিতও নাকি নিজের ছবির নায়ক অক্ষয়কে খানিক উপেক্ষাই করেছেন। অক্ষয়কে বাদ দিয়ে রোহিত ও সালমানের এই যোগসাজশ নিয়ে অনেক কথাই ঘুরছিল ইন্ডাস্ট্রিতে। অক্ষয়ের মৌনতাই বলে দিচ্ছিল, কোনো গোলমাল রয়েছে।

ছবির মুক্তি পেছানোর তারিখ ঘোষণার পর অক্ষয় একটি টুইট করেন। সেখানে লিখেন, ‘কিছু দিন ধরে দেখছি, আমার কাছের লোকেরাই নানা নেগেটিভিটি ছড়ানোর চেষ্টা করছেন। আমার অনুরোধ, এগুলো করবেন না। আমি ‘সূর্যবংশী’ নিয়ে আশাবাদী। চাই ছবিটি ভালো হোক এবং ভালো ভাবে রিলিজ করুক।’ অভিনেতার এই আপাত নিরীহ টুইট সে সময় অনেক কথাই বলে দেয়।

তবে এই সংঘাত আকস্মিক নয়। অনেক দিন ধরেই নাকি অক্ষয় ও সালমান কোনো অনুষ্ঠানে মুখোমুখি হচ্ছেন না। তাদের এমন তিক্ততার সূত্রপাত বছর দুয়েক আগে। সালমান নিজের প্রযোজনায় অক্ষয়কে নিয়ে একটি প্রজেক্ট ঘোষণা করেন। সহ-প্রযোজক হিসেবে ছিলেন করণ জোহার। ‘কেশরী’ ছবিটি করার কথা ছিল তখন। যেটি চলতি বছর মুক্তি পায়। কিন্তু হঠাৎই এই প্রজেক্ট থেকে সরে দাঁড়ান সালমান। সে সময় ছবির নায়ক অক্ষয় বা প্রযোজক করণ জোহার সালমানের সরে যাওয়া নিয়ে কোনো উচ্চবাচ্য করেননি।

অনেকের দাবি, সালমানের এই সরে যাওয়ার পেছনে অভিনেত্রী কাজলের স্বামী নায়ক অজয় দেবগণের ইন্ধন ছিল। অজয় ও সালমান বরাবরই ভালো বন্ধু। অন্যদিকে অজয়ের সঙ্গে করণ জোহারের সম্পর্ক বেশ খারাপ বলেই শোনা যায়। এই ঘটনায় করণ জোহারের সঙ্গেও সালমানের সম্পর্ক খারাপ হয়। একটি পার্টিতে সালমান ও করণ বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন বলেও শোনা যায়।

এদিকে সালমানের সঙ্গে ভাঙনে অক্ষয় আর করণ জোহারের সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ হয়। করণ জোহারের প্রযোজনায় ‘কেশরী’ মুক্তিও পায়। সেই করণ জোহারের ক্যাম্পে অক্ষয়ের পরপর ছবি ‘গুড নিউজ’, ও ‘সূর্যবংশী’। এর মাঝে সালমানের সাবেক ম্যানেজার রেশমা শেট্টি কাজ করা শুরু করেন অক্ষয়ের সঙ্গে। রেশমার সঙ্গে সালমানের সম্পর্ক শেষ হয় তিক্ততায়।

দুই ভাই সোহেল খান ও আরবাজ খানের প্রযোজনায় কাজ করতেন সালমান। রেশমা নাকি সেসব জায়গায় জটিলতা সৃষ্টি করেন। তা জানতে পেরে রেশমাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করেন সালমান। এরপর অক্ষয়ের সঙ্গে কাজ শুরুর পরেই রেশমা নাকি সালমানের ব্র্যান্ডগুলো ভাঙানোর চেষ্টা করেন। যদিও বাস্তবে তা পারেননি।

এই রেশমা নাকি ‘বিগ বস’-এর সঞ্চালক হিসেবে সালমানকে বাদ দিয়ে খুব কম টাকায় অক্ষয়কে ঢোকানোর চেষ্টাও করেছিলেন। কিন্তু ‘বিগ বস’ কর্তৃপক্ষ তাতে আমল দেয়নি। উল্টো তারা সালমানের পারিশ্রমিক আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। এও শোনা যায়, প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার ‘ভারত’ ছবি ছাড়ার পেছনেও রেশমার হাত ছিল। তার চরিত্রটির গুরুত্ব নেই, এটাই প্রিয়াঙ্কাকে বুঝিয়েছিলেন তিনি। কাজেই রেশমার সাবেক এবং বর্তমান দুই বসের লড়াই ভবিষ্যতে কোন পথে যায়, সেটাই দেখার।

ঢাকাটাইমস/২৪ জুন/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :