করোনায় স্থবির অর্থনীতি সুরক্ষায় আগ্রাসী পরিকল্পনা চীনের

ঢাকাটাইমস ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ০৯ এপ্রিল ২০২০, ১৬:০৫

নভেল করোনাভাইরাসের মহামারী নিয়ন্ত্রণে মানুষকে ঘরে রাখতে ও নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখতে হিমশিম খেতে হচ্ছে প্রায় সব দেশকেই। উন্নদ-অনুন্নত সব দেশেই কল-কারখানা, অফিস-আদালত, স্কুল-কলেজ বন্ধ রয়েছে। এর ফলে বিশ্বজুড়েই সার্বিক অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড প্রায় অচল। আর এতে প্রতিদিনই বাড়ছে ক্ষতির বোঝা।

তবে বিশ্বের অন্যতম অর্থনৈতিক শক্তিধর দেশ চীন করোনা সংকটকে পিছনে ফেলে তার অর্থনৈতিক অগ্রগতিকে বহমান রাখতে মরিয়া। দ্বিতীয় দফায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণের মুখে যেসব দেশ অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে সেসব দেশও চীনের দিকে নজর দিতে পারে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে সিএনএন।

যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যমটি বলছে, চীর তার অর্থনীতি রক্ষায় আগ্রাসী পরিকল্পনা নিয়েছে। মানুষকে কাজে ফেরানোর পরিকল্পনা নিয়ে বিপুল প্রচারণা চালাচ্ছে। ব্যবসায় আস্থা বাড়াতে অনুপ্রেরণা দিচ্ছে এবং যথাসম্ভব কোম্পানিগুলোর পতন ঠেকাতে কাজ করছে। এছাড়া স্বাস্থ্যসেবা উপকরণ ও চিকিৎসার জন্য শত শত কোটি ডলার খরচ করছে বেইজিং। আর কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে অবকাঠামো প্রকল্পেও সরাসরি অর্থ ঢালছে।

মহামারী নিয়ন্ত্রণে বেইজিংয়ের কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার পর কয়েক দশকের মধ্যে এবারই প্রথম প্রান্তিকে চীনে অর্থনৈতিক সংকোচন দেখা দিয়েছে। দেশটির যেসব এলাকায় করোনার প্রাদুর্ভাব শেষ হয়েছে বলে মনে হচ্ছে সেসব এলাকাগুলোতে মানুষের অবাধে চলাফেরা নিশ্চিত করতে অবরোধ তুলে নেয়া হচ্ছে। যদিও দেশটির বিশ্লেষকরদেরই অনেকেই বলঠেন, সবকিছু ঠিকঠাক হয়ে গেছে এখনই এমন মনে করাটা বাড়াবাড়ি।

সংক্রমণের বিষয়ে বেইজিংয়ের দেয়া তথ্যের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়েও নতুন করে প্রশ্ন তৈরি হয়েছে। চীনে ব্যাপকসংখ্যক মানুষকে সপ্তাহান্তে একসঙ্গে পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে ঘুরতে দেখা যাচ্ছে। পুনরুদ্ধার প্রচেষ্টাকে জটিলতার মধ্যে ফেলেও কিছু ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুব দ্রুত কাজে ফিরেছে।

এদিকে বিশ্বজুড়ে অভূতপূর্ব এই মহামারী কবে নাগাদ সম্পূর্ণভাবে নিয়ন্ত্রণে আসবে সে বিষয়ে এখনই কোনো ধারণা পাওয়া যাচ্ছে না। তবে দীর্ঘমেয়াদে কর্মকাণ্ডে কড়া বিধিনিষেধ চালু থাকলে খাদ্য ও স্বাস্থ্য সেবা ব্যবস্থাও ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এমনকি বিশ্ববাসী নজিরবিহীনৈআর্থিক মন্দার কবলে পড়তে যাচ্ছে বলেও সতর্কতা এসেছে।

(ঢাকাটাইমস/০৯এপ্রিল/ডিএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :