নোয়াখালীতে স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন

নোয়াখালী প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৪৮

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার বাটইয়া ইউনিয়নের দয়ারামদি গ্রামে স্ত্রী নাজমা আক্তার নাজুকে হত্যার ঘটনায় স্বামী মনির হোসেন বাবুকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সাথে আসামিকে ৫০হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়।

সোমবার বিকালে নোয়াখালী জেলা ও দায়রা জজ সালেহ উদ্দিন আহমদ এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত মনির হোসেন বাবু দয়ারামদি গ্রামের আলী আহম্মদের ছেলে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, পরকীয়া প্রেমের জেরে ২০১৮ সালের ৩০ এপ্রিল রাতের কোন একসময় স্ত্রী নাজমা আক্তার নাজুকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে বাবু। এ ঘটনার চার মাস আগে তাদের বিয়ে হয়। পরদিন ১ মে সকালে নাজুর মৃত্যু বিষয়টি খবর পেয়ে তাদের শয়নকক্ষের খাটের উপর থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। নিহতের গলা ও হাতে চিকন রশি দিয়ে বাঁধার চিহ্ন ছিল। পরদিন রাতে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে নিজের অপরাধ স্বীকার করলে বাবুকে পুলিশে সোপর্দ করে চেয়ারম্যান। এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই বাদী হয়ে মনির হোসেন বাবুর বিরুদ্ধে কবিরহাট থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। পরে পুলিশ ঘটনাটি তদন্ত করতে গিয়ে বিয়ের আগে স্থানীয় এক নারীর সাথে বাবুর প্রেমের সম্পর্ক ছিল বলে তথ্য পায়। ওই সম্পর্কের জেরে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী নাজুকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে পালিয়ে যায় বাবু। তদন্তে যৌতুকের দাবিতে নয়, বরং অন্য একজন মহিলার সাথে সম্পর্কের কারণে বাবু তার স্ত্রী নাজুকে হত্যা করেছে মর্মে আদালতে চার্জশিট (অভিযোগপত্র) প্রদান করে এবং স্ত্রী হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয় বাবু। গ্রেপ্তারের পর থেকে জেলা কারাগারে ছিল আসামি বাবু।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনাকারী আইনজীবী (পিপি) গুলজার আহমেদ জুয়েল জানান, বিকালে কারাগার থেকে আসামি মনির হোসেন বাবুকে আদালতে হাজির করা হয়। পরে আদালতের বিচারক আসামি মনির হোসেন বাবুকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয়। ইতোপূর্বে সে হাজতবাস করায় মোট সাজা থেকে তা বাদ যাবে।

আসামি পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন মোহাম্মদ সাহাব উল্যাহ।

(ঢাকাটাইমস/২৫অক্টোবর/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :