বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসে রকেট হামলা, আহত ৩

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২৭ জানুয়ারি ২০২০, ১০:৫৫ | প্রকাশিত : ২৭ জানুয়ারি ২০২০, ০৯:১৬
বাগদাদের গ্রিন জোনে মার্কিন দূতাবাস- সিএনএন

ইরাকের রাজধানী বাগদাদের মার্কিন দূতাবাসে তিনটি রকেট হামলার ঘটনা ঘটেছে। রবিবার রাতে দূতাবাসের ক্যাফেটেরিয়ায় একটি রকেট হামলায় তিন জন আহত হয়েছেন। এছাড়া বাকি দুটি হামলা দূতাবাসের খুব কাছেই হয়েছে। খবর এএফপি ও রয়টার্সের।

কয়েক বছরের মধ্যে এই প্রথম কোন রকেট হামলায় বাগদাদে কোন মার্কিন দূতাবাস কর্মী আহত হলেন। এখনো পর্যন্ত হামলার দায় স্বীকার করেনি কোনো গ্রুপ।

মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট জানিয়েছে, ‘আমাদের কূটনৈতিক সুযোগসুবিধা ও নিরাপত্তা দেয়ার যে বাধ্যবাধকতা ইরাকি কর্তৃপক্ষের রয়েছে, তাদের তা পালনের আহ্বান জানাচ্ছি।’

যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট ইরাকের রাজধানীতে রকেট হামলার জন্য তেহরানকে সরাসরি দোষ দেয়নি। তবে মুখপাত্রের বক্তব্যে এই অঞ্চলে ইরানি হুমকি এবং মার্কিন স্বার্থে ইরান-সমর্থিত মিলিশিয়াদের অতীতের হামলার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে।

ওই মুখপাত্র বলেন, ‘ইরাকের নিরাপত্তা পরিস্থিতি উত্তেজনাপূর্ণ রয়ে গেছে এবং ইরান-সমর্থিত সশস্ত্র গোষ্ঠী হুমকিস্বরূপ রয়েছে। সুতরাং, আমরা এ বিষয়ে সজাগ রয়েছি।’

তবে এর আগে এই হামলার বিষয়ে মার্কিন যৌথ অপারেশন কমান্ড এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, পাঁচটি রকেট হামলার ঘটনা ঘটেছে। সেগুলো মার্কিন দূতাবাসের কাছে নদীতে বিস্ফোরিত হয়েছে। এতে কেউ হতাহত হয়নি।

ইরাকি প্রধানমন্ত্রী আদেল আব্দুল মাহদি এ হামলার নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, এ ধরনের ধারাবাহিক হামলার ফলে ইরাক আবার যুদ্ধক্ষেত্র হয়ে উঠতে পারে।

সাম্প্রতিক সময়ে ইরাকে দূতাবাস এবং ইরাকি সামরিক ঘাঁটিগুলো হামলার লক্ষ্যবস্তু হয়ে উঠেছে, বিশেষ করে যেখানে মার্কিন বাহিনী মোতায়েন রয়েছে। সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের অবনতির কারণে ইরাকে নিরাপত্তা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে।

চলতি মাসের শুরুর দিকে ইরানের শীর্ষ কমান্ডার কাসেম সোলেইমানিকে বাগদাদে হত্যা করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। সেই ঘটনার পর থেকে ইরান এবং ইরাকে ইরান সমর্থিত মিলিশিয়াদের সঙ্গে চরম উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনীকে ইরাক ছাড়ার জন্য রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করেছে কয়েক লাখ ইরাকি জনগণ।

ঢাকা টাইমস/২৭জানুয়ারি/একে

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত