বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে গবেষণায় জোর দেয়ার তাগিদ শিক্ষামন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৪ নভেম্বর ২০২০, ২০:২১

বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে কাক্ষিত মানে পৌঁছাতে গবেষণার ক্ষেত্রে আরও বেশি জোর দিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

মঙ্গলবার রাজধানীর মিরপুর সেনানিবাসে বিইউপির বিজয় অডিটোরিয়ামে একটি শিক্ষাবান্ধব সফটওয়্যারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

ডা. দীপু মনি বলেন, ‘গবেষণার ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে এখন বেশি জোর দিতে হবে। তবেই বিশ্ববিদ্যালয়গুলো কাঙ্ক্ষিত মানে পৌঁছাতে সক্ষম হবে। শিক্ষার্থীদের সংখ্যা দিয়ে নয়, বরং শিক্ষার গুণগত মান হবে একটা প্রতিষ্ঠানের মান নির্ধারণের মাপকাঠি। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হবে উচ্চশিক্ষা তথা জ্ঞানচর্চা ও গবেষণার সূতিকাগার।’

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘সারাবিশ্বে করোনা সবকিছু লণ্ডভণ্ড করে দিয়েছে। শিক্ষাকে এক চরম অনিশ্চয়তার দিকে ঠেলে দিয়েছে। ঠিক সেখানেই বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস (বিইউপি) এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।’

ডা. দীপু মনি বলেন, ‘এই স্থবিরতার মাঝে প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে বিইউপি শুরু থেকেই অনলাইন ক্লাস, পরীক্ষাসহ অন্যান্য সব প্রশাসনিক কার্যক্রম সচল রেখেছে। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর প্রাক্কালে প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের আহ্বানে সাড়া দিয়ে বিইউপি যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে, তা সত্যিই অনন্য।’

এদিকে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) জানায়, মঙ্গলবার রাজধানীর মিরপুর সেনানিবাসে বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) বিজয় অডিটোরিয়ামে সামাজিক দূরত্ব মেনে কম্প্রিহেনসিভ লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম, রিমোট প্রক্টরিং ও প্লেজারিজম চেকার শীর্ষক শিক্ষাবান্ধব সফটওয়্যারের উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী।

করোনার মতো বৈশ্বিক মহামারির শুরু থেকে অনলাইনে চলমান বিইউপির শিক্ষা কার্যক্রমকে আরও যুগোপযোগী ও যে কোনো প্রতিকূলতার মাঝেও সুচারুভাবে পরিচালনার জন্য বিইউপি এই সফটওয়্যার প্রবর্তন করছে। এই সফটওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যমে অনলাইনে ক্লাস পরিচালনা, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে তথ্য আদান-প্রদান, শিক্ষার্থীদের সার্বিক অ্যাকাডেমিক অগ্রগতি বিষয়ক রিপোর্ট, প্রত্যেক শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর প্রোফাইল ব্যবস্থাপনা, ভিডিও আপলোড, যে কোনো ধরনের পরীক্ষা গ্রহণ ও তা রিমোট প্রক্টরিংয়ের মাধ্যমে পরিচালনা করা হবে।

এছাড়াও থিসিস, টার্মপেপার ও অ্যাসাইনমেন্ট গ্রহণ, যা ‘টার্ন-ইট ইন’ প্লেজারিজম চেকার অ্যাপের মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয়ভাবে লেখার মৌলিকত্ব ও স্বচ্ছতা যাচাই করা সম্ভব হবে। নতুন এই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে শিক্ষা ও গবেষণা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম পরিচালনা করা সম্ভব হবে।

বিইউপির উপাচার্য মেজর জেনারেল আতাউল হাকিম সারওয়ার হাসানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও বিশেষ অতিথি ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী।

(ঢাকাটাইমস/২৪নভেম্বর/টিএটি/কেআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :