তিউনিশিয়ায় নৌকাডুবি: মাদারীপুরের পাঁচজন নিখোঁজ, নিহত ১

সাগর হোসেন তামিম, মাদারীপুর
| আপডেট : ১৫ মে ২০১৯, ২৩:০৩ | প্রকাশিত : ১৫ মে ২০১৯, ২২:৪৬

লিবিয়া হয়ে ইতালি যাওয়ার পথে তিউনিশিয়ার সাগরে নৌকাডুবির ঘটনায় মাদারীপুরের নিহত সজিবের গ্রামের বাড়ি চলছে মাতম। এছাড়া ওই ঘটনায় এ জেলার আরো অন্তত পাঁচজন নিখোঁজ হয়েছেন। এসব পরিবারে চলছে কান্নার রোল। নিহত ও নিখোঁজদের পরিবারের একটি দাবি, যে কোনোভাবেই হোক, তাদের স্বজনদের ফিরিয়ে আনা হোক।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, বছর খানেক আগে অবৈধপথে লিবিয়া যান মাদারীপুরের কয়েক যুবক। এরপর অবৈধভাবে সমুদ্র পথে লিবিয়া হয়ে ইতালি যাওয়ার সময় সোমবার রাতে তিউনিশিয়ায় সাগরে নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে। এতে অনেক বাংলাদেশি নিহত ও নিখোঁজ হন। এর মধ্যে মাদারীপুর সদর উপজেলার শিরখাড়া ইউনিয়নের উত্তর শিরখাড়া এলাকায় আজিজ শিকদারের ছেলে সজিব হোসেন (২০) মারা যান। একই ঘটনায় নিখোঁজ থাকেন একই উপজেলার বল্লভদী এলাকার আদেল উদ্দিন মাতুব্বরের ছেলে মনির হোসেন মাতুব্বর (২১) ও শ্রীনদী এলাকার জোবায়ের মাতুব্বরের ছেলে নাদিম মাতুব্বর (১৬)।

একই ঘটনায় সদর উপজেলার মঠেরবাজার এলাকার মজিবুর রহমানের ছেলে সাইফুর ইসলাম (২৩) নিখোঁজ রয়েছেনে। নিখোঁজ রয়েছে মাদারীপুরের শিবচরের দত্তপাড়া ইউনিয়নের চরগ্রামের সেকান্দার হাওলাদারের ছেলে জাকির হোসেন (২৮)।

অপরজন আলম দস্তার গ্রামের জাফর সিকদারের ছেলে নাইম সিকদার (১৯)। এসব পরিবারে চলছে কান্নার রোল। দ্রুত নিহতের লাশ দেশে আনার পাশাপাশি নিখোঁজদের ফিরে পেতে সরকারের সহযোগিতা চেয়েছেন স্বজনরা। এছাড়া দালালদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

নিহত সজিবের বোন মিম আক্তার মাতম করতে করতে ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘আমারে আফা কইয়া আর কে বোলাবো। আমার ভাইরে এক বছর রাইখা কেন বৃহস্পতিবার পাঠাইলি। আমি এহন কেমনে ভাইরে ভুইলা থাকমুরে। কোথায় গেলি সজিবরে।’

অপরদিকে গত বছর এই দিনে পরিবারের মুখে হাসি ফোটাতে অর্থ উপার্জনের জন্য নূর-নবী খলিফা ও নূর ইসলাম খলিফা নামের দুই দালালের হাত ধরে বিদেশে পারি জমান। নিখোঁজ জাকিরকে স্থলপথে তুরস্ক নেওয়ার কথা থাকলেও, দালাল চক্র লিবিয়া নিয়ে আটকিয়ে রাখেন। লিবিয়ায় জাকির হোসেনকে আটক রেখে পরিবারকে ভয়ভীতি দেখিয়ে বিভিন্ন সময় টাকা দাবি করে। টাকা দিতে অস্বীকার করলেই ছেলেকে বিক্রি করে দিবে অথবা না হয় অনাহারে রাখবে বলে হুমকি দিতে থাকে। এ পর্যন্ত পরিবারের কাছ থেকে প্রায় ৮ লাখ ২০ হাজার টাকা দালালচক্রের কাছে দেন। গত বৃহস্পতিবার ভূমধ্যসাগরে লিবিয়ার উপকুল থেকে ৭৫ জন অভিবাসী নিয়ে ইতালির উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়া ট্রলার ডুবিতে নিখোঁজ হন জাকির হোসেন। জাকির হোসেনকে হারিয়ে এখন দিশেহারা স্ত্রী সন্তানসহ পরিবারের লোকজন। স্বামীকে হারিয়ে কান্না যেন থামছেই না স্ত্রী শান্তা আক্তারের। অবুঝ দুটি কন্যা সন্তানকে শান্তনা দেওয়ার ভাষা নেই পরিবারের লোকজনের। এদিকে সন্তান ট্রলার ডুবিতে নিখোঁজ হওয়াকে যেন বিশ^াসই করতে পারছেনা নিহত জাকিরের বাবা-মামা।

এলাকাবাসী জানান, দালালদের খপ্পরে পরে লিবিয়া হয়ে ইতালি যাওয়ার পথে ট্রলার ডুবিতে নিহত সজিব ও নিখোঁজদের পরিবারগুলোকে শান্তনা দেওয়া ভাষা নেই। তবে দালালদের উপযুক্ত শান্তি দাবি করছি। যাতে আর কোন দালালচক্র এরকমভাবে ট্রলার পথে গ্রামের সহজ সরল যুবকদের নিয়ে মৃত্যুর দিকে ঠেলে না দেয়। এসমস্ত দালালদের চরম শাস্তি হোক।

এব্যাপারে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি মাদারীপুর শাখার যুব প্রধান শিশির হোসেন জানান, ‘তিউনিসিয়ার উপকূলের কাছে নৌকা ডুবির ঘটনায় এই পর্যন্ত মাদারীপুরের কয়েকজনের নাম জানা গেছে। সজিব নামে একজনের নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। আমরা নিহত ও নিখোঁজদের বাড়িতে গিয়ে তথ্য নিয়েছি।’ এলাকাবাসী ও প্রশাসনও চান, দালালদের উপযুক্ত শান্তির। যাতে আর কোন দালালচক্র এরকম ভাবে ট্রলার পথে গ্রামের সহজ সরল যুবকদের নিয়ে মৃত্যুর দিকে ঠেলে না দেয়।

ঢাকাটাইমস/১৫মে/ ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :