ধর্ষণের অভিযোগ: ভিডিও বার্তায় যা বললেন শাকিব খানের অস্ট্রেলিয়ার আইনজীবী

বিনোদন প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২২ মার্চ ২০২৩, ১০:৫১ | প্রকাশিত : ২২ মার্চ ২০২৩, ১০:৪৮

ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খানের নামে ধর্ষণ সংক্রান্ত অভিযোগের বিষয়ে এবার মুখ খুললেন অভিনেতার অস্ট্রেলিয়ার আইনজীবী উপল আমিন। মঙ্গলবার অস্ট্রেলিয়া থেকে দেওয়া এক ভিডিও বার্তায় তিনি জানান, শাকিব খানের নামে রহমত উল্লাহ যে অভিযোগগুলো তুলেছেন, সেগুলো তার কাছে সন্দেহজনক মনে হয়েছিল। তাই তিনি অস্ট্রেলিয়া পুলিশের সঙ্গে বিষয়গুলো নিয়ে কথা বলেছেন।

অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী এই আইনজীবী ফেসবুক লাইভে বলেন, ‘রহমত উল্লাহ যে কথাগুলো বলেছেন, এটা আমার কাছে যথেষ্ট সন্দেহজনক মনে হয়েছিল। আমি শাকিব খানের অস্ট্রেলিয়ান আইনজীবী হিসেবে এই ব্যাপারগুলো চেক করেছি পুলিশের সঙ্গে। আমি সেন্ট জর্জ ডিটেকটিভ অফিসে ওদের হেড অব ডিপার্টমেন্টের সঙ্গে সরাসরি কথা বলেছি। ডিটেকটিভ সার্জেন্ট মাইকেল বাগের সঙ্গে কথা বলেছি এবং তিনি আমাকে কয়েকটি বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন।’

আইনজীবী বলেন, ‘অভিযোগ তো মানুষ করতেই পারে। কিন্তু বিষয়টা হচ্ছে, অভিযোগ করার পর কী হয়েছিল? নারী সহ-প্রযোজক এবং রহমত উল্লাহ শাকিব খানের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ দিয়েছিল সিডনি অস্ট্রেলিয়াতে, এই বিষয় তো শাকিব খান অস্বীকার করেননি। এই যে রহমত উল্লাহ মিডিয়ার কাছে এসে বলছেন, শাকিব খানের বিরুদ্ধে অভিযোগ হওয়ার পর তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তার নামে মামলা করা হয়েছিল। তিনি নাকি দুইবার অস্ট্রেলিয়াতে মামলা থেকে পালিয়ে গিয়েছিলেন।’

উপল আমিন জানান, ‘অস্ট্রেলিয়াতে যে কেউ পুলিশ স্টেশনে গিয়ে যেকোনো ব্যাপারে একটা রিপোর্ট করলে তাকে একটা ইভেন্ট নম্বর দেওয়া হয়। বাংলাদেশে জিডি বলা হয়। আর আমাদের অস্ট্রেলিয়াতে ইভেন্ট নম্বর বলা হয়। দুটি জিনিস কিন্তু একই। এখন একটা ইভেন্ট নম্বর পাওয়া, মানে এই নয় যে কারও নামে কোনো মামলা দেওয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমার ক্লায়েন্ট শাকিব খান ২০১৬ সালে অস্ট্রেলিয়ায় এসেছিলেন এবং ২০১৮ সালেও এসেছিলেন। অস্ট্রেলিয়ায় কোনোবারই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। তিনি কখনো পালিয়ে যাননি। আমি অস্ট্রেলিয়া থেকে আপনাদের যা বলছি, এটা সম্পূর্ণ অস্ট্রেলিয়ার আইনের ভিত্তিতে কথা বললাম। আমার ক্লায়েন্ট শাকিব খান নির্দোষ, এ ব্যাপারে আমি একটা কনফার্মেশন লেটার পাব অস্ট্রেলিয়ান পুলিশ অথরটির কাছ থেকে এবং সেটাও আপনাদের দেখাব।’

এই আইনজীবী বলেন, ‘রহমত উল্লাহ যে অভিযোগ করেছেন, এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা। রহমত উল্লাহর উচিত, এই অভিযোগগুলো প্রত্যাহার করা। আমি শাকিব খানের অস্ট্রেলিয়ায় নিযুক্ত আইনজীবী আপনাদের বলতে চাই যে, বাংলাদেশে তার বিরুদ্ধে যা প্রোপাগান্ডা চলছে, আমি মনে করি, তা সম্পূর্ণ উদ্দেশ্যমূলক। আমার ক্লায়েন্ট শাকিব খানের জনপ্রিয়তা নষ্ট করার জন্য এই চক্রান্ত চলছে। শাকিব খানের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ রহমত উল্লাহ এনেছেন, এটা একটা অর্থনৈতিক চক্রান্ত। আমার ক্লায়েন্টের কাছ থেকে টাকা আদায়ের জন্য রহমত উল্লাহ এই কাজটা করেছেন।’

গত ১৫ মার্চ এফডিসিতে গিয়ে শাকিব খানের বিরুদ্ধে অসদাচরণ, মিথ্যা আশ্বাস ও ধর্ষণের লিখিত অভিযোগ করেন রহমত উল্লাহ। নিজেকে তিনি ‘অপারেশন অগ্নিপথ’ ছবির প্রযোজক দাবি করেন। তার অভিযোগ, ২০১৬ সালে অস্ট্রেলিয়ায় ছবিটির শুটিংয়ে গিয়ে নিজের হোটেল কক্ষে এক নারী সহ-প্রযোজককে ধর্ষণ করেন কিং খান। রহমত উল্লাহ আবার সম্পর্কে ওই নারীর চাচা।

তবে শাকিব খানের দাবি, রহমত উল্লাহ ‘অপারেশন অগ্নিপথ’ ছবির প্রযোজক নন। এমনকি, তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগগুলো আনা হয়েছে, সেগুলোর কোনোটাই সত্যি নয়। ওই কথিত প্রযোজকের বিরুদ্ধে আইনি পথে হাঁটছেন শাকিব খান। গত শনিবার রাতে তিনি গিয়েছিলেন গুলশান থানায় রহমত উল্লাহর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা করতে।

কিন্তু সেদিন কিং খানের মামলা নেয়নি গুলশান থানা। বরং তাকে আদালতে মামলা করার পরামর্শ দেওয়া হয়। তবে আদালতে মামলা না করে অভিনেতা রবিবার যান ডিবি কার্যালয়ে। সেখানে অভিযোগ জানান। ডিবি প্রধান হারুন অর রশিদ শাকিব খানকে আশ্বাস দেন, অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে তিনি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। এদিকে, কথিত ওই প্রযোজক নাকি অস্ট্রেলিয়ায় চলে গেছেন।

(ঢাকাটাইমস/২২মার্চ/এজে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

বিনোদন এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :