ফুটবলে যোগ্য ব্যক্তিকে যোগ্যস্থানে বসাতে হবে

মামুন জোয়ারদার
 | প্রকাশিত : ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:১৭

বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচটা টিভিতে দেখিছিলাম। সাফ গেমস ফুটবলের বাংলাদেশের ম্যাচগুলোও দেখেছি নেপালি টিভিতে। কানাডায় স্থায়ী হয়েছি দীর্ঘ দিন। অনেক ব্যস্ত সময় পার করতে হয়। তারপরেও বাংলাদেশের ম্যাচ হলেই টিভির সামনে বসে যাই। কিন্তু বারবারই হাতাশ হতে হয়। আমার মনে হয়, বাংলাদেশ ফুটবল বিশেষ ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। সাফ গেমস ফুটবলে পাঁচ দলের মধ্যে চার নম্বরে! বাংলাদেশ ফুটবলের কফিনে যেন শেষ পেরেকটা ঠুঁকে গেছে এবার!

ভারতের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচটা দেখে আশান্বিত হয়েছিলাম। মনে করেছিলাম যাক, এবার বুঝি ঘুরে দাঁড়াবে ফুটবল। কিন্তু একি দেখলাম? ঘুরে দাঁড়ানো দূরের কথা, সাফ গেমস ফুটবলে সব শেষ হয়ে গেল! ভারত ছিল না। বাংলাদেশের চাম্পিয়ন হওয়া উচিৎ ছিল। কিন্তু চ্যাপম্পিয়ন পড়ে মরুক, পাঁচ দলের মধ্যে চার নম্বরে। এই ফল একেবারেই গ্রহণযোগ্য নয়।

এই ব্যর্থতার দায় কার? খেলোয়াড়দের, টিম ম্যানেজমেন্ট, কোচ নাকি বাফুফের? কার কাছে কে জবাবদিহিতা করেন আমার জানা নেই। দেশে ফিরে টিম ম্যানেজার কি রিপোর্ট দিয়েছেন আমি জানি না। বেঁচেরা কোচের বিপক্ষে আমার কোনো অভিযোগ নেই। কিন্তু টিম ম্যানেজমেন্ট নিয়ে আমার হাজারটা প্রশ্ন আছে। আমার মনে হয়, দলগঠনে কোচের উপর ছড়ি ঘুরিয়েছে টিম ম্যানেজমেন্ট। যে কারণে সেরা দল নিয়ে মাঠে নামতে পারেনি বাংলাদেশ। আর এর বড় মূল্য দিতে হয়েছে।

অথচ ভারতের মাটিতে ভালো করার পর সাফ গেমস বাংলাদেশ ফুটবলের জন্য টার্নিং পয়েন্ট হতে পারত। কিন্তু হলো তার বিপরীত। ফুটবল যে আসলে সঠিক পথে নেই সেটা আবারও প্রমাণ হলো। ফুটবল নিয়ে আসলে এখন সিরিয়াস সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় এসেছে। সব পক্ষকে এক সঙ্গে বসতে হবে। কোথায় কোন সমস্যা তা বের করে সে অনুযায়ী দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হতে। নইলে ফুটবলে আরও ভয়াবহ দু:সংবাদ অপেক্ষা করছে।

সালাউদ্দিনের মতো গ্রেট ফুটবলার বাফুফের প্রেসিডেন্ট দীর্ঘ দিন ধরে। তারপরেও বাংলাদেশ ফুটবল কেন এগুচ্ছে না সেটা আমার কাছে বিস্ময়। তাঁর ম্যানেজমেন্ট নিয়ে অনেকেই অনেক কথা বলেন। কিন্তু আমি সেদিকে যেতে চাই না। তার প্রতি আমার যথেষ্ঠ শ্রদ্ধাবোধ আছে। সেই শ্রদ্ধাবোধ বজায় রেখেই বলছি, জাতীয় দল ম্যানেজমেন্ট নিয়ে তাকে আরও সিরিয়াস চিন্তা করতে হবে। একই ব্যক্তিকে বারবার ম্যানেজার করা নিয়ে অনেকেই অনেক কথা বলেন। কিন্তু কে কার কথা শুনে! যোগ্য ব্যক্তিকে যোগ্যস্থানে বসানো দায়িত্ব। আর অযোগ্য ব্যক্তিকে গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বসানো দায়িত্বহীনতাই নয়, বড় অযোগ্যতার সামিল। আমরা যেটা বারবার ভুলে যাই। যার কারণে মূল্যও দিতে হয় ।

মামুন জোয়ারদার : সাবেক তারকা ফুটবলার, বর্তমান কানাডার নাগরিক

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :