কুমিল্লায় ঈগল প্রতীক নিয়ে প্রার্থীদের কাড়াকাড়ি

কুমিল্লা প্রতিনিধি, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ১৮ ডিসেম্বর ২০২৩, ১৭:৫৬

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আজ কুমিল্লার ১১টি আসনে ৮৮ জন প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়।

সোমবার সকাল ১০টা থেকে এই কার্যক্রম শুরু হয়। তবে ব্যতিক্রম বিষয় ছিল- স্বতন্ত্র প্রার্থীদের প্রতীক হিসেবে সবার চাওয়া ছিল ঈগল। প্রতীক বাছাইয়ে জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে তার সামনে একাধিক স্বতন্ত্র প্রার্থীর ব্যাপক হট্টগোল হয়।

কুমিল্লা-১১ (চৌদ্দগ্রাম) আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মিজানুর রহমান ও নিজাম উদ্দীন ঈগল প্রতীক দাবি করেন। এ সময় রিটার্নিং কর্মকর্তা লটারি করেন৷ এতে ঈগল প্রতীক পান নিজাম উদ্দীন।

নিজাম উদ্দীন বলেন, আমি আগে থেকেই ঈগল নিয়ে প্রচারণা শুরু করেছি। তখন জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেন, আমি জানলে অবশ্যই আপনাকে জরিমানা করতাম।

কুমিল্লা-৫ (বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া) আসনে স্বতন্ত্রপ্রার্থী সাজ্জাদ হোসেন, আবু জাহের ও বিএনপির বহিষ্কৃত নেতা শওকত মাহমুদ ঈগল প্রতীকের আবেদন করেন। এ সময় শওকত মাহমুদকে ঈগল প্রতীক বরাদ্দ দেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা।

এ বিষয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু জাহের ও সাজ্জাদ হোসেন আপত্তি জানান। তাদের আপত্তির জবাবে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা জানান, শওকত মাহমুদ আগের দিন আবেদন করেছেন তাই তাকে ঈগল প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছি। এ সময় স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু জাহের বলেন, আমাদেরকে বললে আমরাও আগের দিন জানাতাম।

এদিকে কুমিল্লা-৬ (সদর) আসনে একাধিক স্বতন্ত্র প্রার্থী না থাকায় সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য আঞ্জুম সুলতানা সীমা তার পছন্দের ঈগল প্রতীক পান। তিনি প্রতীক পাওয়ার আগেই তার কর্মী সমর্থকদের মধ্যে ঈগল প্রতীক নিয়ে কাজ করার আগ্রহ দেখা গেছে।

প্রতীক বরাদ্দ কার্যক্রম শেষে জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, যাদেরকে প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছি, তাদের সবাইকে সতর্ক করে দিয়েছি। তারা যেন প্রচার প্রচারণায় আচরণ বিধি লঙ্ঘন না করেন।

(ঢাকাটাইমস/১৮ডিসেম্বর/এআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশ এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :