যে পাঁচ খাবার গাঁটের ব্যথা বাড়িয়ে দেয় কয়েকগুণ

ঢাকাটাইমস ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ০২ এপ্রিল ২০২৩, ১০:৫৪

অনেকের শরীরেই এখন ইউরিক অ্যাসিড বেশি মাত্রায় থাকে। এই উপাদানটি বৃদ্ধি পেলে কিছু গুরুতর জটিলতা দেখা দিতে পারে। এমনকি হতে পারে গাউট বা গেঁটে বাত। এটি একটি প্রদাহজনিত রোগ। এতে সাইনোভিয়াল অস্থিসন্ধি ও এর আশেপাশের টিস্যুতে মনোসোডিয়াম ইউরেট মনোহাইড্রেট ক্রিস্টাল জমা হয়।

সাধারণত মাত্র ১ থেকে ২ শতাংশ লোক এই রোগে আক্রান্ত হয়। তবে মহিলাদের তুলনায় পুরুষেরা ৫ গুণ বেশি আক্রান্ত হয়। একবার গাউট হলে আপনাকে কিছু খাবার এড়িয়ে যেতে হবে। নইলে সমস্যা বাড়বে কয়েকগুণ।

ইউরিক অ্যাসিড প্রতিটি মানুষের শরীরেই রয়েছে। এই অ্যাসিড একটা নির্দিষ্ট মাত্রায় থাকলে তেমন একটা সমস্যা নেই। তবে সেই মাত্রার উপরে গেলেই বুঝতে হবে সমস্যা তৈরি হচ্ছে। ইউরিক অ্যাসিড বৃদ্ধি পেলে তা গাঁটে গাঁটে জমে। সেক্ষেত্রে ইউরিক অ্যাসিড ক্রিস্টাল আকারে জমে জয়েন্টে। তখন খুব ব্যথা হয়, জায়গাটা ফুলে যায়। আক্রান্ত ব্যক্তি খুবই ভোগেন।

গাউটের সমস্যা কিছু খাবার খেলে বৃদ্ধি পায়। তাই সেসব খাবার থেকে আক্রান্তকে দূরে থাকতে বলা হয়। আসুন জানা যাক সেই পাঁচ খাবার সম্পর্কে-

মদ্যপান নয়

ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিক জানাচ্ছে, গাউট রোগীদের জন্য মদ্যপান ভীষণ খারাপ। এই পানীয় মুখে তুললেই গাউটের সমস্যা কয়েকগুণ বৃদ্ধি পায়। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, মদ্যপান করলে শরীরে ইউরিক অ্যাসিড বৃদ্ধি পায়। তাই এই পানীয়টি এড়িয়ে যেতে হবে। শুধু মদ নয়, বিয়ার খেলেও জটিলতা বাড়ে।

অর্গান মিট

মাংস খেলে তেমন একটা সমস্যা হয় না। তবে হাঁস-মুরগির কলিজা, গিলে ইত্যাদি খেলে কিন্তু গাউট বাড়তে পারে। আসলে অর্গান মিট খেলে শরীরে পিউরিন বৃদ্ধি পায়। ফলে শরীরে সমস্যা দেখা দিতে পারে। এমনকি গাউটের ব্যথা কয়েকগুণ বাড়ে। তাই অর্গান মিট খাওয়া ছাড়তে হবে।

রেডমিট খেলেও সমস্যা

সারাবিশ্বে বিভিন্ন ধরনের রেডমিটের চল রয়েছে। যদিও বাঙালিরা রেডমিট বলতে শুধু গরুর মাংসই বোঝে। এর পাশাপাশি খাঁসির মাংস খেলেও কিন্তু সমস্যা হতে পারে। এই মাংসে থাকে অনেকটা পরিমাণে পিউরিন। এই পিউরিন সমস্যা বৃদ্ধি করে। এমনকি বাতের ব্যথা কয়েকগুণ বৃদ্ধি পায়। তবে যাদের সমস্যা হয়, তারা কয়েক মাস পর পর গরু-খাঁসির মাংস খেতে পারেন।

কর্ন সিরাপ

​অনেকেই কর্ন সিরাপ দিয়ে বানানো পানীয় খান। বিশেষত, গ্রীষ্মের দিনে এই পানীয় খাওয়া হয় বেশি। তবে জানলে অবাক হয়ে যাবেন যে, এই কর্ন সিরাপ খেলেও কিন্তু সমস্যা কয়েকগুণ বাড়তে পারে। আসলে এতে থাকে ফ্রুকটোজ। এই ফ্রুকটোজ কিন্তু সমস্যা বাড়ায়। তাই অহেতুক সমস্যা এড়াতে কর্ন সিরাপ না খাওয়াই ভালো।

কোল্ড ড্রিংকসও সমস্যার কারণ

গরম পড়তে না পড়তেই অনেকে ঢেলে কোল্ড ড্রিংকস খাওয়া শুরু করেছেন। এই পানীয়ও সমস্যার অন্যতম কারণ। এই পানীয়তে রয়েছে অত্যধিক পরিমাণে মিষ্টি। এই মিষ্টি কিন্তু সমস্যা বাড়ায়। এমনকি বাড়াতে পারে ইউরিক অ্যাসিড। তাই গাউট রোগীরা গরমকালে কোল্ড ড্রিংকস থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করুন।

(ঢাকাটাইমস/০২এপ্রিল/এজে)

সংবাদটি শেয়ার করুন

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

স্বাস্থ্য এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :