রসালো লিচুতে বাজার সয়লাব, ক্যানসারসহ বহু রোগের দাওয়াই এই ফল!

ঢাকাটাইমস ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ২২ মে ২০২৩, ১০:৪৩

গাছের ডালে ডালে ঝুলন্ত লাল টকটকে আগুন রঙের রসালো ফলের গুচ্ছ লিচুর দৃশ্য খুবই চমৎকার। লিচুর রঙে আর স্বাদে মন জুড়ায় না এমন লোক খুঁজে পাওয়া দুস্কর। রসাল ও মিষ্টি লিচুর স্বাদ এই গরমে দেয় আরাম। স্বাস্থ্যের জন্যও বিরাট উপকারী।

বিশেষজ্ঞদের মতে, গরমকালে শরীরকে চাঙ্গা ও সুস্থ রাখতে লিচুর মৌসুমে সাধ্যমতো পর্যাপ্ত পরিমাণে এই ফল খাওয়া উচিত। অনেকে মনে করেন, লিচু বেশি খেলে পেটে ব্যথা হয়। কথাটি সত্য। তবে সঠিক নির্দেশিকা মেনে লিচু খেলে এই ফলের বিকল্প কিছু হয় না।

বাংলাদেশে রাজশাহী, যশোর, দিনাজপুর, রংপুর, কুষ্টিয়া, পাবনা, ময়মনসিংহ, ঢাকার সোনারগাঁ, মেহেরপুর, কুষ্টিয়া, সাতক্ষীরা, চট্টগ্রামসহ আরো কয়েকটি জেলায় লিচুর ব্যাপক চাষ হয়।

এখন লিচুর মৌসুম। ইতোমধ্যে বাজারে প্রচুর পরিমাণে উঠতে শুরু করেছে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা রসালো লিচু। দামও হাতের নাগালে। ক্যানসারসহ নানা জটিল রোগের দাওয়াই এই লিচু। চলুন তবে জেনে আসি ফলটি কী কী রোগ থেকে মুক্ত রাখে।

ক্যানসার থেকে মুক্তি দেয়

লিচুতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও ক্যানসার প্রতিরোধী উপাদান রয়েছে। বিশেষ করে স্তন ক্যানসার ঠেকাতে লিচু বেশ কার্যকর।

ওজন কমানো

বেশি পরিমাণে চিনি এবং কার্বোহাইড্রেট থাকা সত্ত্বেও নিয়মিত লিচু খেলে তা ক্লান্তি এবং প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে। ওয়ার্কআউটের পরে এবং পেটের বাড়তি চর্বিও কমাতে পারে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

লিচুতে রয়েছে অলিগোনল নামের একটি উপাদান। লিচু শরীরকে ভাইরাস সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে। ফলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে।

গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে

যাদের শরীরে রক্তের মধ্যে গ্লুকোজের পরিমাণ বেড়ে গিয়ে ডায়াবেটিস অনিয়ন্ত্রিত হয়ে গেছে, তারা প্রতিষেধক হিসেবে লিচু খেতে পারেন। লিচুর মধ্যে থাকা ভিটামিন সি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আমাদের শরীরের রক্তের মধ্যে গ্লুকোজের মাত্রাকে নিয়ন্ত্রণে রাখে।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে

যাদের শরীরে রক্ত নালীতে রক্তচাপ বেড়ে যায় বা প্রেশার বারবার উঠানামা করে, তারা খাবারের তালিকায় নিয়মিত লিচু রাখতে পারেন। কারণ লিচুর রসের মধ্যে থাকা পটাশিয়াম আমাদের শরীরের রক্ত পরিষ্কার করতে কাজ করে। ফলে রক্তচাপ কমিয়ে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে।

হৃদ্যন্ত্রের খেয়াল রাখে

দেহের হৃদ্‌যন্ত্রকে সুস্থ রাখতে নিয়মিত লিচু খেতে হবে। লিচুতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট রয়েছে। যা হৃদ্‌রোগের ঝুঁকি কমায়। পাশাপাশি হৃদ্‌যন্ত্রের কাজকে সক্রিয় রাখে।

পেটের সমস্যায় মুক্তি

লিচু হজম শক্তি উন্নত করে। এতে যথেষ্ট পরিমাণ ফাইবার ও প্রচুর পানি থাকে, যা হজমের জন্য কাজ করে। গরমে আমাদের পেটে নানা সমস্যা হয়। লিচু খেলে পেটের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

চোখের ছানি পড়া দূর করে

লিচু আপনার চোখ জোড়ারও যত্ন নিবে। এটি খেলে চোখের ছানি পড়ার সমস্যা থেকেও মুক্তি পাবেন। লিচুতে রয়েছে বিশেষ ফাইটোকেমিক্যাল, যা অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট ও চোখের সুরক্ষার জন্য দরকারী। চোখে ছানি পড়াও আটকাতে সাহায্য করে।

ত্বকের স্বাস্থ্য ভালো থাকে

লিচুর রস ব্যবহার করে ত্বকের কালচে দাগ দূর করা যায়। এমনকি রোদে পোড়া ত্বকের ট্যান দূর করতেও লিচুর রস কার্যকর। লিচু রস মুখে লাগিয়ে নিলেই উপকার মিলবে। তাছাড়া এটি ত্বকের বলিরেখাও দূর করবে।

সতর্কতা

লিচুতে হাইপোগ্লাইসিন নামে একধরনের রাসায়নিক পদার্থ থাকে, যা শরীরে শর্করা তৈরিতে বাধা দেয়। যে কারণে শিশুরা খালি পেটে অনেকগুলো লিচু খেয়ে ফেললে শরীরের শর্করা কমে শিশুর বমি ও খিঁচুনি হয়। অনেক সময় তা মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

(ঢাকাটাইমস/২২মে/এজে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

স্বাস্থ্য এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :