বন্ধই থাকছে ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি, চালে ২০ শতাংশ শুল্ক বহাল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪:৩৫ | প্রকাশিত : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩:৩৯

সিদ্ধ চাল রপ্তানিতে ২০ শতাংশ শুল্ক বহাল রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। চলতি বছরের মার্চের ৩১ তারিখ পর্যন্ত এই শুল্ক জারি থাকার কথা থাকলেও পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত এই শুল্ক অব্যাহত থাকবে জানানো হয়েছে।

ভারতীয় ইকোনমিক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, গত বছরের আগস্টে অভ্যন্তরীণ বাজারে সরবরাহ ও দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে চাল রপ্তানিতে ২০ শতাংশ শুল্ক আরোপ করে মোদি সরকার। সে সময় চলতি বছরের মার্চ মাসের ৩১ তারিখ পর্যন্ত এই শুল্ক জারি থাকবে বলে ঘোষণা করা হয়। কিন্তু বুধবার ভারতের অর্থ মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হলো, পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত এই শুল্ক জারি থাকবে।

এদিকে চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল ভারত। এতে দেশটির প্রধান পেঁয়াজ উৎপাদনকারী অঞ্চল মহারাষ্ট্রের নাশিকের পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজিতে ৪০ থেকে কমে ১৩ রুপিতে নেমে আসে। দামের এই পতনে পেঁয়াজ চাষিরা দুই মাস ধরে বিক্ষোভ করে রপ্তানি নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবি জানায়। এতে রপ্তানি বন্ধের প্রায় আড়াই মাসের মাথায় গত রবিবার দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সভাপতিত্বে এক বৈঠকে আবারও পেঁয়াজ রপ্তানির সিদ্ধান্ত জানানো হয়।

আরও পড়ুন: ফের পেঁয়াজ রপ্তানির ঘোষণা ভারতের, বাংলাদেশে দাম কমার আশা

তবে মঙ্গলবার ভারত সরকারের পক্ষ থেকে আবার জানানো হয়, পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা মেয়াদ কমিয়ে আনার প্রশ্ন নেই, বরং নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ আরও বাড়ানো হতে পারে।

এক শীর্ষ কর্মকর্তার বরাতে ভারতের আরেক সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশের অভ্যন্তরে পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণ এবং পর্যাপ্ত সরবরাহ রাখতে প্রয়োজনে পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ আরও বাড়তে পারে।

দেশটির ভোক্তা বিষয়ক সচিব রোহিত কুমার বলেন, পেঁয়াজ রপ্তানিতে আরোপিত নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হচ্ছে না। এ নিয়ে বিদ্যমান অবস্থান পরিবর্তনের কোনো বাধ্যবাধকতা আপাতত নেই।

তিনি আরও বলেন, ভোক্তাদের কাছে ন্যায্যমূল্যে পেঁয়াজের সহজলভ্যতা ও প্রাপ্যতা নিশ্চিত করাই সরকারের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার।

টাইমস অব ইন্ডিয়া বলছে, পেঁয়াজ রপ্তানিতে জারি করা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হচ্ছে এমন প্রতিবেদন প্রকাশের পর দেশটিতে পেঁয়াজের দর ৪০ দশমিক ৬২ শতাংশ বেড়ে যায়। ১৭ ফেব্রুয়ারি প্রতি কুইন্টাল পেঁয়াজের দাম ছিল ১ হাজার ২৮০ রুপি; ১৯ ফেব্রুয়ারি তা ১ হাজার ৮০০ রুপিতে উঠে যায়।

সূত্র জানায়, সামনে ভারতে জাতীয় নির্বাচন। এর আগে পেঁয়াজের ওপর থেকে মোদি সরকারের নিষেধাজ্ঞা ওঠানোর সম্ভাবনা ক্ষীণ। কারণ শীতকালীন মৌসুমে দেশটির শীর্ষ পেঁয়াজ উৎপাদক অঞ্চল মহারাষ্ট্রে তুলনামূলক কম উৎপাদন হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/২২ফেব্রুয়ারি/এমআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আন্তর্জাতিক এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :