সৃজিত-মিথিলার আগের যত প্রেম

বিনোদন প্রতিবেদক
 | প্রকাশিত : ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৫:৩২

গত শুক্রবার দ্ইু পরিবারের উপস্থিতিতে রেজিস্ট্রি বিয়ে করেছেন কলকাতার পরিচালক সৃজিত মুখার্জি ও বাংলাদেশি অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। একে-অপরকে ভালোবেসে ঘর বেঁধেছেন তারা। তাদের এই বিয়ে যেমন প্রথম নয়, তেমনি এর আগে একাধিকবার প্রেম এসেছে তাদের জীবনে। প্রেম যেমন এসেছে তেমনি চলেও গেছে। প্রেমের ক্ষেত্রে সৃজিত-মিথিলা সমানে সমান।

বাংলাদেশি অভিনেত্রী ও সমাজকর্মী মিথিলার জীবনের প্রথম প্রেম হিসেবে সামনে আসে তার প্রথম স্বামী গায়ক ও অভিনেতা তাহসান রহমান খানের নাম। সময়টা ২০০৪ সাল। মিথিলা তখন ২৪ বছরের তরুণী। ব্যক্তিগত একটা কাজে এক বন্ধুর সঙ্গে তাহসানের বাড়ি গিয়েছিলেন মিথিলা। বিশ্ববিদ্যালয় জীবন থেকে সংগীতশিল্পী হয়ে ওঠা তাহসানের কণ্ঠে গানও শোনেন সেদিন।

সেই থেকে পরিচয় তাহসান-মিথিলার। এরপর চিঠির মাধ্যমে প্রেম। দুই বছরের বেশি সময় ধরে চলা প্রেম পরিণয়ে রূপ নেয় ২০০৬ সালের ৩ আগস্ট। বিয়ে করেন তাহসান-মিথিলা। ২০১৩ সালের ৩০ এপ্রিল তাদের সংসার আলো করে আসে কন্যাসন্তান আইরা। সুখের এ সংসারের ইতি ঘটে ২০১৭ সালে। একদিন হঠাৎই সোশ্যাল মিডিয়ায় বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন এই তারকা দম্পতি।

এরপর কয়েকটি নাটকে একসঙ্গে কাজ করা জন কবিরের সঙ্গে প্রেমের গুঞ্জন শোনা যায় মিথিলার। এও শোনা যায়, জনের সঙ্গে সম্পর্কের জেরেই ঘর ভেঙেছিল তাহসান-মিথিলার। পরে তার কোনো সত্যতা মেলেনি।

দীর্ঘদিন পর আবার প্রেমবিষয়ক আলোচনায় আসেন মিথিলা। এবার তার সঙ্গী নির্মাতা ইফতেখার আহমেদ ফাহমি। তার সঙ্গে তোলা মিথিলার দুটি ঘনিষ্ঠ ছবি গত মাসে ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এ নিয়ে পরে কোনো রাখঢাক রাখেননি মিথিলা। মাথা উঁচু করে সত্য বলে যান তিনি।

অনেকে আশঙ্কা করেছিলেন ফাহমীর সঙ্গে এই ঘনিষ্ঠ ছবির কারণে কলকাতার পরিচালক সৃজিত মুখার্জির সঙ্গে না তার সম্পর্ক চুকে যায়। না, সেটি হয়নি। অভিনেত্রীর আপাত শেষ প্রেমটি পরিণতি পায় গত শুক্রবার।

মিথিলার নয়া স্বামী সৃজিতের জীবনেও একাধিক বার প্রেম এসেছে। এই নির্মাতার প্রথম প্রেম হিসেবে সামনে আসে কলকাতার হট সেনসেশন অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখার্জির নাম। ২০১৩ ও ২০১৪ সালে ‘মিশর রহস্য’ ও ‘জাতিস্মর’ নামে দুটি সিনেমা নির্মাণ করেন সৃজিত। দুটিতেই নায়িকা ছিলেন স্বস্তিকা। গুঞ্জন রয়েছে, একসঙ্গে কাজ করতে গিয়েই ডিভোর্সি ও এক মেয়ের মা স্বস্তিকার প্রেমে পড়েন সৃজিত। যদিও তাদের সে সম্পর্ক দেড় বছরের মাথায় ভেঙে যায়।

এরপর ২০১৫ সালে ‘রাজকাহিনী’ নির্মাণ করেন সৃজিত। সেখানে প্রথমবারের মতো এই নির্মাতার সঙ্গে কাজ করেন বাংলাদেশি সুপারস্টার জয়া আহসান। ওই বছরের শেষ দিকে হঠাৎ গুঞ্জন ওঠে, পরিচালক সৃজিতের সঙ্গে প্রেম করছেন জয়া। এমন গুঞ্জন নাকচ করে দেন জয়া-সৃজিত দুজনই। এক সাক্ষাৎকারে জয়া দাবি করেন, সৃজিত তার ঘনিষ্ঠ বন্ধু। তার বেশি কিছু নয়। এর কিছুদিন বাদে ইতি ঘটে জয়-সৃজিতের প্রেমগুঞ্জনের।

গত বছরের শুরুতে আবার গুঞ্জন ওঠে, কলকাতার সংগীতশিল্পী মধুবন্তী বাগচীর সঙ্গে প্রেম করছেন সৃজিত। ভারতের ‘টাইমস অব ইন্ডিয়া’ এ নিয়ে খবরও প্রকাশ করে। পরবর্তীতে বিষয়টি অস্বীকার করে গায়িকা মধুবন্তী বাগচী বলেন, ‘আমি আমার জীবন এবং কাজকে খুব গুরুত দেই। অযথা আমাকে নিয়ে গুঞ্জন রটাবেন না।’

তাহলে সৃজিতের পরের প্রেমটি কে? উত্তর সবারই জানা, রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। এই তারকাকে শুক্রবার নিজের ঘরণী করে নিয়েছেন পরিচালক। হয়েছেন ‘মি. অ্যান্ড মিসেস. মুখার্জি’। তাদের আট মাসের চেনা পরিচয়। তবে দুই তারকার প্রেমযাত্রার কি এখানেই দাঁড়ি, নাকি চলতে থাকবে, সেটা ভবিষ্যৎই বলে দেবে।

ঢাকাটাইমস/০৮ডিসেম্বর/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :