স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের ইপিএস বেড়েছে তিন গুণ

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০২ আগস্ট ২০২১, ১৮:৩৯

পুঁজিবাজারের তালিকাভুক্ত স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেড চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে (জানুয়ারি-জুন) আয় করেছে প্রায় চার গুণ। শতাংশ হিসেবে প্রায় ২৮৪ শতাংশ বেশি। ব্যাংকটির আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ২০২০ সালের প্রথম ৬ মাসে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি আয় করেছিল ৬ পয়সা। এবছর আয় করেছে ২৩ পয়সা। যা গত বছরের আলোচ্য সময়ের তুলনায় ১৭ পয়সা বা তিন গুণ বেশি। চার গুন আয় করে ব্যাংকটি তালিকাভুক্ত ৩১টি ব্যাংকের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আয় করেছে গত বছরের তুলনায়।

পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, ২০২০ সালে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি আয় ছিলো ১.০৮ টাকা। ২০১৯ সালে ১.৫৭ টাকা, ২০১৮ সালে ১.৪৪ টাকা এবং ২০১৭ সালে শেয়ার প্রতি আয় ছিলো ১.৫৬ টাকা।

লভ্যাংশ পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, সবশেষ বছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা করে। এর মধ্যে ২.৫০ শতাংশ নগদ এবং ২.৫০ শতাংশ বোনাস।

২০১৯ সালে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা করে। এর মধ্যে ৫ শতাংশ নগদ এবং ৫ শতাংশ বোনাস। এছাড়াও ২০১৮ এবং ২০১৭ সালে ১০ শতাংশ করে বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করে।

গত একমাসে ব্যাংটির শেয়ার দর বেড়েছে ৭০ পয়সা। সবশেষ ব্যাংকটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৯.৪০ টাকায়। গত এক বছরে ব্যাংটির শেয়ার দর সর্বনিন্ম ৭.৯০ টাকায় এবং সর্বোচ্চ ১০.৯০ টাকায় লেনদেন হয়েছে। অর্থাৎ এক বছরে ব্যাংকটির শেয়ার দর বেড়েছে ৩ টাকা বা ৩৮ শতাংশ।

১৫০০ কোটি টাকা অনুমোদিত ব্যাংকটির পরিশোধিত মূলধন ১০০৫ কোটি টাকা। বর্তমানে ব্যাংকটির শেয়ার সংখ্যা ১০০ কোটি ৫৯ লাখ ৯০ হাজার ৭৮৮টি। বর্তমানে ব্যাংকটির ওআইসি ব্যাতীত রিজার্ভ রয়েছে ৬১৮ কোটি ৮০ লাখ টাকা। বর্তমানে কোম্পানিটির ১ হাজার ২৫৯ কোটি টাকা স্বল্পমেয়াদি ঋণ রয়েছে।

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদের কাছে বর্তমানে ৩৭.৬২ শতাংশ শেয়ার রয়েছে। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ২৪.৭০ শতাংশ। বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে ০.৪৩ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ৩৭.২৫ শতাংশ শেয়ার।

(ঢাকাটাইমস/ ০২ আগষ্ট/এসআই/ আরএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :