দাঁত নিয়ে অবহেলা একেবারেই নয়

ডা. মো. মোহাইমিনুল ইসলাম অনিক
| আপডেট : ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১৮:৫৫ | প্রকাশিত : ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬:৩০

চিকিৎসাবিজ্ঞানের উত্তরোত্তর অগ্রগতিতে আর সব চিকিৎসার মতো অনেক উন্নত হয়েছে দন্ত চিকিৎসা। আগেকার দিনে দাঁতের কোনো সমস্যা হলে অসুস্থ দাঁতটি উপড়ে ফেলে সমাধান খোঁজা হতো। এখন অনেক ক্ষেত্রে আক্রান্ত দাঁতটি রেখেই চিকিৎসার কথা ভাবেন দন্ত চিকিৎসকরা।

অসুস্থ বা আক্রান্ত দাঁতটি রেখে চিকিৎসা দিয়ে রোগ সারিয়ে তুলতে চিকিৎসকরা রুট ক্যানেল করেন। দাঁতের চিকিৎসায় এটি এমন একটি চিকিৎসাপদ্ধতি যেখানে দাঁত না ফেলে দাঁতের আক্রান্ত পাল্প বা দন্তমজ্জা বের করে আনা হয়। এরপর দাঁতকে সংরক্ষণ করে পুনরায় কর্মক্ষম করে তোলা হয়।

রুট ক্যানেল করা দাঁতের অতিরিক্ত যত্ন করতে হয়। বিশেষ করে রুট ক্যানেল করা দাঁত যেদিকে সেদিক দিয়ে শক্ত খাবার না খাওয়া আর নিয়মিত মাড়ির ম্যাসাজ করতে হয়। এছাড়া নিয়মিত ব্রাশ, ডেন্টাল ফ্লস, ইন্টারডেন্টাল ব্রাশ দিয়ে দাঁত পরিষ্কার তো রাখতেই হবে।

এজন্য প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে ও সকালের খাবারের পর দাঁত ব্রাশ এবং দিনে অন্তত একবার ডেন্টাল ফ্লস ব্যবহার মিষ্টিজাতীয় খাবার ও কোমল পানীয় পানের পর কুলি করতে হবে। এবং দাতের পূর্বের চিকিৎসার রেকর্ড থাকলে বছরে অন্তত একবার ডেন্টাল চেকআপ করতে হবে।

কখন করাতে হবে রুট ক্যানেল

আক্রান্ত দাঁতটি রুট ক্যানেল করার উপযোগী কিনা সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবেন চিকিৎসক। যদি দাঁতের গভীর গর্ত থেকে প্রচণ্ড ব্যথা অনুভূত হয় এবং সেই ব্যথা কান, মাথা, চোখে ছড়িয়ে যায়; মিষ্টিজাতীয় কিংবা ঠাণ্ডা কোনো খাবার খেলে দাঁতে ব্যথা অনুভূত হয় এবং সেই ব্যথা ১৫ থেকে ২০ সেকেন্ডের বেশি স্থায়ী হয়; তাহলে দাঁতের রুট ক্যানেল করার বলেন চিকিৎসক। এছাড়া অনেক ক্ষেত্রে মাড়ির কোনো অংশ থেকে পুঁজ বের হওয়া বা কোনো আঘাতে কারণে দন্তমজ্জা ক্ষতিগ্রস্ত হলেও রুট ক্যানেল করার প্রয়োজন পড়ে।

যেভাবে রুট ক্যানেল করা হয়

বাংলাদেশে এখন উন্নত দেশগুলোর মতো এন্ডামোটরের মাধ্যমে রুট ক্যানেল করা হয়। রুট ক্যানেলের জন্য আক্রান্ত দাঁত অ্যানেস্থেসিয়া দিয়ে সাময়িক সময়ের জন্য অবেদন করে রিমার আর ফাইলের মাধ্যমে দন্তমজ্জা বা নার্ভ উঠিয়ে নিয়ে আসা হয়।

এরপর এক্সরে করে চিকিৎসক সিদ্ধান্ত নেন কতটুকু পর্যন্ত দাঁতটি সিল করতে হবে। সিল করা মানে হলো দন্তমজ্জার অংশটুকু কৃত্রিম মজ্জা দিয়ে বিশেষ ধরনের ওষুধমিশ্রিত করে ভরাট করে দেওয়া।

রুট ক্যানেল সম্পন্ন হলে অনেক ক্ষেত্রে দাঁতটি কর্মক্ষম রাখার জন্য ক্যাপ বা ক্রাউন করে দেওয়া হয়। তবে এই ক্ষেত্রে দাঁতটি আগের মতো পুরোপুরি শক্তি না পেলে কর্মক্ষম থাকে।

লেখক: ডেন্টাল সার্জন, ওরিয়েন্ট ডেন্টাল, শান্তিনগর এবং মেডিকেল অফিসার, ফরাজী হাসপাতাল, বারিধারা, ঢাকা

সংবাদটি শেয়ার করুন

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :