ডায়াবেটিস ও হার্টের মহৌষধ ধনে! উচ্চ রক্তচাপও রাখে নিয়ন্ত্রণে

ঢাকা টাইমস ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ২৯ নভেম্বর ২০২৩, ১৭:৪৬

হার্ট হলো আমাদের শরীরের পাম্প। তাই এই অঙ্গটিকে সুস্থ রাখতেই হবে। এই কাজে আপনার ব্রহ্মাস্ত্র হতে পারে অতি পরিচিত মসলা ধনে। কারণ, এতে রয়েছে এমন কিছু উপাদান যা প্রেশার, কোলেস্টেরল এবং ডায়াবেটিসকে নিয়ন্ত্রণে রাখার কাজে সিদ্ধহস্ত। এসব রোগকে বশে রাখতে পারলে অনায়াসে হার্ট ডিজিজ থেকে দূরে থাকতে পারবেন।

তাই আর সময় নষ্ট না করে বিভিন্ন রোগ নিরাময়ে ধনের ভূমিকা সম্পর্কে দ্রুত জেনে নিন। তারপর যত দ্রুত সম্ভব এই মসলা সেবন করা শুরু করে দিন। আশা করছি, এই কাজটা করলে আপনার সুস্থ থাকার পথ প্রশস্থ হবে।

কোলেস্টেরলের যম​

রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়লে তা হৃৎপিণ্ডের রক্তনালীর ভেতরে জমতে পারে। এই কারণেই হার্টে স্বাভাবিক রক্ত চলাচল ব্যহত হয়। ফলে হার্ট অ্যাটাকের মতো মারণ অসুখের খপ্পরে পড়ার আশঙ্কা বাড়ে। তবে ভালো খবর হলো, আপনি যদি নিয়মিত ধনে সেবন করেন, তাহলে অচিরেই ব্লাড কোলেস্টেরলকে বাগে আনতে পারবেন। ফলে হার্ট ডিজিজের ফাঁদে পড়ার আশঙ্কা কমবে।

নিয়ন্ত্রণে থাকবে ব্লাড প্রেশার​

উচ্চ রক্তচাপ বা হাইপারটেনশন হলো একটি ঘাতক অসুখ। এই অসুখে আক্রান্ত হলে হার্টসহ দেহের একাধিক অঙ্গ বিপদের মুখে পড়তে পারে। তাই সুস্থ-সবল জীবনযাপন করার ইচ্ছা থাকলে ব্লাড প্রেশারকে নিয়ন্ত্রণে আনতেই হবে।

এই কাজে একাই একশো হলো ধনে। কারণ, এই মসলায় রয়েছে ডাইউরেটিক্স উপাদান, যা কিনা প্রস্রাবের মাধ্যমে দেহ থেকে সোডিয়াম বের করে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। ফলে সহজেই নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে ব্লাড প্রেশার। এমনকি এড়ানো যাবে হৃদরোগের ফাঁদ।

ডায়াবেটিসের মহৌষধ

দেশে টাইপ-২ ডায়াবেটিসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। এই অসুখে একবার আক্রান্ত হলে ডায়েট নিয়ে একটু সচেতন হতে হবে বৈকি! নইলে কম বয়সেই হার্ট ডিজিজের ফাঁদে পড়ার আশঙ্কা বাড়বে। তবে ভালো খবর হলো, এই রোগকে বশে রাখার কাজে একদম সেরার সেরা হলো ধনে। ডায়াবেটিস রোগীরা নিয়মিত এই মসলা সেবন করুন। তাতেই আপনার সুস্থ থাকার পথ প্রশস্থ হবে। এমনকি পড়তে হবে না হার্ট অ্যাটাকের ফাঁদে।

বাড়বে ইমিউনিটি​

ধনের বীজে রয়েছে টারপাইনিন, কুয়েরসেটিন, টোকোফেরলসের মতো অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের ভাণ্ডার। এসব উপাদান কোষের ক্ষয়ক্ষতি আটকে দেওয়ার কাজে সিদ্ধহস্ত। এমনকি প্রদাহের প্রকোপ কমানোর কাজেও এর জুড়ি মেলা ভার। তাই নিয়মিত ধনে সেবন করলে যে অচিরেই ইমিউনিটিকে চাঙ্গা করতে পারবেন, তা তো বলাই বাহুল্য। এমনকি এই মসলার গুণে একাধিক ক্রনিক রোগের থেকেও দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হবে। তাই সুস্থ থাকতে যত দ্রুত সম্ভব এই মসলার সঙ্গে বন্ধুত্ব পাতিয়ে নিন।

কীভাবে খেতে হবে?

রাতে এক গ্লাস পানিতে এক চামচ ধনে মিশিয়ে রেখে পরের দিন সকালে খেয়ে নিন। এতেই উপকার মিলবে সব থেকে বেশি। এছাড়া রান্নাতেও এই মসলার ব্যবহার বাড়াতে পারেন। তাতেও স্বাস্থ্যের হাল-হকিকত বদলে যাবে। তবে দিনে এক চামচের বেশি নয়। নইলে বিপদ।

(ঢাকাটাইমস/২৯নভেম্বর/এজে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :