ফরিদপুরে ‘সাদ পরিবহন’ চলাচলে বাধার অভিযোগ

ফরিদপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৮ জুলাই ২০২০, ১৮:৩৪

ফরিদপুরে আলফাডাঙ্গা-বোয়ালমারী-ঢাকা রুটের সাদ পরিবহনকে চলাচলে বাধা দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ৬ ও ৮ জুলাই ওই রুটে যাত্রী নিয়ে আলফাডাঙ্গা-বোয়ালমারী থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী সাদ পরিবহনের বাস দুই দিন শহরের রাজবাড়ী রাস্তার মোড়ে আটকে রাখেন মালিক সমিতির কিছু কর্মকর্তা। ওই বাসের সকল যাত্রীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে নামিয়ে দেয়া হয়। এ ঘটনায় যাত্রীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

সাদ পরিবহন ফরিদপুর জেলা বাস মালিক গ্রুপের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান সিদ্দিকীর মালিকানাধীন পরিবহন।

যাত্রী হয়রানি ও সাদ পরিবহনকে বাধা দেওয়ায় প্রসঙ্গে ফরিদপুর ট্রাফিক পরিদর্শক তুহিন লস্কর জানান, এক সময়ে ওই রুটে সাদ পরিবহন চলাচল করত। পরবর্তীতে ওই স্থানে সাউথ লাইন চলাচল করেছে। কিন্তু বর্তমানে সাউথ লাইন বন্ধ থাকায় সাদ পরিবহন আবার চলার চেষ্টা করায় সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। আমরা এ বিষয়ে উভয় পক্ষের কাগজপত্র দেখে সিদ্ধান্ত জানাব।

ফরিদপুর সাদ পরিবহনের মালিক কামরুজ্জামান সিদ্দিকী অভিযোগ করে বলেন, তার মালিকানাধীন সাদ পরিবহনের ৮টি ট্রিপ চলাচল করত বিভিন্ন রুটে। ২০১৪-১৬ সালে নির্বাচিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক থাকা অবস্থায় ফরিদপুরের সাজ্জাদ হোসেন বরকত ক্ষমতার প্রভাব খাঁটিয়ে এবং সাধারন মালিকদের ভয় দেখিয়ে ও তাদের জিম্মি করে বাস মালিক গ্রুপ থেকে অন্যায়ভাবে আমাকে সরিয়ে দেয়।

এরপর রাতের আঁধারে সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে বাস মালিক গ্রুপের সকল মালামাল ও সম্পদ পূর্বের কার্যালয় থেকে নিয়ে যায়। এরপর ২০১৫ সালের ১১ মার্চ বাস মালিক সমিতির দায়িত্ব নেন বরকত নিজেই।

তিনি সমিতির দায়িত্ব নিয়ে প্রথমেই আমার মালিকানাধীন সাদ পরিবহনের আলফাডাঙ্গা-ঢাকা রুটের সকল ট্রিপ অন্যায়ভাবে জবরদখল করে নেন।

সম্প্রতি, আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিশেষ অভিযানে ধরা পড়ে বরকত ও তার ভাইসহ তার কয়েক সহযোগী। এরপরেও বরকতের কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলী আহসান বনি অবৈধভাবে আমার মালিকানাধীন সাদ পরিবহন চলাচলে বাধা দেন। যা বাস মালিক গ্রুপের নীতিমালা পরিপন্থি।

এ বিষয়ে জেলা বাস মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক আলী আহসান বনি বলেন, বর্তমানে ওই রুটে সাদ পরিবহনের কোন ট্রিপ নেই। সাদ পরিবহন অবৈধভাবে চলায় তা বাধা দেওয়া হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/৮জুলাই/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :