সহজে গবেষণা শেখার বই ‘বিদ্যালয়ের উন্নয়নে কর্মসহায়ক গবেষণা’

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৫ মার্চ ২০২১, ১৭:০৩

প্রাথমিক থেকে উচ্চশিক্ষাক্ষেত্রের শ্রেণিকক্ষভিত্তিক ও প্রাতিষ্ঠানিক সমস্যা সমাধানকল্পে শিক্ষকদের কাছে ক‍‍র্মসহায়ক গবেষণার ধারণা স্পষ্ট করার প্রয়াসে প্রকাশিত হলো গবেষণা সহায়ক বই ‘বিদ্যালয়ের উন্নয়নে ক‍‍র্মসহায়ক গবেষণা’।

ব্যক্তিগত জীবনের বাইরেও অন্যান্য পেশার মতো শিক্ষকতা পেশায় জড়িতদের নিত্যনতুন সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। বিশেষ করে পাঠদান প্রক্রিয়া, শিশুদের শিখন পদ্ধতি, মূল্যায়নব্যবস্থাসহ অনেক বিষয় নিয়ে কাজ করতে হয়। তবে শিক্ষকরা তাদের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা ও ক‍‍র্মদক্ষতা দিয়ে সমস্যাগুলো উতরে যান। কিন্তু এসব সমস্যা সমাধানের মাধ্যমেই তাদের পেশাগত উন্নয়নের সুযোগ রয়েছে। আর এই সুযোগ করে দিচ্ছে ক‍‍র্মসহায়ক গবেষণা বা Action Research। অ্যাকশন রিসার্চের মৌলিক বই ‘বিদ্যালয়ের উন্নয়নে ক‍‍র্মসহায়ক গবেষণা’ লিখেছেন মুহাম্মদ সালাহউদ্দিন ও রাবেয়া খাতুন।

আদ‍‍র্শ প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত ১৮১ পৃষ্ঠার বইটি অমর একুশে গ্রন্থমেলায় পাওয়া যাবে। মেলায় আদর্শ প্রকাশনীর (৩৮, ৩০, ৪০ ও ৪১) নম্বর স্টলে পাওয়া যাবে বইটি। বই মেলা থেকে সংগ্রহ করলে ৩৪০ টাকার বইটি ২৫৫ টাকায় পাবেন বইপ্রেমীরা।

শিক্ষকদের পেশাগত দক্ষতা উন্নয়ন এবং শিক্ষণ-শিখন পরিবেশ ও পদ্ধতিগত উন্নয়নের সম্মিলিত রূপই হচ্ছে বিদ্যালয়ের উন্নয়ন। যার জন্য প্রয়োজন গবেষণালব্ধ ফলাফলভিত্তিক পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন। ক‍‍র্মসহায়ক গবেষণা হলো যার একটি সহজ সমাধান। প্রাথমিক থেকে উচ্চশিক্ষাক্ষেত্রের শ্রেণিকক্ষভিত্তিক ও প্রাতিষ্ঠানিক সমস্যা সমাধানকল্পে শিক্ষকদের কাছে ক‍‍র্মসহায়ক গবেষণার ধারণা স্পষ্ট করার প্রয়াসে ‘বিদ্যালয়ের উন্নয়নে ক‍‍র্মসহায়ক গবেষণা’ বইটির রচনা। বইটিতে সহজ ভাষায় বাস্তব উদাহরণসহ ক‍‍র্মসহায়ক গবেষণার বিভিন্ন বিষয় সফলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। আশা করা যায়, গবেষণা করার ক্ষেত্রে বইটি শিক্ষক ও নবীন গবেষকদের সাহস জোগাবে।

যাদের জন্য এই বই: যারা প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে বিশ্ববিদ্যালয় প‍‍র্যায়ে শিক্ষকতা পেশার সাথে জড়িত মূলত তাদের জন্য এই বই। এছাড়াও প্রাইমারি টিচা‍র্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (পিটিআই) এ প্রশিক্ষণরত প্রশিক্ষনা‍র্থী ও প্রশিক্ষকগণের (ইন্সট্রাক্টর) জন্যও এ বইটি ক‍‍র্মসহায়ক গবেষণা বা Action Research পরিচালনায় সহায়তা করবে। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে অধ্যয়নরত শিক্ষা‍র্থীদের একাডেমিক থিসিস সম্পন্ন করতে এই বইটি বিশেষভাবে সাহায্য করবে। শিক্ষা নিয়ে কাজ করছেন এমন উন্নয়ন ক‍‍র্মীরাও বইটি থেকে উপকৃত হবেন।

কী আছে বইটিতে: বইটিতে মোট ১০টি অধ্যায় রয়েছে। এখানে শুরুতেই পাঠকের জন্য গবেষণার প্রাথমিক ধারণা দেয়া হয়েছে যা তাকে ক‍‍র্মসহায়ক গবেষণা বা Action Research বুঝতে সাহায্য করবে। এছাড়াও বইটিতে নমুনায়ন, গবেষণার সাহিত্য প‍‍র্যালোচনা, তথ্য সংগ্রহের কলা কৌশল, তথ্য বিশ্লেষণ ও উপস্থাপন কৌশল এবং গবেষণার নীতি-নৈতিকতার বিষয়গুলো আলোচনা করা হয়েছে। বইটিতে এপিএ (৭ম সংস্করণ) পদ্ধতি ব্যবহার করে তথ্যসূত্র লেখার কৌশল উদাহরণসহ ব‍‍র্ণনা করা হয়েছে। নতুন গবেষকদের জন্য প‍‍র্যাপ্ত উদাহরণ দিয়ে গবেষণার প্রস্তাবনা ও প্রতিবেদন লেখার কলা-কৌশল প্রয়োজনীয় উদাহরণ দিয়ে সহজ ভাষায় উপস্থাপন করা হয়েছে।

বইটির মূল্যায়ন করতে গিয়ে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমি (নেপ) এর মহাপরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব মো. শাহ আলম বলেছেন, ‘ক‍‍র্মসহায়ক গবেষণার ধারণা এবং বিদ্যালয়ে এই গবেষণা সম্পন্ন করার কলাকৌশল নিয়ে বাংলা ভাষায় একটি বইয়ের চাহিদা রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে মাঠপ‍‍র্যায়ের শিক্ষক, প্রশিক্ষক ও শিক্ষা ক‍‍র্মক‍‍র্তাদের এখনো অনেক জিজ্ঞসা রয়েছে। এ বইটি তাদের সেসব অনেক জিজ্ঞাসার উত্তর পেতে সহায়তা করবে।’

(ঢাকাটাইমস/২৫মার্চ/বিইউ/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

সাহিত্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :