সংরক্ষিত থেকে সাধারণ ওয়ার্ডে ডেইজি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৯:৫২

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) সংরক্ষিত নারী আসনের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র আলেয়া সারোয়ার ডেইজি সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন।

রবিবার বেলা ১২টায় ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত দুজন মেয়র ও ১২৯ জন কাউন্সিলর প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন দলীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এসময় ৩১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে আলেয়া সারোয়ার ডেইজির নাম ঘোষণা করা হয়।

সংরক্ষিত আসন ১২ এর অন্তর্ভুক্ত ৩১, ৩৩ ও ৩৪ নম্বর ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন আলেয়া সারোয়ার ডেইজি। সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে কী ধরনের দায়িত্ব পালন করবেন জানতে চাইলে ডেইজি ঢাকা টাইমসকে বলেন, শুরুতেই ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের মূল সমস্যাগুলো নিয়ে তিনি কাজ করতে চান।

ডেইজি বলেন, ‘এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ওয়ার্ড। তা সত্ত্বেও এখানে বেশ কিছু সমস্যা রয়েছে। সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর হিসেবে কাজের অনেক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। তাই চাইলেও আমি অনেক কিছু করতে পারিনি। জনগণ যদি আমাকে ভোট দিয়ে কাউন্সিলর নির্বাচিত করে তাহলে আমি তাদের সমস্যা সমাধানে অবশ্যই কাজ করব। সেটিই আমার দায়িত্ব।‘

‘খেলার মাঠে মেলা বসত। আমি সেগুলোকে উচ্ছেদ করেছি। এখন শিশু কিশোররা মাঠে নির্বিঘ্নে খেলার সুযোগ পাচ্ছে। কিছু মাঠে মাদকের আড্ডা বসে। আমি সেগুলোকে বন্ধ করব। এক্ষেত্রে মাঠে লাইটের ব্যবস্থা করার পরিকল্পনা আছে। যানজট নিরসনে কাজ করতে হবে। দুই বাড়ির মাঝখানে যে পেসেজগুলো রয়েছে তা পরিষ্কার রাখতে শতভাগ কাজ করতে চাই। সারা বছর মশক নিধন কার্যক্রম বহাল থাকবে।‘

ওয়ার্ডে বসবাসকারী নাগরিকদের নিরাপত্তার স্বার্থে কিছু উদ্যোগ এরই মধ্যে নেয়া হয়েছে বলেও তিনি জানান। বলেন, ‘পুরো ওয়ার্ডে সিটি টিভি ক্যামেরা লাগাতে চাই। এক্ষেত্রে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে থাকবে। চুরি-ছিনতাই বন্ধ হবে। প্রশাসনের সঙ্গে বসে আরও পদক্ষেপ গ্রহণ করার পরিকল্পনা রয়েছে।‘

ওয়ার্ডে অবাঙালিদের একটি ক্যাম্প রয়েছে। তাদের জন্য নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করতে কাজ করার কথা জানিয়েছেন বর্তমান প্যানেল মেয়র ডেইজি। বলেন, ‘অবাঙালিরা আমাদের নাগরিক। তারা কতটুকু নাগরিক সুবিধা পাচ্ছে, সেটিও আমাদের দেখতে হবে। সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে তাদের জন্য করণীয় সকল কিছু করা হবে। আমি নির্বাচিত হতে পারলে, অবাঙালিদের জন্য বাজেটের আবেদন করব।‘

নিরাপদ সড়কের জন্য ফুটপাত হকার মুক্ত রাখতে হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সড়ক ও ফুটপাতে হকাররা অনেক বড় একটি সমস্যা। কিন্তু আমাদেরও তাদের সমস্যাটা বুঝতে হবে। তাই কেবল এই ওয়ার্ডের হকাররাই এই ওয়ার্ডে বসতে পারবে। অন্য ওয়ার্ডের হকারদের এই ওয়ার্ডে বসতে দেয়া হবে না। এমন নিয়ম প্রতিষ্ঠা করতে চাই। আর হকারদের জন্য নির্দিষ্ট জায়গা করে দেয়া হবে। এক্ষেত্রে হকার ও নাগরিক উভয়ে ভোগান্তিমুক্ত থাকবে।‘

তিনি আরও বলেন, ‘কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ, ওয়ার্ডে খেলার মাঠগুলো সংস্কার। সেখানে বসার জায়গা তৈরি করা, মাঠগুলোতে আলাদা হাঁটার জায়গা তৈরি করার পরিকল্পনা রয়েছে। একটি পার্ক নির্মাণের কাজ আমি এরইমধ্যে হাতে নিয়েছি। আশা করছি, দ্রত সময়ের মধ্যে সেটি বাস্তব করতে পারব।‘

(ঢাকাটাইমস/২৯ডিসেম্বর/কারই/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

নারীমেলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :