ন্যাপকিনে ভ্যাট আরোপের তথ্য মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর : এনবিআর

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ০৩ জুলাই ২০১৯, ১৬:২৮

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও কিছু মিডিয়ায় প্রচারিত হওয়া স্যানিটারি ন্যাপকিনের উপর মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট/মূসক) আরোপের  তথ্য মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর  বলে দাবি করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।
বুধবার এনবিআর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

এনবিআর দাবি করেছে, স্যানিটারি ন্যাপকিন বা সমজাতীয় কোন পণ্যের উপর ভ্যাট আরোপ করা তো দূরের কথা বরং স্যানিটারি ন্যাপকিন উপকরণের উপর আমদানি পর্যায়ে ভ্যাট ও সম্পূরক শুল্ক অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটির সিনিয়র তথ্য অফিসার সৈয়দ এ মুমেন সই করা বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে স্যানিটারি ন্যাপকিনের উপর ভ্যাট আরোপের ফলে এর মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং কিছু ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ায় প্রচারিত হচ্ছে। এ বিষয়ে গত ২৮ জুন ’দি সিক্সথ সেন্স’ নামক একটি প্রতিষ্ঠান জাতীয় যাদুঘরের সামনে মানব বন্ধন করে। কিছু কিছু অনলাইনমাধ্যমে স্যানিটারি ন্যাপকিনের উপর ৪০ শতাংশ মূসক আরোপ করা হয়েছে বলেও প্রচার করেছে, যা মিথ্যা ও বিভ্রান্তি সৃষ্টিকারী প্রচারণা।

এনবিআর বলছে, বর্তমান সরকার নারীর সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা ও ক্ষমতায়নের পাশাপাশি স্বাস্থ্য সুরক্ষার দিকটিও অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করছে। তাই নারীর প্রজনন স্বাস্থ্য সুরক্ষার লক্ষ্যে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট প্রজ্ঞাপনে (এস আরও নং-২৪০-আইন/২০১৯/৭৬-মূসক) দেশীয় স্যানিটারি ন্যাপকিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান কর্তৃক আমদানিকৃত উপকরণের উপর প্রযোজ্য ভ্যাট ও সম্পূরক শুল্ক অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছে। এতে দেশে উৎপাদিত স্যানিটারি ন্যাপকিনের দাম কমবে এবং স্বল্পমূল্যে নারীরা এটি ব্যবহার করতে পারবে।

স্যানিটারি ন্যাপকিন বা সমজাতীয় কোন পণ্যের উপকরণের উপর আমদানি পর্যায়ে ভ্যাট ও সম্পূরক শুল্ক অব্যাহতি প্রদান করা সত্বেও কতিপয় ব্যক্তি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ বিষয়ে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন, যা কোনভাবেই কাম্য নয়। তাই সংশ্লিষ্ট সকলকে এ ধরনের অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য অনুরোধ করা হলো।

ঢাকা টাইমস/ ০৩ জুলাই/ জেআর/আরএ

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :