দুই বছর পর ঢাকায় হাইকমিশনার পেল পাকিস্তান

নজরুল ইসলাম, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২০ জানুয়ারি ২০২০, ২২:১০ | প্রকাশিত : ২০ জানুয়ারি ২০২০, ২০:৩০

প্রায় দুই বছর পর ঢাকায় নতুন হাইকমিশনার নিয়োগ নিশ্চিত করেছে ইসলামাবাদ। পেশাদার কূটনীতিক ইমরান আহমেদ সিদ্দিকী এখন থেকে ইসলাবাদের হয়ে ঢাকায় হাইকমিশনারের দায়িত্ব পালন করবেন। খুব শিগগির এই কূটনীতিক তার দায়িত্ব পালন শুরু করবেন। 

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, গতকাল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিফ অব প্রটোকল মো. আমানুল হকের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন ইমরান আহমেদ। এ সময় ঢাকার পক্ষ থেকে ইসলামাবাদের নতুন হাইকমিশনারকে তার দায়িত্ব পালনে পূর্ণ সহযোগিতার আশ্বাস দেওয়া হয়।

নতুন হাইকমিশনার কয়েক দিনের মধ্যে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের কাছে তার পরিচয়পত্র পেশ করবেন।

এর আগে ঢাকায় পাকিস্তানের সর্বশেষ হাইকমিশনার ছিলেন রফিকুজ্জামান সিদ্দিকী। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে তিনি অবসরে গেলে ইসলামাবাদ সাকলাইন সাইয়েদাকে ঢাকায় পাকিস্তানের পরবর্তী হাইকমিশনার পদে নিয়োগ দেয়ার জন্য অ্যাগ্রিমো পাঠায়।  কিন্তু সাইয়েদার অ্যাগ্রিমো গ্রহণ করেনি ঢাকা।

পরে গত বছরের শেষভাগে ইমরান আহমেদকে ঢাকায় হাইকমিশনার করার প্রস্তাব পাঠায় ইসলামাবাদ। তখন তিনি কানাডার টরেন্টোতে পাকিস্তানের কনসাল জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

গত দুই বছর ঢাকায় পাকিস্তানের দূত হিসেবে হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন শাহ্ ফয়সাল। তিনি ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

ঢাকায় পাকিস্তানি হাইকমিশনারের মুক্তিযুদ্ধ ও সরকারবিরোধী কর্মকাণ্ডসহ নানা কারণে ঢাকা ও ইসলামাবাদের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক গত কয়েক বছর ধরে টানাপোড়েনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে।

২০১৫ সালের ডিসেম্বরে বাংলাদেশের অনুরোধে এক কূটনীতিককে ঢাকা থেকে প্রত্যাহার করেছিল পাকিস্তান। ঢাকার হাইকশিনের দ্বিতীয় সচিব (রাজনৈতিক) ফারিনা আরশাদের বিরুদ্ধে জঙ্গিসংশ্লিষ্টতার বিশ^াসযোগ্য প্রমাণ পেয়েছিল বাংলাদেশ।

কূটনৈতিক টানাপোড়েনের কারণেই ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে বাংলাদেশে হাইকমিশনার নিয়োগ দিতে পারেনি দেশটি। গত বছর সাকলায়েন সাইয়েদাকে বাংলাদেশে হাইকমিশনার হিসেবে প্রস্তাব করেছিল ইসলামাবাদ। ঢাকা তাকে মেনে নেয়নি তার শিষ্টাচারবহির্ভূত আচরণের কারণে। নতুন করে তালিকা পাঠাতে বলেছিল ঢাকা।

কিন্তু তালিকা পাঠানোর বদলে উল্টো ইসলামাবাদে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনারকে বহিষ্কারের হুমকি দেয় একাত্তরে বাংলাদেশে গণহত্যা চালানো দেশটি।

গত বছরের ১৭ সেপ্টেম্বর জাতিংঘের ৭৪তম অধিবেশন থেকে দেশে ফিরে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তার দেশের কূটনৈতিক মিশনগুলোতে বড় ধরনের পরিবর্তনের ফাইল অনুমোদন করেন। সেই তালিকায় ছিল ঢাকায় নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত ইসলাবাদের পেশাদার কূটনীতিক ইমরান।

(ঢাকাটাইমস/২০জানুয়ারি/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :