ঢাকা শহর এখন আর বর্জ্যের ভাগাড় নয়: মেয়র তাপস

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪:৩৯ | প্রকাশিত : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩:১৫

ঢাকা শহর এখন আর বর্জ্যের ভাগাড় নয় বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

‘যেখানে ঢাকা শহরে আগে ৯০ ভাগ বর্জ্য উন্মুক্ত অবস্থায় থাকতো সেখানে সেটাকে কমিয়ে নিয়ে এসেছি আমরা। এখন মাত্র ৩০ ভাগ বর্জ্য উন্মুক্ত অবস্থায় আছে।’ বলেন মেয়র তাপস।

বুধবার সকালে রাজধানীর তিলপাপাড়া এলাকায় অন্তর্বর্তীকালীন বর্জ্য স্থানান্তর কেন্দ্রের উদ্বোধন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, ‘শেখ হাসিনার জন্মদিনে আমরা ২ নম্বর ওয়ার্ডের দীর্ঘদিনের প্রতীক্ষিত বর্জ্য স্থানান্তর কেন্দ্রের উদ্বোধন ঘোষণা করতে পেরেছি। সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরীসহ আমাদের কাউন্সিলর ও এলাকার নেতৃবৃন্দ দীর্ঘদিন ধরে কষ্ট করে এই জমিটা উদ্ধার করে দিয়েছেন। আমরা আজকে যে কাজটা সম্পন্ন করলাম এর মাধ্যমে আমাদের ঢাকা শহরের ৭৫টা ওয়ার্ডের মধ্যে ৫৭টা ওয়ার্ডের স্থানান্তর কেন্দ্র নির্মাণ সম্পন্ন হলো। বাকিগুলো প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।’

মেয়র বলেন, ‘ঢাকা শহরে ৯০ ভাগ বর্জ্য আগে উন্মুক্ত অবস্থায় থাকতো, বিভিন্ন রাস্তায় বিভিন্ন মহল্লায় অলিগলিতে ছড়িয়ে থাকতো, নর্দমার উপরে স্তূপ আকারে থাকতো। আজ সেগুলোর আমূল পরিবর্তন হয়েছে।’

ঢাকা শহরে এত বর্জ্য ব্যবস্থাপনা থাকা সত্ত্বেও বিভিন্ন স্থানে উন্মুক্ত অবস্থায় থাকছে- এ প্রশ্নের জবাবে মেয়র তাপস বলেন, ‘যেখানে ৯০ ভাগ বর্জ্য উন্মুক্ত অবস্থায় থাকতো, আমাদের এই কার্যক্রম মাত্র দুই বছরের। আগে ৫০ বছরে মাত্র ২৪টি পর্যায়ে স্থানান্তর কেন্দ্র নির্মাণ করা হয়েছিল। এই দুই বছরের মধ্যে আমরা আরো ৩৫টি নির্মাণ করতে পেরেছি। বাকি কার্যক্রম চলছে। সুতরাং এখন ঢাকা শহর আর বর্জ্যের ভাগাড় নয়। যেখানে ৯০ ভাগ বর্জ্য আগে উন্মুক্ত অবস্থায় থাকতো সেখানে সেটাকে কমিয়ে নিয়ে এসে মাত্র ৩০ ভাগ বর্জ্য উন্মুক্ত আছে। আমাদের যে কার্যক্রম তা চলমান আছে। বাকি অন্তর্বর্তীকালীন বর্জ্য স্থানান্তর কেন্দ্র নির্মাণ হলে শতভাগই ঢাকা শহর থেকে অপসারণ সম্পন্ন করতে পারব।’

‘আমাদের কার্যক্রম অত্যন্ত সফলতার সাথে সম্পন্ন হচ্ছে’- যোগ করেন মেয়র।

(ঢাকাটাইমস/২৮সেপ্টেম্বর/কেআর/এফএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :