অমিকে নিয়ে যা বলছেন বায়রা নেতারা

বোরহান উদ্দিন, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২১ জুন ২০২১, ১২:৫৭

ঢাকাই চলচ্চিত্রের নায়িকা পরীমনিকে ধর্ষণচেষ্টা ও হত্যাচেষ্টা মামলার আসামি তুহিন সিদ্দিকী অমির বিত্ত বৈভবের মালিক বনে যাওয়া নিয়ে একের পর এক বের হচ্ছে নানা খবর। প্রভাব প্রতিপত্তি খাটিয়ে খুব অল্প সময়ের মধ্যেই একজন প্রভাবশালী জনশক্তি রপ্তানিকারক হিসেবে নিজেকে পরিচিত করা অমির বিরুদ্ধে আসছে নানা অভিযোগ। সম্প্রতি পরীমনির ইস্যুতে অমির সম্পৃক্ত থাকার বিষয়টি প্রকাশের পর অমিকে নিয়ে বিব্রত জনশক্তি রপ্তানিকারকদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সি'র (​বায়রা) নেতারা। কেউ কেউ তার সদস্য পদসহ প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স বাতিল করাও দাবি করছেন।

গত সোমবার অভিনেত্রী পরীমণিকে ধর্ষণচেষ্টা ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে করা মামলার প্রধান আসামি নাসির উদ্দিন মাহমুদসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা পুলিশ। তাদের কাছ থেকে মাদক উদ্ধারও করা হয়। নাসির উদ্দিন ছাড়াও পরিমনির করা মালায় গ্রেপ্তার হন তুহিন সিদ্দিকী অমি, লিপি আক্তার, সুমি আক্তার ও নাজমা আমিন স্নিগ্ধা। তাদের মধ্যে অমি পরীমনির ডিজাইনার জিমির বন্ধু। মদ-ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার হওয়ার পর অমিসহ অন্যান্যরা এখন পুলিশি রিমান্ডে আছে।

এদিকে পরীমনির মামলা ছাড়াও অমির বিরুদ্ধে মানবপাচারসহ আরও কয়েকটি মামলা হয়েছে। ফলে সহসাই তার মুক্তি পাওয়ার সম্ভাবনা কম। অন্যদিকে তার দক্ষিণখানের অফিস থেকে শতাধিক পাসপোর্টও জব্দ করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, জনশক্তি রপ্তানিকারক সব প্রতিষ্ঠানকে বায়রার সদস্য হতে হয়। সে হিসেবে অমির প্রতিষ্ঠান আয়াত ট্যুর অ্যান্ড ট্রাভেল সার্ভিসেসও বায়রার তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠান। যদিও অমির প্রতিষ্ঠানটি খুব বেশিদিন আগে বায়রার সদস্য হননি।

বায়রার সাবেক নেতারা বলছেন, পরীমনির ঘটনায় অমির সম্পৃক্ততার ঘটনায় বায়রার উচিত তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার।

বায়রার সাবেক সভাপতি আবুল বাশার ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘হয়তো পাঁচ থেকে সাত বছর আগে অমি বায়রার সদস্য হয়েছে। নতুন ব্যবসায়ী হলেও অল্পদিনে অনেক টাকার মালিক হয়েছে। নিশ্চয়ই এত টাকা বৈধভাবে আয় করেনি। তাই যেভাবে আয় করেছে সেইভাবেই অবৈধ খরচ করেছে। না হলে এমন ঘটনায় কেন তার নাম আসবে।’

আবুল বাশার আরও বলেন, ‘এখন যদিও বায়রার কমিটি নেই কিন্তু যখন কমিটি হবে তখন অবশ্যই এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। তাদের উচিত হবে সরকারের কাছে তার লাইসেন্স বাতিল করার আবেদন করা।’

পরীমনিকে ঘিরে তোলপাড় হওয়া ঘট্নায় বায়রার সম্মানহানি হয়েছে এমন দাবি করে বায়রার সাবেক এই সভাপতি বলেন, ‘আমরা একদিকে যেমন লাখ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে কাজ করছি তেমনি বিপুল বৈদেশিক মুদ্রা দেশে আনার ব্যবস্থা করছি। এই পুরো বিষয়ের সঙ্গে দেশের সম্মান জড়িত। সেখানে যখন বায়রার কোনো সদস্যের বিরুদ্ধে এমন আপত্তিকর কোনো অভিযোগ আসবে তখন সরকার বা মন্ত্রণালয়েরও উচিত তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া। কারণ এরসঙ্গে মন্ত্রণালয়ের সম্মান জড়িত। এমন ব্যবস্থা করতে হবে যাতে তার স্বজনরাও আর কখনো জনশক্তি রপ্তানির লাইসেন্স না পায়।’

তবে পরীমনিকে নিয়ে তুহিন সিদ্দিকী অমির যে ঘটনায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে সেটাকে ব্যক্তিগত বিষয় হিসেবে দেখছেন সদ্য সাবেক বায়রা মহাসচিব শামীম আহমেদ চৌধুরী নোমান।

ঢাকাটাইমসকে নোমান বলেন, ‘বৈধ উপায়ে লাইসেন্স নিয়ে অমি ব্যবসা করেছে। বিশেষ করে মালয়েশিয়াতে লোক পাঠানোর ক্ষেত্রে তিনি সেরা দশজনের একজন। দুবাইতেও তিনি লোক পাঠিয়েছেন। কিন্তু এখন যে বিষয়টি সামনে এসেছে এটা তার ব্যক্তিগত বিষয়। এখানে আসলে সংগঠন হিসেবে বায়রার কিছু করার নেই। তবে ইমেজটা একটি বিষয়।’

বায়রার সাবেক এই মহাসচিব বলেন, ‘যেহেতু এখন বিষয়টি তদন্তের মধ্যে আছে সে কারণে এ নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে কিছু বলা মুশকিল। তবে আমরা প্রত্যাশা করবো সঠিকভাবে তদন্ত শেষে যাতে সঠিক তথ্যটি সামনে আসে। তাতে যে দোষী হবে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে। শেষ পর্যন্ত যদি অমির বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ প্রমাণ হয় তখন নিশ্চয়ই বায়রার দায়িত্বে যারা আছেন তারা কি করা যায় সেটা ভেবে দেখবেন।’

তুহিন সিদ্দিকী অমি জনশক্তি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান আইএসএমটি হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট লিমিটেডের চেয়ারম্যান। আয়াত ট্যুর অ্যান্ড ট্রাভেল সার্ভিসেসের সত্ত্বাধিকারীও তিনি। ইনস্টিটিউট অব সিঙ্গাপুর মেরিন টেকনোলজি লিমিটেড এবং বিএসএম ওয়েল্ডিং ট্রেনিং সেন্টার লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালকও তিনি। অমির মালিকানায় রয়েছে আরও বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান। এগুলো হচ্ছে- জান্নাহ অ্যাগ্রো পোল্ট্রি অ্যান্ড ফিসারিজ, জান্নাহ ট্রেডিং, জান্নাহ প্রোপাটিজ, জান্নাহ মেডিকেল সার্ভিসেস।

(ঢাকাটাইমস/২১জুন/বিইউ/এমআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিশেষ প্রতিবেদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত