অব্যাহত পতন মূল মার্কেটে, সর্বোচ্চ অবস্থানে এসএমই সূচক

বীর সাহাবী, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১২ আগস্ট ২০২২, ১০:০২

পুঁজিবাজারের লাগাতার দরপতন ঠেকাতে ফ্লোর প্রাইস আরোপ করে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এরপর কয়েকদিন ইতিবাচক ধারায় চললেও ফের অব্যাহতভাবে দরপতন হতে থাকে মূল মার্কেটে। তবে এসএমই মার্কেটে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর শেয়ার দরের সঙ্গে বাড়ছে সূচকও।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৩২ দশমিক ১৩ পয়েন্ট কমলেও এসএমই মার্কেটের সূচকটি গতকালের তুলনায় ৪৯ দশমিক ৮৩ পয়েন্ট বা ২.২৭ শতাংশ বেড়ে এ যাবৎকালের সর্বোচ্চ অবস্থানে ছিল। এদিন সূচকটি ২২৪৪.৬৫ পয়েন্টে অবস্থান করছিল।

চলতি বছরের ১৭ ফেব্রুয়ারি এসএমই প্লাটফর্মে বিনিয়োগের শর্ত শিথিল করে বিএসইসি। সেসময় এক নির্দেশনায় বলা হয়, এসএমই মার্কেটে আসার জন্য পুঁজিবাজারে ২০ লাখ টাকার বিনিয়োগ লাগবে। এর আগে ৫০ লাখ টাকা বিনিয়োগ থাকলে এসএমই প্লাটফর্মে লেনদেন করার সুযোগ পেতেন বিনিয়োগকারীরা।

এ সিদ্ধান্তের আগ পর্যন্ত এসএমই প্লাটফর্মে দৈনিক গড় লেনদেন ছিল প্রায় ১৭ কোটি টাকা। এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের পর অর্থাৎ চলতি বছরের ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত দৈনিক গড় লেনদেনের পরিমাণ প্রায় ৬০ কোটি টাকা। সে হিসাবে দৈনিক গড় লেনদেন বেড়েছে প্রায় ৪৩ কোটি টাকা।

চলতি বছরের ২৮ জুলাই থেকে এসএমই বোর্ডে লেনদেনের ক্ষেত্রে তালিকাভুক্ত সিকিউরিটিজে সর্বনিম্ন বিনিয়োগসীমা ২০ লাখ টাকা থেকে ৩০ লাখ টাকায় উন্নীত করা হয়। যদিও পুরাতন বিনিয়োগকারীরা এ শর্ত বাস্তবায়নে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত সময় পান।

এসএমই মার্কেটে তালিকাভুক্ত শেয়ার রয়েছে ১৫টি। এর মধ্যে ৫টি কোম্পানি ওভার দ্য কাউন্টার মার্কেট থেকে এসেছে। এছাড়া ১০টি কোম্পানি কিওআই ইনভেস্টর অফারের মাধ্যমে তালিকাভুক্ত হয়েছে।

আরো দুটি কোম্পানি ওটিসি মার্কেট থেকে এসএমই মার্কেটে শিগগিরই তালিকাভুক্ত হবে বলে ডিএসই সূত্রে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে পুঁজিবাজার বিশ্লেষক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আবু আহমেদ ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘এসএমই মার্কেট একটি জুয়ার বাজার। এ বাজারের উদ্দেশ্য ছিল স্বল্প মূলধনী কোম্পানিগুলোর তালিকাভুক্তি। কিন্তু এটা না করে ওটিসির মৃতপ্রায় কোম্পানিগুলোকে এ মার্কেটে পুর্নবাসন করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘মূল মার্কেটের সাথে এ মার্কেটে বিনিয়োগের শর্ত হিসেবে মূল মার্কেটে যে বিনিয়োগের বাধ্যবাধকতা রয়েছে তা রাখা ঠিক নয়।’

(ঢাকাটাইমস/১২আগস্ট/বিএস/এফএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :