সাত বছর পর ঈশ্বরদী আ.লীগের সম্মেলন

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, পাবনা
 | প্রকাশিত : ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৪৬

উত্তেজনা ও কড়া পুলিশি নিরাপত্তার মধ্যে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্যদিয়ে পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়েছে। বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। শুরুতেই জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়।

উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধন ঘোষণা করেন পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ রেজাউল রহিম লাল।

এ ছাড়া প্রধান অতিথি হিসেবে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুর রহমান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

দীর্ঘ সাত বছর পর ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের এটি ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। দীর্ঘ বিরতি আর প্রতিদ্বন্দ্বিনতা মিলে বেশ উৎকণ্ঠার মধ্যেই আলহাজ টেক্সটাইল উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে অনুষ্ঠিত হয় এই সম্মেলন।

স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী সূত্রে জানা যায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে বেশ কয়েকজন নেতা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তবে দুটি প্যানেলে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে চারজনের মধ্যে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে।

এক প্যানেলে সভাপতি পদে রয়েছেন ঈশ্বরদী পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র ইছাহক আলী মালিথা এবং সাধারণ সম্পাদক পদে সাবেক ভূমিমন্ত্রী মরহুম শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর ছেলে ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সদস্য সাকিবুর রহমান কনক শরীফ।

অন্য প্যানেলে সভাপতি পদে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবং দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নায়েব আলী বিশ্বাস ও সাধারণ সম্পাদক পদে পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র আবুল কালাম আজাদ মিন্টু। কাউন্সিলরদের ভোটে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হবেন।

সবশেষ ২০১৩ সালের ১১ জুন ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন হয়। এই সম্মেলনে আনিসুন্নবী বিশ্বাস সভাপতি ও মকলেছুর রহমান মিন্টু সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। পরে আনিসুন্নবী বিশ্বাস মারা যাওয়ায় কমিটির সহসভাপতি নায়েব আলী বিশ্বাস দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

এদিকে সম্মেলনকে ঘিরে এরই মধ্যে অনেক জল্পনা-কল্পনা ডালপালা মেললেও শেষ পর্যন্ত কী হতে যাচ্ছে, তা জানেন না কেউই। যদি ব্যালটে নেতা নির্বাচিত হয় তাহলে মোট ৩৩২ জন কাউন্সিলর তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন।

ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নায়েব আলী বিশ্বাসের সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুর রহমান।

প্রধান অতিথি বলেন, ঈশ্বরদীর মানুষ বঙ্গবন্ধু, শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগকে ভালোবাসে বলেই ঈশ্বরদীতে বারবার নৌকা জয়লাভ করে।

তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা নানা প্রকার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ সকল অঙ্গ সংগঠনের সকল নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ থেকে ষড়যন্ত্র মোকাবেলার জন্য থাকার নির্দেশনা দেন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন- আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল, কেন্দ্রীয় কমিটির স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক রোকেয়া সুলতানা, কেন্দ্রীয় নেতা আকতান জাহান, মেরিনা জাহান কবিতা, আব্দুল আওয়াল শামিম, পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স এমপি, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুজ্জামান বিশ্বাস এমপি, মকবুল হোসেন এমপি, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, আহম্মেদ ফিরোজ এমপি, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন জলি প্রমুখ।

সম্মেলনে আলোচনা পর্ব পরিচালনা করেন পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার সৈয়দ আলী জীরু ও ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ফরিদুল ইসলাম।

দ্বিতীয় অধিবেশনে কমিটি গঠনের ব্যাপারে নেতৃবৃন্দ বলেন, সমঝোতার ভিত্তিতে কমিটি গঠন করা সম্ভব না হলে কাউন্সিলরদের গোপন ভোটের মাধ্যমে শান্তিপূর্ণভবে কমিটি গঠন করা হবে।

(ঢাকাটাইমস/২৯সেপ্টেম্বর/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :