সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির দায়িত্ব না নিতে চার নেতাকে চিঠি, পুনর্নির্বাচন দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ২৭ মার্চ ২০২৪, ১৬:১৭ | প্রকাশিত : ২৭ মার্চ ২০২৪, ১৫:১০

সদ্য সমাপ্ত বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করে পুনর্নির্বাচনের দাবি জানিয়েছে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম। একই সঙ্গে নির্বাচনে এই ফোরাম থেকে জয়ী হওয়া চার নেতাকে তাদের দায়িত্ব গ্রহণ না করতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

বুধবার জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি এ কে মোহাম্মদ আলী এবং মহাসচিব ব্যারিস্টার কায়সার কামাল স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করে এই অনুরোধ জানানো হয়।

নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকনসহ ফোরামের নেতৃবৃন্দের উদ্দেশে চিঠিতে বলা হয়, আপনারা বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম মনোনীত প্যানেল থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। বিগত দু'বছরের মতো এবারের নির্বাচনেও ক্ষমতাসীনরা নজিরবিহীনভাবে ভোট জালিয়াতি, কারচুপি ও মনগড়া ফলাফল ঘোষণা করেছে। এমনকি সম্পাদক পদে আওয়ামী লীগ দলীয় দু'জন প্রার্থী, প্রথমে নাহিদ সুলতানা যুথী ও পরে শাহ মঞ্জুরুল হককে তথাকথিত বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। ক্ষমতাসীন দলের বহিরাগত সন্ত্রাসীরা নির্বাচনের অব্যবহিত পরে ০৮/০৩/২০২৪ তারিখ প্রত্যূষে সমিতির অডিটরিয়ামে হামলা চালিয়ে আইনজীবীদেরকে মারধর ও ব্যালট পেপার ছিনতাই করে নিয়ে যায়। উক্ত ঘটনা আওয়ামী লীগের দু'জন সম্পাদক পদপ্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘটিত হলেও সরকারের একজন বেতনভুক্ত আইন কর্মকর্তা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেলের সম্পাদক প্রার্থী ও আরও তিনজন আইনজীবী ফোরাম নেতাকে আসামি করে বিগত ০৯/০৩/২০২৪ শাহবাগ থানায় একটি মিথ্যা ও হয়রানিমূলক ফৌজদারি মামলা দায়ের করে।

চিঠিতে আরও উল্লেখ করা হয়, নির্বাচন কমিশনে দায়িত্বপালনকারী আইনজীবী ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার ওসমান চৌধুরী ও উক্ত নির্বাচনে সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী সংগঠনের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মো. রুহুল কুদ্দুস কাজলকে যথাক্রমে গত ৯ ও ১০ মার্চ, ২০২৪ ইং তারিখে উপরোল্লিখিত সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট মামলায় গ্রেপ্তার করে তাদেরকে যথাক্রমে ০৩ দিন ও ০৪ দিন ডিবি অফিসে রিমান্ডে নেওয়া হয়। তারা উভয়েই দু'সপ্তাহ কারাভোগ করেছেন। তাদেরকে কারাগারে রেখে গত ১০/০৩/২০২৪ ইং তারিখে লুট হয়ে যাওয়া ব্যালট পেপার গণনার নাটক সাজিয়ে তথাকথিত ফলাফল ঘোষণা করা হয়। যে নির্বাচনে আমাদের পুরো প্যানেলেরই বিজয় সুনিশ্চিত ছিল, সেখানে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ভোট ডাকাতি জায়েজ করতে আপনাদেরকে নামকাওয়াস্তে বিজয়ী দেখানো হয়েছে। বিজ্ঞ আইনজীবী সমাজ ও দেশের আপামর জনগণ নির্বাচনের এই ফলাফলকে প্রত্যাখ্যান করেছে। ইতোমধ্যে আমাদের সভাপতি পদপ্রার্থী বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার এ. এম মাহবুবউদ্দিন খোকন পুনর্নির্বাচন দাবি করেছেন। যা দেশের সব গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।

চিঠিতে আরও বলা হয়, উপরোক্ত সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ে গত ২৪ মার্চ তারিখে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সিনিয়র কেন্দ্রীয় নেতা, উপদেষ্টামন্ডলী ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি/সম্পাদকদের এক যৌথ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বিগত ০৬ ও ০৭ মার্চ, ২০২৪ অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি নির্বাচনের পর গত ১০/০৩/২০২৪ ইং তারিখ ঘোষিত ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে পুনর্নির্বাচনের দাবিতে ন্যায়সংগত যৌক্তিক আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

এ পরিপ্রেক্ষিতে আপনি (মাহবুব উদ্দিন খোকন)সহ অন্যরা সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ২০২৪-২০২৫ এর মেয়াদকালের দায়িত্বগ্রহণ থেকে বিরত থাকবেন এবং দলের দায়িত্বশীল নেতা হিসেবে দলীয় এই সিদ্ধান্ত যথাযথভাবে পালন করবেন।

এ বিষয়ে বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের মহাসচিব ব্যারিস্টার কায়সার কামাল ঢাকা টাইমসকে বলেন, আমরা এ নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করেছি। এ নির্বাচন জাতীয় নির্বাচনের মতো একতরফাভাবে করা হয়েছে। আইনজীবীদের অধিকার খর্ব করে রাষ্ট্রের মতো সুপ্রিম কোর্টকেও দলীয়করণ করার চেষ্টা করেছে সরকার।

(ঢাকাটাইমস/২৭মার্চ/জেবি/পিএস/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

রাজনীতি এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :