পদ্মা সেতুর নাট খুলে টিকটক

যুবকের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করছে সিআইডি

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৬ জুন ২০২২, ২০:৩৮ | প্রকাশিত : ২৬ জুন ২০২২, ২০:২৯

পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট খুলে টিকটক ভিডিও করে আটক হয়েছেন বায়েজিদ নামে এক যুবক। রবিবার বিকালে রাজধানীর বেইলি রোড থেকে তাকে আটক করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ—সিআইডির সাইবার পুলিশ সেন্টার—সিপিসি।

আটক যুবকের বিরুদ্ধে রাতেই মামলা হচ্ছে পদ্মা সেতু (মুন্সীগঞ্জের লৌহজং) উত্তর থানায়। ১৯৭৩ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে করা মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আটক যুবককে সকালে আদালতে তোলা হবে। চাওয়া হবে দশ দিনের রিমান্ড। এ বিষয়ে রবিবার দুপুরে আনুষ্ঠানিক ব্রিফ করে বিস্তারিত জানাবে সিআইডি।

সিআইডির প্রধান ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘আটক ওই ব্যক্তিকে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তবে কি কারণে সেতুর নাট খুলে টিকটক করেছে তার কোনো সন্তোষজনক উত্তর পাওয়া যায়নি। আরো তথ্য জানতে তাকে দশদিনের রিমান্ড চাওয়া হবে।’

জানা গেছে, ঢাকা কলেজ থেকে অনার্স-মাস্টার্স শেষ করে চাকরিতে প্রবেশের চেষ্টা করছিলেন বায়েজিদ। তার গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালী। পরিবারের সঙ্গে শান্তিনগর এলাকায় থাকতেন।

সিআইডির একটি সূত্র বলছে, টিকটকের ওই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরপরই তৎপর হয় সিআইডির সিপিসি। একপর্যায়ে সন্দেহভাজন যুবকের অবস্থান নিশ্চিত হয় সংস্থাটি। এরপরই তাকে আটক করা হয়। এর আগে তার ডিভাইস থেকে সব মুছে দিয়েছিল আটক যুবক। পরে সেগুলি পুনরুদ্ধার করা হয়।

এর আগে রবিবার দুপুরে কাইসার ৭১ (Kaisar71) নামক একটি টিকটক অ্যাকাউন্টের লোগো লাগানো ৩৬ সেকেন্ডের ভিডিওটি ভাইরাল হলে তা নিয়ে শুরু হয় সমালোচনা। এ নিয়ে ঢাকাটাইমসে সংবাদ প্রকাশ হলে তা নজরে আসে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর।

সিআইডি প্রধান ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান এ বিষয়ে তরিৎ ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দেন। নির্দেশনা পেয়ে সিপিসি টিকটক করা সেই যুবকের অবস্থান শনাক্ত করে। পরে তাকে বেইলি রোড এলাকা থেকে আটক করা হয়।

সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার রেজাউল মাসুদ ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘বায়েজিদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা হচ্ছে। আজ রাতেই মামলাটি হবে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে দশদিনের রিমান্ড চাওয়া হবে।’

টিকটক ভিডিওতে দেখা যায়, এক যুবক পদ্মা সেতুর কংক্রিটের রেলিংয়ের ওপর দিয়ে লোহার রেলিংয়ের দুইটি নাট খুলছেন। এই নাট দুইটি দিয়ে লোহার রেলিংটি আটকানো রয়েছে কংক্রিটের রেলিংয়ের সঙ্গে। এরপর সেই যুবক নাট দুটি বাম হাত দিয়ে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে খুলে ডান হাতে নেন এবং আবার বাম হাতের ওপর রাখেন।

নাট দুটি খুলে হাতের ওপর রেখে বলেন—‘এই হলো আমাদের পদ্মা সেতু। আমাদের হাজার হাজার কোটি টাকার পদ্মা সেতু।’ এসময় পাশ থেকে আরেকজনকে বলতে শোনা যায়, ‘নাট খুলে ভাইরাল করে দিয়েন না।’

(ঢাকাটাইমস/২৬মে/এসএস/ডিএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অপরাধ ও দুর্নীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

অপরাধ ও দুর্নীতি এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :