চেম্বার জজ আদালতেও নিক্সন চৌধুরীর জামিন বহাল

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২০, ১৯:৪৯ | প্রকাশিত : ২২ অক্টোবর ২০২০, ১৬:১১
ফাইল ছবি

নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) দায়ের করা মামলায় ফরিদপুর-৪ আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মুজিবর রহমান চৌধুরী ওরফে নিক্সন চৌধুরীকে হাইকোর্টের দেওয়া আগাম জামিন স্থগিত করেননি আপিল বিভাগের চেম্বারজজ আদালত। এর ফলে হাইকোর্টের দেয়া ৮ সপ্তাহের জামিন বহাল রইলো আপিল বিভাগের চেম্বারেও।

বৃহস্পতিবার নিক্সন চৌধুরীর জামিন স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিল শুনানি নিয়ে আপিল বিভাগের বিচারপতি মো. নুরুজ্জামানের চেম্বারজজ আদালত এ আদেশ দেন। আদালতে এদিন রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সাইফুল আলম।

গত ২০ অক্টোবর হাইকোর্টের বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারোয়ার কাজলের বেঞ্চ নিক্সন চৌধুরীকে আট সপ্তাহের আগাম জামিন দেন। এজন্য নিক্সন চৌধুরীকে বেশ কিছু শর্ত দেয়া হয়।

ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলা নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে তরুণ এই সাংসদের বিরুদ্ধে মামলা করেছিল নির্বাচন কমিশন। যদিও শুরু থেকেই এই সংসদ সদস্য দাবি করে আসছেন, নির্বাচনে তিনি কোনো আচরণবিধি লঙ্ঘন করেননি।

আগাম জামিনের আদেশ দিয়ে আদালত কিছু শর্তের কথা উল্লেখ করেছিলেন। তা হলো- মামলা তদন্তের ক্ষেত্রে সাক্ষীদের প্রভাবিত করা যাবে না। স্থানীয় প্রশাসনকে কোনো ধরনের ভয়ভীতি দেখানো যাবে না। মামলা তদন্তে তদন্ত কর্মকর্তাকে সব ধরনের সহযোগিতা করবেন আবেদনকারী (নিক্সন চৌধুরী)।

গত ১০ অক্টোবর চরভদ্রাসন উপজেলা নির্বাচনের সময় এমপি নিক্সন চৌধুরীর বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ করা হয়। পরে ১৩ অক্টোবর সংবাদ সম্মেলন করে বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত বক্তব্য তুলে ধরেন ফরিদপুর-৪ (ভাঙ্গা-চরভদ্রাসন-সদরপুর) আসনের তরুণ এই সাংসদ। সেখানে তিনি নির্বাচনে আচারণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ অস্বীকার করেন। একইসঙ্গে নির্বাচনের সময়ে তার একটি ফোনালাপ ফাঁস নিয়েও কথা বলেন। তিনি বলেন, ফোনালাপটি সুপার এডিট করা। এটা কারা করেছে সে বিষয়ে তদন্তও দাবি করেন তিনি।

এই অবস্থার মধ্যে গত ১৫ অক্টোবর ফরিদপুরের চরভদ্রাসন থানায় নিক্সন চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলাটি করেছিল নির্বাচন কমিশন।

ওই সংবাদ সম্মেলনে নিক্সন চৌধুরী নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন নিয়ে বলেন, তিনি কোনো নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেননি। সংবাদ সম্মেলনে ভাঙ্গা-চরভদ্রাসন-সদরপুরের এই সাংসদ বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে মামলা হলে, ফরিদপুরের ডিসির বিরুদ্ধেও মামলা করা উচিত। কারণ আমি যদি নির্বাচন বিধি লঙ্ঘন করে থাকি তাহলে তিনিও লঙ্ঘন করেছেন।’

সংবাদ সম্মেলনে নিক্সন চৌধুরী অভিযোগ করেন, তার বক্তব্য সুপার এডিট করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়ানো হয়েছে। এ কাজের জন্য তিনি তার শত্রুপক্ষকে অভিযুক্ত করেন।

সোশ্যাল মিডিয়াতে প্রকাশিত ফোনালাপের বিষয়ে তদন্তের দাবি জানিয়ে নিক্সন চৌধুরী বলেন, ‘ওই ভয়েসটাই (কণ্ঠস্বর) আমার না। এটি সুপার এডিট করা হয়েছে। এমনকি এটা কেটে কেটে বিভিন্ন জায়গা থেকে এনে এডিট করা হয়েছে। শত্রুপক্ষ আমার বক্তব্য সুপার এডিট করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেড়েছে।’ সোশ্যাল মিডিয়াতে তার বক্তব্য প্রচার করে আইন লঙ্ঘন করা হয়েছে বলেও দাবি করেন এই সংসদ সদস্য।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফরিদপুর-৪ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মুজিবর রহমান নিক্সন চৌধুরী সিংহ প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী হন। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর থেকে প্রায় ৫০ হাজার ভোটের ব্যবধানে নিক্সন জয় পান। এর আগেও তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।

(ঢাকাটাইমস/২২অক্টোবর/বিইউ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আদালত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :