তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের পাশে দাঁড়ালেন মোসাদ্দেক

ক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৫ এপ্রিল ২০২০, ১০:০৯

সমাজে অসহায়ের সংজ্ঞা দিতে গিয়ে খুব কম লোকই অন্তর্ভুক্ত করেন তৃতীয় লিঙ্গের হিজড়া সম্প্রদায়কে। করোনা শঙ্কায় থমকে যাওয়া বাংলাদেশে রুটি রুজি বন্ধ তাদেরও। তবে আলাদাভাবে তাদের সাহায্যের ব্যাপারটা ভাবনায় এসেছে কমই, এই কমদের দলে আছেন জাতীয় দলের ক্রিকেটার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। দিন কয়েক আগে থেকেই অসহায় মানুষদের পাশে আছেন এই ক্রিকেটার, পৌঁছে দিচ্ছেন খাবার, পোশাক।

এবার তার ভাবনায় জায়গা পেয়েছে সুবিধা বঞ্চিত তৃতীয় লিঙ্গের হিজড়া সম্প্রদায়ও। আজ নিজ এলাকার বেশ কয়েকজন হিজড়াকে ত্রান তুলে দেন মোসাদ্দেক। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আসলে দেশের যে পরিস্থিতি তাতে যতটা না করোনা আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ তার চেয়ে বেশি অভাবে। বিশেষ করে যারা দিন আনে দিন খায় এমন মানুষ গুলো সব রোজগারের পথ বন্ধ। শুরুতে তাদের জন্য কিছুটা করেছি।’

‘এরপর দেখলাম যে যারা হিজড়া আছেন, তাদের পাশেও কেউ নেই। ওদের সব আয়ের পথ গুলো বন্ধ। ওদের কেউ বাসাতেও ঢুকতে দেয়না, অন্য চোখে দেখে। এরাও তো মানুষ, তাই আমি আমার নিজের এলাকাতে এমন (হিজড়া) যারা আছে তাদের কিছুটা হলেও পাশে থাকার চেষ্টা করেছি।’

দেশের এই সংকটময় সময়ে লোক দেখানো ত্রান কার্যক্রমের নজির দেখা যায় বিভিন্ন জায়গায়। মোসাদ্দেক সাফ জানিয়ে দিলেন লোকা দেখানো তার উদ্দেশ্য নয় অবশ্য ত্রান বিতরণ ও আয়োজন দেখেও ফারাকটা স্পষ্ট বোঝা যায়। অসহায়দের পাশে লোক দেখানোর জন্য না দাঁড়ানোর অনুরোধ করে মোসাদ্দেক বলেন,

‘আমি এই দেশেরই সন্তান। আমার সক্ষমতা আছে মানুষের বিপদে এগিয়ে আসার। তাই কেন বসে থাকবো। আমি যা করছি তা লোক দেখানোর জন্য নয়। আমার মনে হয়েছে এই বিপদের সময় সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষগুলোর পাশে দাঁড়ানো উচিত তাই করছি। আর সকলের কাছে অনুরোধ, উপকারটা কাউকে দেখানো বা সার্থের জন্য না করেন।’

তার নিজের পক্ষে যতদিন সম্ভব ততদিনই খেটে খাওয়া মানুষদের পাশে দাঁড়াবেন উল্লেখ করে মোসাদ্দেক যোগ করেন, ‘যত দিন আমার পক্ষে সম্ভব। তার মানে আমার সামর্থ্যে যতটা কুলাবে ততো দিন আমি করবো। বিশেষ করে খেটে খাওয়া মানুষ গুলো যেন না খেয়ে থাকতে হয় সেটার ব্যবস্থা করার চেষ্টা থাকবে।’

(ঢাকাটাইমস/০৫ এপ্রিল/এআইএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :