প্রবৃদ্ধি অর্জনে বাংলাদেশ বিশ্ব মডেল: এডিবি

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক
 | প্রকাশিত : ২৪ জুলাই ২০১৯, ২২:১২

প্রবৃদ্ধি অর্জনের দিক থেকে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে ‘মডেল’ উল্লেখ করে এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (এডিবি) কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন পারকাশ বলেছেন, এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলে দ্রুত প্রবৃদ্ধি অর্জনের দেশ হচ্ছে বাংলাদেশ। বর্তমানে বিশ্ব-অর্থনীতিতে প্রবৃদ্ধি অর্জন অনেক চ্যালেঞ্জিং, তারপরও বিগত অর্থবছরে বাংলাদেশ ৮ শতাংশের ওপরে প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ এখন গোটা বিশ্বে মডেল।

গতকাল বুধবার  রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) দুই দিনব্যাপী ‘গুড প্রজেক্ট ইমপ্লেমেন্টেশন ফোরাম’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মনমোহন পারকাশ একথা বলেন।

মনমোহন বলেন, বাংলাদেশ নানা ক্ষেত্রে সফলতা পাচ্ছে। অর্থনীতির অনেক ক্ষেত্রে চালকের আসনেও রয়েছে বাংলাদেশ। এরমধ্যে তৈরি পোশাক রপ্তানিতে বাংলাদেশ দ্বিতীয়, সবজি রপ্তানিতে তৃতীয়, ধান উৎপাদনে চতুর্থ আর আম উৎপাদনে সপ্তম স্থানে রয়েছে।

গত দশকে বাংলাদেশে দারিদ্র্যে হার অর্ধেক কমেছে উল্লেখ করে এডিবির এই বাংলাদেশ পরিচালক বলেন, জলবায়ু মোকাবিলায় সফলতা দেখিয়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের গড় আয়ু দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে বেশি। বিশেষ করে নারীদের গড় আয়ু অনেক বেশি।

দেশের উন্নয়নচিত্র তুলে ধরে মনমোহন পারকাশ বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশে মাথাপিছু আয় ১ হাজার ৯০৯ ডলার। অথচ ১৯৭২ সালে ছিল মাত্র ৩১৮ ডলার।

দুই দিনের এই ফোরামে ভারত, ভুটান, নেপাল, শ্রীলঙ্কা এবং ইন্দোনেশিয়ার প্রকল্প বাস্তবায়নের অভিজ্ঞতা তুলে ধরা হচ্ছে। এডিবির প্রায় ১০ বিলিয়ন ডলার ঋণে দেশে বিভিন্ন ধরনের ৫৩টি উন্নয়ন প্রকল্প চলমান। এসব উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন ৫৩ জন প্রকল্প পরিচালক (পিডি)। প্রকল্প বাস্তবায়নের গতি অনেকটাই নির্ভর করে তাদের দক্ষতা ও স্বচ্ছতার ওপর। আর এ কাজে যেসব পিডি ভালো দক্ষতা দেখাচ্ছেন, সম্মেলনে তাদের পুরস্কৃত করবে এডিবি।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো.তাজুল ইসলাম বলেন, দেশে এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে বর্র্জ্য ব্যবস্থাপনা। দেশের নদী ও খালগুলো দুষণে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এই চ্যালেঞ্জ শুধু বাংলাদেশের জন্য নয়, সারা বিশে^র জন্যই এটি অন্যতম চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা দিয়েছে। এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সরকার কাজ করে যচ্ছে। এতে সহযোগিতা দিচ্ছে এডিবি।

মন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে অন্যান্য দেশের তুলনা করলে হবে না। এটি বিশে^র অন্যতম একটি ব-দ্বীপ। ঘনবসতিপূর্ণ একটি দেশ। এত মানুষের জন্য খাদ্য সরবরাহ করাটাই আগে প্রধান চ্যালেঞ্জ ছিল। কিন্তু এখন সে অবস্থা নেই। খাদ্যে বাংলাদেশ স্বয়ংসম্পন্ন। তিনি বলেন, প্রকল্পের ডিজাইন তৈরিই হচ্ছে অন্যতম বিষয়।  কেননা ডিজাইন ভাল হলে বাস্তবায়ন এবং পরবর্তীতে সেই প্রকল্প থেকে ভাল ফলও পাওয়া যায়। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোড ম্যাপ বাস্তবায়ন করছে। এই সরকার বিশ^াস করে প্রতিবেশি দেশগুলোর সঙ্গে সুসর্ম্প বজায় রাখার মাধ্যমে নিজেদের উন্নয়নের পাশাপাশি আঞ্চলিক উন্নয়ন সম্ভব। হিন্দু,বৈদ্ধ, খিন্টান এখানে বড় কথা নয়, আমরা সবাই বাজ্ঞালী। তার চেয়েও বড় কথা আমরা সবাই মানুষ। পারস্পারিক সহযোগীতার মাধ্যমে আমরা ভারত থেকে বিদ্যুৎ আমদানী করছি।

এডিবির কান্ট্রি ডাইরেক্টর মনমোহন প্রকাশের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব মনোয়ার আহমেদ।

ইআরডির সচিব মনোয়ার আহমেদ বলেন, এডিবি বিভিন্ন খাতে ২৫ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছে। দেশের দারিদ্র নিরসনে ভুমিকা রেখেছে এডিবি। এই ফোরাম অভিজ্ঞতা ও জ্ঞান অর্জনের অন্যতম মাধ্যম।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, দু দিন ব্যাপী এই সম্মেলনে ভারত, ভুটান , ইন্দোনেশিয়া, নেপাল এবং  শ্রীলংকার প্রকল্প বাস্তবায়নের অভিজ্ঞতা  তুলে ধরা হবে।

(ঢাকাটাইমস/ ২৪জুলাই/জেআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :