নিরাপদ পরিবেশে রোহিঙ্গাদের ফেরাতে সু চিকে তাগিদ আবের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০১৯, ২১:০৫ | প্রকাশিত : ২২ অক্টোবর ২০১৯, ১৯:৩৯

রাখাইনে নিরাপদ পরিবেশ তৈরি করে বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরিয়ে নিতে দেশটির ডি-ফ্যাক্টো নেত্রী অং সান সুচিকে আহ্বান জানিয়েছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে।

জাপানের সম্রাট নারুহিতোর সিংহাসন আরোহণের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে জাপান সফরে যাওয়া অং সান সু চি প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। সোমবারের ওই বৈঠকে আবে এ আহ্বান জানান বলে জাপানের  পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

রাখাইনে উন্নয়নে জাপান সব ধরনের সহযোগিতা করে যাবে উল্লেখ করে আবে বলেন, ‘রাখাইনে মানবাধিকার লঙ্ঘন হয়েছে। এটি মেনে নেয়া যায় না। স্বাধীন তদন্ত কমিশনের যে সুপারিশ এসেছে, তা দ্রুত বাস্তবায়ন করা মিয়ানমার সরকারের জন্য অপরিহার্য।

আবে বলেন, ‘রাখাইনে বাস্তুচ্যুত হওয়া রোহিঙ্গাদের ফেরাতে নিরাপদ পরিবেশ তৈরি করতে পারা মিয়ানমারের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। শান্তি প্রক্রিয়ার জন্য জাপান সর্বাত্মক সহযোগিতা করে যাবে।’

জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে জাপানের সংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছে, আবের আহ্বানের পরিপ্রেক্ষিতে মিয়ানমারের নেত্রী সু চি যথাযথ পদক্ষেপ নেবেন বলে জানিয়েছেন।

এদিকে মিয়ানমারে জাপানের বিশেষ রাষ্ট্রদূত সাসাকাওয়া ইয়্যূই রোহিঙ্গা ইস্যুতে সার্বণিক তদারকি করছেন বলেও উল্লেখ করেন আবে। জবাবে সু চি বলেন, ‘আমি প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহণ করতে কোনো দ্বিধা করছি না।’

২০১৭ সালের আগস্টে রাখাইনের কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে কথিত হামলার অভিযোগে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের ওপর কাঠামোবদ্ধ অভিযান শুরু করে। নির্বিচারে হত্যা, ধর্ষণ ও বাড়িঘরে অগ্নিকাণ্ডের মধ্যে নিজভূম ছেড়ে প্রাণ বাাঁচাতে বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে থাকে রোহিঙ্গারা। কক্সবাজারের বিভিন্ন ক্যাম্পে তাদের ঠাঁই হয়েছে। আগে থেকে থাকা রোহিঙ্গাদের নিয়ে বর্তমানে বাংলাদেশে ১২ লাখের বেশি রোহিঙ্গা রয়েছে বলে ধারণা করা হয়। এদের সাড়ে সাত লাখই এসেছে ২০১৭ সালের অভিযানের পর।
রোহিঙ্গাদের নিজ ভূমিতে ফেরাতে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে একাধিক উদ্যোগ নেওয়া হলেও মিয়ানমারের নানা চাতুরি আর রাখাইনে তাদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ তৈরি না করায় সব উদ্যোগই কার্যত ভেস্তে গেছে।

(ঢাকাটাইমস/২২অক্টোবর/ডিএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :