সামাজিক দূরত্বের বালাই নেই লেগুনা-ইজিবাইকে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০১ জুন ২০২০, ১৩:৪৮

গণপরিবহন চলাচলের ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব মানা হচ্ছে না লেগুনা ও ইজিবাইকে। একজনের অন্যজনের গা ঘেঁষে বসা, মাস্ক-হ্যান্ড গ্লোভস ব্যবহার না করার পুরনো চিত্র দেখা গেছে এই দুটি গণপরিবহনে।

সোমবার রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

ঝুঁকিপূর্ণ গণপরিবহনের তালিকায় রয়েছে লেগুনা। তুলনামূলক ছোট আকারের এই গণপরিবহনটির মাত্রাতিরিক্ত গতিতে ছুটে চলা ও অপক্ক চালক দিয়ে গাড়ি চালানোর অভিযোগ রয়েছে পরিবহনটির বিরুদ্ধে। টানা ৬৭ দিন বন্ধ থাকার পর সরকারের পক্ষ থেকে গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দেয়া হয়েছে। দীর্ঘ ছুটির পর স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মেনে গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দেয়া হয়েছে। তবে সে দূরত্ব মানা হচ্ছে না লেগুনায়।

প্রতিটি লেগুনায় চালকের পাশের আসনে দুইজন। পেছনে দিকে দুই পাশে ছয় জন করে মোট ১২ জন যাত্রী পরিবহন করা হয়। সামাজিক দূরত্ব মেনে যাত্রী পরিবহন করতে বলা হলে প্রতি ৬ জনের জায়গায় যাত্রী নেয়া হচ্ছে ৪ জন করে। এতে প্রতি জনের মধ্যে এক ফুটেরও কম দূরত্ব থাকছে। আবার দুই পাশের যাত্রীরা বসছেন মুখোমুখি। ফলে স্বাস্থ্যবিধি বা সামাজিক দূরত্বের কিছুই মানা হচ্ছে না।

আবার যাত্রীর মধ্যেও অসচেতনায় ঘাটতি নেই। শ্যামলি থেকে মোহাম্মদপুর ঢাকা উদ্যান রুটে চলাচলকারী উড়াল পাখি পরিবহনের কয়েকটি লেগুনায় মাস্ক ছাড়া ছাড়া যাত্রী চলাচল করতে দেখা গেছে। হাতেগোনা দুই একজনের হাতে হ্যান্ড গ্লোভস থাকলেও বাকিদের হাতে নেই।

পরিচয় প্রকাশ না করার শর্তে পরিবহনটির একজন চালক ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘আমরাও জানি সামাজিক দূরত্ব মানা হয় নাই। কিন্তু কি করার আছে। লেগুনার বডিই ও ছয় ফুটের। এর মধ্যে তিন ফুট দূরে দূরে লোক বসায় কেমনে? ওই হিসাবে যাত্রী নিতে গেলে এক ট্রিপে চারজনের বেশি যাত্রী নেওয়া যায় না।’

যাত্রীদের অসাবধানতার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘আমরা কি যাত্রীরে মাস্ক কিনা দিমু? এরা ভয় পায় না, মানে না। সকাল থেকেই দেখতাছি, বহুত লোক মাস্ক পড়ে নাই। এইখানে আমাগো কি করার আছে?’

শুধু উড়াল পাখি নয়। একই চিত্র গাবতলি থেকে সদরঘাট, যাত্রাবাড়ী, জিগাতলা, মোহাম্মদপুর এলাকার বিভিন্ন রুটে চলাচলকারী লেগুনাগুলোতেও।

এছাড়া এতদিন লকডাউন চললেও তার মধ্যেই মোহাম্মদপুর বেড়িবাঁধ রুটে চলাচল করেছে ইজিবাইক। সামাজিক দূরত্ব না মেনে চালকের আসনের দুই পাশে দুইজন। পেছনে চার আসনে মুখোমুখি চারজন যাত্রী নিয়ে চলাচল করছে এই পরিবহনটি। একইভাবে যাত্রী পরিবহন করছে উত্তরখান, দক্ষিণখান এলাকায় চলাচলকারী ইজিবাইকগুলো।

ঢাকাটাইমস/০১জুন/কারই/এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :