শাকিব খানকে নিয়ে নতুন বিতর্ক

বিনোদন প্রতিবেদক
 | প্রকাশিত : ০৬ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:৫৯

এক যুগেরও বেশি সময় ধরে অভিনয়, জনপ্রিয়তা ও পারিশ্রমিক- সবদিক থেকেই ঢাকাই সিনেমার শীর্ষে শাকিব খান। সিনেমা হলে শাকিব মানেই হাউসফুল। এ রকম ধারণা থেকে পরিচালক-প্রযোজকরা চোখ বুঁজে লগ্নি করেন এই তারকার নামে। এমন পরিবেশ শাকিব সৃষ্টি করেছিলেন কলকাতাতেও। কিন্তু কিং খান সম্পর্কে সম্প্রতি আনন্দবাজার দিয়েছে বিতর্কিত এক তথ্য।

কারও বরাত না দিয়ে পত্রিকাটি জানিয়েছে, জনপ্রিয় প্রযোজনা সংস্থা এসকে মুভিজের হাত ধরে কলকাতায় যাত্রা শুরু করা শাকিব তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস’-এর সঙ্গে ‘নাকাব’ সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হন। সেখানে নায়ক পারিশ্রমিক হাঁকান এক কোটি টাকা। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানটি সেই টাকার বিনিময়েই শাকিবকে চুক্তি স্বাক্ষর করান।

কিন্তু মুক্তির পর সিনেমাটি ফ্লপ করে। এতে শাকিবে আস্থা হারায় ‘এসভিএফ’। কাজেই শাকিব নাকি এখনও আবার এসকে মুভিজের মুভিজের কাছে ফিরতে চায়। কিন্তু ‘এসভিএস’-এর কাছে এক কোটি টাকা পারিশ্রমিক দাবি করায় এসকে মুভিজও নাকি শাকিবকে ফিরিয়ে নিতে রাজি হচ্ছে না।

বিষয়টি জানতে এসকে মুভিজের কর্ণধার অশোক ধানুকার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ‘আমাদের সঙ্গে কথা না বলেই সংবাদটা করা হয়েছে। এ ধরনের কোনো তথ্য আমরা কাউকে দেইনি। তবে সিনেমার বাজার এপার-ওপার দুই বাংলাতেই খারাপ। এরই মধ্যে আমাদের সমন্বয় করে কাজ করতে হবে। শাকিব খান ঢাকাই সিনেমার সুপারস্টার হলেও এই দেশে কিন্তু ততটা পরিচিত না। তবে তার যে স্টাইল, লুক, পারফরমেন্স তাতে এই বাংলায়ও তিনি নিজের অবস্থান তৈরি করে নিতে পারতেন ইচ্ছে হলে।’  

শাকিবের ওপরে কী আস্থা হারাচ্ছে কলকাতা? এমন প্রশ্নের জবাবে অশোক বলেন, ‘উনি কলকাতায় এখনো রাইজিং। আস্থা-অনাস্থার কিছু নেই এখানে। বিষয়টা সম্পূর্ণ ব্যবসাকেন্দ্রিক। কখনো কোনো আর্টিস্ট ভালো ব্যবসা করে, কখনো করে না। দুই বাংলা মিলিয়ে শাকিবের ব্যবসা ভালোই।’

এদিকে পুরো ঘটনা শুনে হাসলেন শাকিব খান। তার কথায়, ‘একটা সংবাদকে এত গুরুত্ব দেওয়ার সময় কোথায় বলুন। আমার আরও অনেক কাজ আছে। আমি ক্যারিয়ার আর ইন্ডাস্ট্রি নিয়েই ব্যস্ত। এসকে মুভিজের দুটি সিনেমা ছেড়ে দিয়েছিলাম শুধু দেশের সিনেমায় সিডিউল দেওয়ার জন্য। আমার কাছে আগে বাংলাদেশ তারপর সারা পৃথিবী। এখন আমার সরে আসাকে যদি কোনো গণমাধ্যম রঙ লাগিয়ে ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করে, তখন তো আসলে করার কিছুই থাকে না।’

ঢাকাই সিনেমার সাম্প্রতিক দুরবস্থার কথা উল্লেখ করে কিং খান বলেন, ‘আমি এখন আমাদের ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে বেশি ভাবব। দুদিন আগেও সিনেমার সিনিয়রদের মুখে হতাশার কথা শুনেছি। হতাশায় নিমজ্জিত ইন্ডাস্ট্রিটাকে আশার আলোয় ভাসাতে যা যা করার সম্মিলিতভাবে এখন সেটাই করার সময়। তাছাড়া এখন থেকে হয়তো বছরে হাতেগোনা কয়েকটা বাইরের সিনেমা করব।’

ঢাকা টাইমস/০৬ জানুয়ারি/আরআর/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :